ক্যাটেগরিঃ রাজনীতি

দোষ আগে নিজেদের দিয়ে তারপর অন্যকে দোষারোপ করাই শ্রেয়।একটি স্থান দিয়ে হাঁটলে একদিন সেখান দিয়ে পথ সৃষ্টি হয়।রাজনৈতিক দলগুলো গণতান্ত্রিক অধিকার চর্চার কথা বলে হরতাল এর পক্ষে হাজার হাজার যুক্তি দিতে পারে। আমরা সাধারণ জনগণ আমাদের বিজয়ের মাসে কোন হরতাল মেনে নেব এমন কথা নেই,যুক্তি দিয়ে ব্যাখ্যারও দরকার নেই।কারণ স্বাধীনতা আমাদের অস্তিত্বের সাথে জড়িত।আপনি ব্যক্তিগতভাবে কিংবা রাজনৈতিক মতাদর্শের পার্থক্য ভেদে যে কাউকে আক্রমণ বা প্রতিহত করার অধিকার রাখেন কিন্তু একটি স্বাধীন সার্বভৌম রাষ্ট্রে দেশদ্রোহীদের সাথে নিয়ে বা তাদের হয়ে কথা বললে কখনই ফলাফল শুভ হবে না।কারণ স্বাধীনতার চেতনা এখনো মুছে যায় নি। যে যে দলকেই সাপোর্ট করিনা কেন দেশদ্রোহী-যুদ্ধাপরাধীদের কোন সাপোর্ট নয়।

প্রথম লাইন দিয়ে শুরু করি।আজ জনাব ফখরুল সাহেব হরতালের পক্ষে যুক্তি তুলে ধরলেন দেখে খুব অবাক লাগল।তার যুক্তি অত্যন্ত বলিষ্ঠ তাতে সন্দেহ নেই।কিন্তু কাদের পক্ষে তিনি এই যুক্তি উত্থাপন করলেন একটু ভেবে দেখেছেন কি?যারা হরতালের মাধ্যমে এ দেশের চিহ্নিত রাজাকারদের মুক্তির শ্লোগান দেবে,ত্রিশ লক্ষ শহীদদের গালাগাল করবে তাদের পক্ষে?? নাকি বিএনপি দলগত ভাবে জামায়াতে একিভুত বা বিলিন হয়ে যাচ্ছে? অথবা তারা জামাত ছাড়া নিজেদের অস্তিত্ব সংকট অনুভব করছে? বিএনপিতে মুক্তিযোদ্ধা রাজনীতিবিদের অভাব নেই কিন্তু তারাও আজ কোনঠাসা হয়ে আছে কোন অদৃশ্য জুজুর ভয়ে অথবা কাফনের কাপড়ের ভয়ে।ভেবে বলুন আর নাই বলুন,ফখরুল সাহেব কিংবা তার দল দেশে অনাকাঙ্খিত কিছু ঘটে গেলে তার দায়ভার কি মাথায় তুলে নেবেন?

জামাত আর নিষিদ্ধ ঘোষিত জেএমবি যে এক সুতোয় গাঁথা তা কারো অজানা নয়।স্বাধীনতার পর থেকে আজ অবধি তারা প্রকাশ্যে এবং গোপনে দেশ বিরোধী কর্মকাণ্ড করে যাচ্ছে এবং বিজয়ের মাসে সারাদেশে নাশকতা সৃষ্টির ছক এঁকেছে তা রোববার রাতে আটককৃত জেএমবি নেতাদের স্বীকারোক্তিতে স্পষ্ট হয়ে উঠেছে।এ বিষয়ে র‌্যাবের কমান্ডার সোহায়েল বলেন, “জেএমবি জামায়াতের সঙ্গে মিশে তিনটি লক্ষ্য নিয়ে কাজ করছে। এগুলো হলো- বাংলাদেশে রোহিঙ্গাদের প্রতিষ্ঠা ও সহযোগিতা, দেশের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতিতে বিঘ্ন সৃষ্টি করা ও যুদ্ধাপরাধীদের রক্ষা করা।” আরো পড়ুন-
জামায়াত-জেএমবি একাট্টা, রাজধানীজুড়ে নাশকতার পরিকল্পনা

বিজিয়ের এই মাসে ত্রিশ লক্ষ শহীদের রক্তে অর্জিত স্বাধীনতা আজ পদলেহিত হচ্ছে গুটিকয়েক দেশদ্রোহীর হাতে যারা সাধারণ মানুষের মগজ ধোলাই করে যাচ্ছে ধর্মের নামে।যাদের হাতের পুতুল আজ বাংলাদেশের অন্যতম এক প্রধান রাজনৈতিক দল।স্বাধীনতার ৪২ বছর পর দারুন প্রাপ্তি আমাদের। লজ্জা-ঘৃণা-বোধ শক্তিহীন এক স্বাধীন-সার্বভৌম রাষ্ট্র হয়ে গেল বাংলাদেশ।

আসলে রাজনীতির নামে আমরাই বিসর্জন দিয়ে যাচ্ছি আমাদের অস্তিত্বকে।ওই মানুষগুলো হয়তো জানেনা শেষ হয়ে যাওয়া অস্থিমজ্জাতেও ক্যালসিয়াম কিছুটা থাকে। আমরা এখনো বিলীন হয়ে যাইনি।

আজ সময় এসেছে লাখো মা-বোনের ইজ্জতের মুল্য পরিশোধের,ত্রিশ লক্ষ শহীদের রক্তের ঋণ শোধের, বিজয়ের মাসে আরেকটা বিজয় ছিনিয়ে আনবার,বাঙ্গালী জাতি পঙ্গু নয় প্রমাণ করার।

৩৮ টি মন্তব্য করা হয়েছে

  1. হৃদয়ে বাংলাদেশ বলেছেনঃ

    আমরা কি ওদের প্রকৃতই পরাজিত করতে পেরেছিলাম? আসলে ওদের সম্পূর্ণ নিশ্চিহ্ন করে ওদের কবর দিয়ে কবরের উপর ডিডিটি ছড়িয়ে দেয়া উচিৎ ছিলো। আমি দায়িত্ব নিয়ে বলছি, আমাদেরকে সে কর্ম থেকে নিবৃত করা হয়েছিলো।

  2. মিজান বলেছেনঃ

    বাঙ্গালী জাতীর মুর্খতাই বাঙ্গালী জাতিকে পঙ্গু করে রেখেছে।নইলে কি আর শিবির নামক ব্রেন ওয়শ গোষ্ঠী মাথা চাড়া দিতে পারত?আমরা আসলে সত্যিকারের স্বাধীনতা পাইনি।
    আমাদের উচিত এখুনি ওদের নিধন করা।

  3. আমীন বলেছেনঃ

    জামায়াত এই করে সেই করে বুঝলাম কিন্তু মুক্তিযুদ্ধের চেতনার লোকজন যে, দূর্ণীতি করে, দখলবাজী করে, চাদবাজী করে, চুরি-ডাকাতি করে, টেন্ডাবাজী করে তা কেন???

  4. মজিবর বলেছেনঃ

    মিস্টার ফকরুল সঠিক বলেন নাই। কারণ কোনও সমাবেশ, মিটিং,মিশিল, মানববন্ধন, করতে ডিএমপির পারমিশন লাগে। কিন্তু জামাত পারমিশন চান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর। গতকাল ডিএমপির নিকট আবেদন করেছে, তারপর দিনই সমাবেশ করতে দিতে কী সম্ভম? তাঁদের দেশের পরিস্থিতি বুঝতে হবে, পর্যবেক্ষণ করতে সময় লাগবে তারপর হ্যা বা না।
    হৃদয়ে বাংলাদেশ আপনার যথার্থ মন্তব্য, না পারি নাই বলেই আজ তাদের এত সাহজ। সেদিন যদি বিশ্বের কোনও দেশে নাই যুদ্ধ অপরাধীদের ক্ষমা করা হয়েছে? তাদের কুত্তার কামড়ে হত্যা করা উচিত।

  5. আহমেদ বলেছেনঃ

    ভাই কি যে বলব কষ্ট হয় । ভাই বি এন পি এইটা কি করল ??? ওরা দিন দিন আআদের মত তরুন সমাজের মন থেকে দিন দিন দূরে সরে যাচ্ছে !!!!!!!!!

  6. rafiq বলেছেনঃ

    সেজন্য আপনাকে যে বা যারা নিবৃত করেছিল, সে দায়ী অথবা সে সতিকার অথে দেশ-প্রেমিক; সে বাংলাদেশটাকে গঠন করতে চেয়েছিল। কিন্তু এখন আবার যদি সেই মহান ব্যাক্তির ভুমিকার প্রতি অসম্মান দেখানো হয়। তাহলে তা দেশের জন্য বা আপনাদের কারো জন্যই কল্যানকর হবে না।

    • নীলকন্ঠ জয়

      নীলকন্ঠ জয় বলেছেনঃ

      আপনার কথার সাথে দ্বিমত পোষণ তো করি নাই।কিন্তু আলোচ্য বিষয়ে আমি স্পষ্ট করে বলেছি,যে যে দলকেই সাপোর্ট করিনা কেন দেশদ্রোহী-যুদ্ধাপরাধীদের কোন সাপোর্ট নয়। যারা হরতালের মাধ্যমে এ দেশের চিহ্নিত রাজাকারদের মুক্তির শ্লোগান দেবে,ত্রিশ লক্ষ শহীদদের গালাগাল করবে তাদের পক্ষে নয়। যারা বাংলাদেশকে জাতি হিসেবেই স্বীকৃতি দেয় নাই তাদের পক্ষে নয়।
      কারণ-
      ১৯৭১ সালের ৫ ও ৬ সেপ্টেম্বর দৈনিক সংগ্রাম এ গোলাম আযমের পশ্চিম পাকিস্তান সফরকালের একটি সাক্ষাৎকারের পূর্ণ বিবরণ দুই কিস্তিতে ছাপা হয়। এই সাক্ষাৎকারে তিনি মুক্তিবাহিনীর সাথে তার দলের সদস্যদের সংঘর্ষের বিভিন্ন বিবরণ ও পূর্ব পাকিস্তান পরিস্থতির ওপর মন্তব্য করেন। তিনি বলেন,

      বিচ্ছিন্নতাবাদীরা জামায়াতকে মনে করতো পহেলা নম্বরের দুশমন। তারা তালিকা তৈরি করেছে এবং জামায়াতের লোকদের বেছে বেছে হত্যা করছে, তাদের বাড়িঘর লুট করছে জ্বালিয়ে দিয়েছে এবং দিচ্ছে। এতদসত্বেও জামায়াত কর্মীরা রাজাকারে ভর্তি হয়ে দেশের প্রতিরক্ষায় বাধ্য। কেননা তারা জানে ‘বাংলা দেশে’ ইসলাম ও মুসলমানদের জন্য কোন স্থান হতে পারে না। জামায়াত কর্মীরা শহীদ হতে পারে কিন্তু পরিবর্তিত হতে পারে না। (দৈনিক সংগ্রাম, ৬ সেপ্টেম্বর ১৯৭১)
      আরো বিস্তারিত পড়ুনঃগোলাম আযম

      আর ব্যক্তিগত মতাদর্শের ভিন্নতা আপনার থাকতেই পারে এবং সেটা সম্পুর্ণই আপনার একান্ত ব্যাক্তিগত দায়ভার।

      এখন আপনি আমার পরাজয়ে হাততালি বাজাবেন নাকি ডঙ্কা বাজাবেন সেটা আপনিই ঠিক করুন।

      ৮.১
  7. umor বলেছেনঃ

    বিজয় যদি শুধু আ্ওয়ামীলীগের জন্য হয় তাহলে তো দেশের সবাইকে আবার যুদ্ধ করতে হবে গোপালগঞ্জের কাছ থেকে স্বাধীনতা অর্জনের জন্য, সেক্ষেত্রে দেশের অনত্র যারাই আ্ওয়ামীলীগকে সমর্থন দিবে তারাই হবে রাজাকা!!!

  8. রনি আহমেদ বলেছেনঃ

    ভাই আ.লীগের মুখে মানবতার কথা মানায় না। বাঙ্গালী ভুলেনি ভুলবেনা ৭৩, ৭৪, আর ২৮ অক্টোবর। বেশীনা ভাই ৫ টা মাস অপেক্ষা করেন; ডায়রির প্রতিটি পাতার িহসাব দিতে হবে।

    ১০
  9. noman বলেছেনঃ

    ভাই আপনি সাবালক হবার পর থেকে সচখে এবং মিডিয়াতে -চূর , ডাকাত, চীনতাইকারী , ধর্ষক , খুনী , চদাবাজ , টেনডরবাজ, দখলবাজ, দেহবাব্সাএ -কাদেরকে অগ্রগামী দেখেন? অমিলিগের নাকি জামাত শিবির ?

    ১২
    • নীলকন্ঠ জয়

      নীলকন্ঠ জয় বলেছেনঃ

      ভাইজান,মাগনা মাগনা স্বাধীন দেশে জন্ম নিয়ে অনেক কিছুই বুঝা কঠিন।

      সাবালোক হইতে গেলে আক্কেল দাঁত উঠতে হয়।যা সবার উঠে না।বয়স বাড়লেও অনেকের ওঠে না।আ’লীগরে/বিএনপিরে টাইনা লাভ নাই।আমার পোষ্টেও আমি টানি নাই।যার যার কর্মফল সে ভোগ করবেই।দেশদ্রোহীদের কর্মফল ভোগে আপনার আপত্তি কেন ভাই?তাদের ভোগের সময় এখন।মাগনা মাগনা স্বাধীন দেশে জন্মালেও যারা দেশের বিরুদ্ধে কথা বলবে তাদের বিরুদ্ধে বলবই।সে যে দলই হোক না কেন।

      ১২.১
  10. আব্দুল kader বলেছেনঃ

    বই জন বুঝলাম উনি মাগনা মাগনা স্বাধীন দেশে জন্ম গ্রগন করল তাই তার মোট প্রকাশের স্বাধীনতও আছে বলে আপনি মনে করেন না.। আপনি কখন জন্ম গ্রহণ করলেন? দেশের জন্য কী করলেন? যুদ্ধ অপরাধীদের বিচার আমরাও কই কিন্তু বরর্তমানে যে বিচার কলতেছে তাহা বিরোধীদলকে দমনের একটা মাধ্যম বলে মনে হ্য়..। না হয় আদালত প্রাঙ্গণ থেকে কেন সাক্ষী অপহরণ করার দরকার হয়.?

    ১৩
    • নীলকন্ঠ জয়

      নীলকন্ঠ জয় বলেছেনঃ

      দুঃখিত জনাব বক্তব্যটা আপনার বোধগম্য হয় নি মনে হয়।কারণ ওনার বক্তব্য অনুসারে আমি সাবালক নই !! মাগনা মাগনা জন্মটা আমিই জন্মেছি। কারণ জন্মটা স্বাধীনতার পরে স্বাধীন দেশে।কিছুই করতে পারি নি দেশের জন্য সত্যি তাই বলে কি দেশদ্রোহীদের বিচার চাইতেও কুন্ঠাবোধ করব?
      আমার মন্তব্যের শেষ লাইনটি আবার পড়ে নিবেন দয়াকরে।
      মাগনা মাগনা স্বাধীন দেশে জন্মালেও যারা দেশের বিরুদ্ধে কথা বলবে তাদের বিরুদ্ধে বলবই।সে যে দলই হোক না কেন।
      আশা করি বুঝতে পেরেছে।না পারলে আমার ব্যার্থতা।ধন্যবাদ আপনার মুল্যবান মন্তব্যের জন্য।
      ভালো থাকুন।

      ১৩.১
  11. সুলতান মির্জা বলেছেনঃ

    তরুণ কন্ঠে বেজে উঠুক বিজয়ের রূপগল্প। দ্বাবি একটাই যুদ্ধাপরাধী, ঘাতক চক্রদের ফাসি চাই, এবং তা এই বিজয়ের মাসে। ধন্যবাদ নীলকন্ঠ জয়। এগিয়ে যাও, রাজাকার, শিবির চক্রের বিরুদ্ধে সঙ্গে আছি। ভাল থেক।

    ১৪
  12. সময় কথা বলে বলেছেনঃ

    ”নীলকন্ঠ জয়” যতই চিল্লাপাল্লা করেন কোন কাজ হবে না ,আপনারা নিজেদেরকে খুব বুদ্ধিমান ভাবেন আর অন্যদেরকে মাথামোটা ভাবেন তাই না ? ১৮দলীয় জোট ভাংতে পারবেন না কারণ ওইটা অরজিনাল সুপার গ্লু দ্বারা শক্ত হয়ে গেছে । আরেকটা কথা মনে রাখবেন জাময়াত শেষ মানে আওয়ামীলীগের রাজনীতি শেষ , কারন তখন আওয়ামীলীগের ১মাত্র ইস্যু (মুক্তিযোদ্ধা-রাজকার)বিলীণ হয়ে যাবে ।ওইটার প্রমান আওয়ামীলীগের ত্রত পাওয়ার থাকতে জামাতকে নিষিদ্ধ করছে না কেন ?যুদ্ধ অপরাধীদের বিচার হউক আমরা সবাই চাই ,কিন্তু বিচারের নামে প্রহসন ,রাজনৈতিক প্রতিপক্ককে ঘায়েল ওটা আমরা চাই না । ধন্যবাদ ভাল থাকবেন ।

    ১৫
  13. umor বলেছেনঃ

    লেখক আমার কথার জবাব না দিতে পেরে কয়’টা ভেটকি মেরে দিলেন!!!
    মন্তব্যকারীদের মন্তবের জবাব দিতে গিয়ে আপনাকে যে পরিমান উত্তেজিত মনে হচ্ছে তাতে যে কোন সময় হার্টে সমস্যা হয়ে যেতে পারে!!
    আর মনে রাইখেন কোন কিছু খা্ওয়ার আগে চিন্তা করতে হয় সেটা হজম করতে পারবো তো? তাই যেন তেন জিনিস গিলে ফেলবেন না……………….

    ১৬
    • নীলকন্ঠ জয়

      নীলকন্ঠ জয় বলেছেনঃ

      বিজয় যদি শুধু আ্ওয়ামীলীগের জন্য হয় তাহলে তো দেশের সবাইকে আবার যুদ্ধ করতে হবে গোপালগঞ্জের কাছ থেকে স্বাধীনতা অর্জনের জন্য, সেক্ষেত্রে দেশের অনত্র যারাই আ্ওয়ামীলীগকে সমর্থন দিবে তারাই হবে রাজাকা!!!এই প্রশ্নেতো ভেটকি মারা ছাড়া আর কিছু পাইলাম না।
      আমার কোন উত্তর আপনার কাছে উত্তেজনাকর মনে হয়েছে জনাব?নাকি আপনি আমার ভেটকি মারাটা হজম করতে পারেননি।
      ধন্যবাদ।ভালো থাকবেন।শুহভ কামনা।

      ১৬.১
    • নীলকন্ঠ জয়

      নীলকন্ঠ জয় বলেছেনঃ

      থিসিসের এক কাজে পাবনা পাগলা গারদে যেতে হয়েছিল কিছুদিন আগে।এক সেলে কয়েকজন পাগলকে একত্রে রাখা হয়েছিল।উদ্দেশ্য কিছুই না তাদেরকে আস্তে আস্তে নিজেদের ভুল নিজেদেরই ধরতে দেওয়া।তাদের মাঝে কয়েকজন সিভিয়ার পেশেন্ট(মারাত্মক পর্যায়ে) আর কয়েকজন প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত বয় আছে।এই ক্যাটাগরীর পাগলেরা একটা বিশেষ ব্যাপার নিয়েই মেতে থাকে সর্বক্ষণ।ঘন্টা খানেক ধরে লক্ষ্য করে দেখলাম এক পেশেন্ট খানিক পর পর অন্য পেশেন্টদেরকে গালাগালি করছে আর পরক্ষনেই জিজ্ঞাসা করছে এই তুই রাগ করিস নি?ওই যে রাগ করলি।আমি সিওর তুই রাগ করেছিস।এই বেধে গেল মারামারি।বয়দেরও কাজ ছিল ওদের সাথে তাল মেলানো।মারামারির যখন তুমুল পর্যায়ে তখন বয়গুলো এক জন একজন করে বলে উঠল আমি রাগ করেছি,আমিও রাগ করেছি,আমিও।আহ! কি যে তৃপ্তির হাসি পেশেন্টগুলোর মাঝে তা বোঝাতে পারব না।এরপর শুরু হয় কাউন্সিলিং।
      ভাই আপনি যখন বারবার ইচ্ছা প্রকাশ করছেন আমি উত্তেজিত।তা ভাই আমি উত্তেজিতই।এবার একটু তৃপ্তির হাসি হাসুন না প্লিজ। :D

      ১৭.১
  14. মিথিলা বলেছেনঃ

    আমার চাচা একজন শহীদ মুক্তিযোদ্ধা।আমরা কি চাইতেও পারবনা ওই নরপশুদের বিচার?যাদের দেশের প্রতি,দেশের মা-বোনদের ইজ্জতের প্রতি,লাখো শহীদদের রক্তের প্রতি নুন্যতম শ্রদ্ধাবোধ নেই শুধুমাত্র তারাই এই বিচারের প্রতি ক্ষোভ দেখায়।তারা যে বিকারগ্রস্থ তাতে কোন সন্দেহ নেই।
    দেশপ্রেমকে সকল ধর্ম সবকিছুর উর্ধে রেখেছে।অথচ যারা দেশদ্রোহী তাদের নিয়ে আজ কিছু মানুষের বিষদাত আরো বিষাক্ত হয়ে উঠছে।আজব তাদের দেশপ্রেম।
    বড় দুই দলের রাজনীতির রেষারেষিই এদের সুযোগ করে দিয়েছে।আওয়ামিলীগ এবং বিএনপির উচিত সব ভুলে এই পরাজিত শক্তির বিরুদ্ধে একত্রে সোচ্চার হওয়া।নইলে দেশের অবস্থাসোমালিয়া / পাকিস্তানের মত হতে দেরি নেই।বহির্বিশ্ব এই সুযোগ কাজে লাগাবেই।আমরা হারাবো আমাদের সার্ভভৌমত্ব।
    যে সকল মানুষ আজ ধর্মকে বর্ম করে ভালো মানুষি করছে তারা ১৯৭১ এও একি কাজটি করেছিল।তারা সেই মুখশের আড়ালে কি করেছিল তা কারো অজানা নয়।তবে কেউ যদি এই সত্যকেও অস্বীকার করে তবে সে নিজের অস্তিত্বকেও অস্বীকার করে।
    লেখকের লেখায় পক্ষপাতিত্ব খোজে অনেকে।আসলে স্বাধীনতার পক্ষে লিখলে বিরোধীরা তা খুঁজবেই।শহীদ মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের একজন হিসেবে নয় একজন বাঙ্গালী হিসেবে আমি দাবি করবই ওই কুলাঙ্গারদের বিচারের।
    লেখককে ধন্যবাদ লেখাটির জন্য।

    ১৮
    • নীলকন্ঠ জয়

      নীলকন্ঠ জয় বলেছেনঃ

      মিথিলা,দেশ-মাতৃকার জন্য শহীদদের প্রতি জানাই সহস্রকোটি সালাম।
      চাচার আত্মা শান্তি পাবে যেদিন তার খুনিরা উপযুক্ত শাস্তি পাবে।এদেশের মানুষ রাজনীতিকে বিচারের সাথে গুলিয়ে ফেলছে।ব্যক্তি স্বার্থের এবং রাজনৈতিক স্বার্থের উর্ধেও নয় আমাদের বিচার প্রক্রিয়া।তাই বিচার নিয়ে মানুষের মাঝে এত বিরোধ।তবে এসব স্বার্থের উর্ধে থেকে আমরা সকলেই এই বিচারের পক্ষে থাকব সর্বদা।যারা সত্যিকারের দেশপ্রেমিক তারা কখনই বিচার বিপক্ষে নয়।
      ধন্যবাদ মন্তব্য প্রদানের জন্য।
      শুভকামনা।

      ১৮.১
  15. জনতার মতামত বলেছেনঃ

    জামাত এসেছে জামাতকে এবং জামাতী কুলাঙ্গারদের রাজনীতি থেকে নিষিদ্ধ করার। ব্লগে কিছু স্থায়ী রাজাকার আছে যারা নামে বেনামে মুক্তিযুদ্ধ তথা বাঙ্গালী জাতিকে নিয়ে আপত্তিকর মন্তব্য করে যাচ্ছে এবং ব্লগ কর্তৃপক্ষ সানন্দে প্রকাশ করছে। লেখককে বলবো লিখে যান, আমরা আছি আপনাদের সাথে।

    ১৯
    • নীলকন্ঠ জয়

      নীলকন্ঠ জয় বলেছেনঃ

      কেউ বারন করলেও লিখব ভাই।আমার স্বাধীকার চেতনার সাথে বাকিদের চেতনার মিল না হলেও লিখব।যারা বাঙ্গালী জাতিসত্বা এবং স্বাধীনতা নিয়ে মন্তব্য করে যাচ্ছে তাদের (কু)চেতনার সাথে আমার চেতনার মিল না হলেও লিখব।ভ্রান্ত-পথহারাদের জন্য আফসোস কি তাদের পরিচয় লিখেছে কি মহাকাল?হ্যা মহাকাল তাদের কথাও লিখবে ঠিক গো,আজাম-নিজামীদের মত।
      ধন্যবাদ সাথে থাকার জন্য।
      শুভ কামনা।

      ১৯.১

কিছু বলতে চান? লিখুন তবে ...