ক্যাটেগরিঃ জনজীবন

পাকিস্তানে বসবাসরত বাঙালিদের একটি পল্লী থেকে আজ আমি কিছু ছবি তুলেছি, ছবি গুলি ব্লগার ও পাঠকদের জন্য এই পোস্টে উৎসর্গ করলাম ।

এই বাঙালি পল্লীটি করাচির বাফার জোন এলাকার গোদরা নামক জায়গায় অবস্থিত । এই পল্লীর বাঙালিদের সম্মন্দে জানা জায় এদের কিছু স্বাধীনতার পূর্ব থেকে করাচিতে বসবাস করছে । আর কিছু রাজাকার আছে যারা স্বাধীনতার পর বাংলাদেশের খুলনা অঞ্চল থেকে পালিয়ে এসে এখানে বসবাস শুরু করে । তাছাড়া এই পল্লীর প্রায় অর্ধেক জনসংখ্যা চাকরির জন্য ৮০ ও ৯০-এর দশকে নোয়াখালী ও কুমিল্লাসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে এসেছে । যাদের অধিকাশই দেশ প্রেমী বাংলাদেশি । ঐ সময় টাকার তুলনায় পাকিস্তানি মুদ্রার দাম দ্বিগুন ছিল ।

এই পল্লীর ৯৬% বাসিন্দাই স্বপরিবারে আছে, যাদের অধিকাংশই খুলনা ও কুমিল্লা অঞ্চলের বাসিন্দা । এখানকার রাজাকাররা বাংলাদেশের সন্তান হয়েও সব সময় বাংলাদেশের বিরুদ্ধে কথা বলে থাকে । বাঙালি রাজাকার ও তাদের সন্তানরা নিজেদেরকে পাকিস্তানি মনে করে যদিও পাকিস্তান সরকার এবং পাকিস্তানের জনগন তাদেরকে মোটেও পাকিস্তানি মনে করে না । কাগজে-পত্রেও বাঙালিরা পাকিস্তানের ঘোষিত নাগরিক নয় ।

রাজাকার হোক বা ১৯৭১ পূর্ব বাসিন্দা হোক, পাকিস্তানে বাঙালিরা মারাত্বক ভাবে বৈষম্যের শিকার । পুলিশের অত্যাচারও তুঙ্গে, দোষ একটাই- তাঁরা বাঙালি । এই পল্লীর ১০০% বাঙালিই মুসলমান । বাঙালিদের নির্মিত দুটি মসজিদও এখানে আছে । কিন্তু সমস্যা হলো পাকিস্তানিরা ধর্মের চেয়ে জাতকে বেশি গুরুত্ব দিয়ে থাকে । যা আমরা ১৯৭১-এও দেখেছি ।

এক তো পাকিস্তানের অর্থনৈতিক মন্দা অন্য দিকে পুলিশের নির্যাতন ও বৈষম্যে অতিষ্ঠ হয়ে বাঙালি পরিবার গুলো বাংলাদেশে ফিরে যেতে শুরু করেছে । প্রতি দিনই করাচিস্থ বাংলাদেশি কনসুলেটে গিয়ে নিজের দেশের ভিসার জন্য বাঙালিরা ভীড় করছে । এখানেও কনসুলেট কর্মীদের নানান হয়রানির শিকার হচ্ছে এই হতভাগা বাঙালিরা । তবে স্বাধীনতা বিরোধী রাজাকার পরিবার গুলো তেমন একটা বাংলাদেশ মুখী নয় ।

যাই হোক, আসুন ছবি গুলি দেখা যাক-

বাঙালি পল্লীতে দুধ সরবরাহ করতে আসা একটি গাধার গাড়ী ।


দুটি দোকান ।


বাঙালি পল্লীর কয়েকটি দোকান ।


বাঙালিদের মাছের দোকান, এখানে পাকিস্তানিরাও মাছ কিনতে আসে ।

৪৪ টি মন্তব্য করা হয়েছে

  1. Arif বলেছেনঃ

    বাংলার মাটিতে রাজাকারদের নতুণ করে কোন জায়গা দেয়াকে আমি সর্মথন করি না । তারা হতভাগা নয় । তারা রাজাকার । তবে, রাজাকার না হলে হতভাগাই বটে ।

  2. আইরিন সুলতানা বলেছেনঃ

    ৮০ দশকে বলতে, জিয়া সরকার ক্ষমতায় আসার পর বিচার কার্য চলতে থাকা রাজাকারদের ছেড়ে দেন, তাদের অনেকে কি সেই সময় পাকিস্তান পাড়ি জমায়?

    পাকিস্তানে বসবাসরত বাংলাদেশিদের সঠিক জন পরিসংখ্যান আছে কি? স্বাধীনতার পরবর্তী বা ৮০ দশক, এ হিসেব ধরলে এদের মোটে ২ প্রজন্ম চলছে, এবং তৃতীয় প্রজন্মের সূত্রপাত হচ্ছে সম্ভবত। এরা যদি তালিকাভূক্ত রাজাকার হয়ে থাকে, তাহলে এদের নিয়ে সরকারি পর্যায়ে কোন বিচার কাজের আলোচনা আছে কিনা? পাকিস্তান সরকার এইসব বাংলাদেশিদের কিভাবে সুবিধা দিচ্ছে? অথবা এরা কোন দিক দিয়ে সুবিধা বঞ্চিত?

    বসবাসের বৈধতা, বাণিজ্যের বৈধতা কি আছে এদের? … দীর্ঘ সময় ধরেই তো আছে ওখানে …

    সব চেয়ে আগ্রহ নিয়ে যে প্রশ্নটা করতে চাই, যারা আত্মস্বীকৃতি রাজাকার রয়েছে, এই কমিউনিটিতে, তাদের বর্তমান উপলব্ধি কী? পাকিস্তান কী দিল তাদেরকে?

    • এস দেওয়ান বলেছেনঃ

      ৮০ দশকে বলতে, জিয়া সরকার ক্ষমতায় আসার পর বিচার কার্য চলতে থাকা রাজাকারদের ছেড়ে দেন, তাদের অনেকে কি সেই সময় পাকিস্তান পাড়ি জমায়?

      পাকিস্তানে বসবাসরত বাংলাদেশিদের সঠিক জন পরিসংখ্যান আছে কি? স্বাধীনতার পরবর্তী বা ৮০ দশক, এ হিসেব ধরলে এদের মোটে ২ প্রজন্ম চলছে, এবং তৃতীয় প্রজন্মের সূত্রপাত হচ্ছে সম্ভবত। এরা যদি তালিকাভূক্ত রাজাকার হয়ে থাকে, তাহলে এদের নিয়ে সরকারি পর্যায়ে কোন বিচার কাজের আলোচনা আছে কিনা? পাকিস্তান সরকার এইসব বাংলাদেশিদের কিভাবে সুবিধা দিচ্ছে? অথবা এরা কোন দিক দিয়ে সুবিধা বঞ্চিত?

      বসবাসের বৈধতা, বাণিজ্যের বৈধতা কি আছে এদের? … দীর্ঘ সময় ধরেই তো আছে ওখানে …

      সব চেয়ে আগ্রহ নিয়ে যে প্রশ্নটা করতে চাই, যারা আত্মস্বীকৃতি রাজাকার রয়েছে, এই কমিউনিটিতে, তাদের বর্তমান উপলব্ধি কী? পাকিস্তান কী দিল তাদেরকে?

      জিয়া সরকারের ছেড়ে দেওয়া রাজাকারদের বিএনপির মাধ্যমে প্রটেকশন দেওয়া হয়েছিল তাই তাদের দেশ থেকে পালিয়ে যাওয়ার প্রয়োজন হয়তো ছিল না ।
      পাকিস্তান সরকারের অনুমান অনুযায়ী প্রায় ১০ লক্ষ বাঙালি নাকি দেশটিতে অবস্থান করছে । তালিকাভুক্ত রাজাকারদের ব্যাপারটা বাংলাদেশ সরকা্রই ভালো বলতে পারবে ।
      নেতা পর্যায়ের স্বাধীনতা বিরোধীদের পাকিস্তান সরকার বাসস্থান ও চাকরিসহ সব সুবিধাই দিয়েছে তবে সাধারণ রাজাকারদের লাঞ্ছনা, বৈষম্য ও পুলিশি নির্যাতন ছাড়া ভালো কিছুই দেয়নি । তাঁরা অশিক্ষা ও দারিদ্রতার সাথে নোংড়া যায়গায় বসবাস করছে । বলতে পারেন বাংলাদেশের বিহারিদের মতো অবস্থা ।
      রাজাকাররা বাংলাদেশকে পরের দেশ মনে করে ।

      ৩.১
  3. নুরুন্নাহার শিরীন বলেছেনঃ

    পাকিস্তানে বসবাসকারীর বাঙালিরা পাকিস্তানেই থাকুক। অযথা আমাদের তাদের নিয়ে ভাবার জন্য তারা কি আবেদন জানাচ্ছে ? নাকি আমরা নিজেরাই দরদী হচ্ছি ? উটকো ঝামেলাটি কাদের কাছে গ্রহনযোগ্য ? প্রশ্নটি এসেই যাচ্ছে নিশ্চয় ? :eek: :eek: :eek: :eek:

  4. জনতার মতামত বলেছেনঃ

    এমনিতেই পাকিস্থানী বংশদ্ভোতদের বাংলাদেশীদের জ্বালায় বাঁচিনা। তার উপর পাকিস্থান থেকে আপদগুলোকে বাংলাদেশের ভিসা দিলে অতিদ্রুত বাংলাদেশকে পাকিস্থানের (জঙ্গীরাস্ট্র) ভাগ্যবরণ করতে হবে।

  5. টিপূ সুলতান বলেছেনঃ

    “পাকিস্তানে বসবাসকারীর বাঙালিরা পাকিস্তানেই থাকুক। অযথা আমাদের তাদের নিয়ে ভাবার জন্য তারা কি আবেদন জানাচ্ছে ? নাকি আমরা নিজেরাই দরদী হচ্ছি ? উটকো ঝামেলাটি কাদের কাছে গ্রহনযোগ্য ? প্রশ্নটি এসেই যাচ্ছে নিশ্চয় ?”
    নুরুন্নাহার শিরিনের কথাটির সাথে আমার সহমত। এক্ষেত্রে পোস্টদাতার উদ্দেশ্যে আরেকটু যোগ করতে চাই। তিনি বলেছেন, ‘পাকিস্তানিরা ধর্মের চেয়ে জাতকে বেশি গুরুত্ব দিয়ে থাকে’। যিনি এই পোস্টটি দিলেন, তিনি বুকে হাত দিয়ে বলেন তো বাংলাদেশের সরকার, বা তাদের দল আওয়ামী লীগও কি ধর্মকে বেশি গুরুত্ব দেয় নাকি জাতকেই বেশি গুরুত্ব দেয়? তাও তো সেটা অখÐ কোনো জাত নয়, এবং নিজেরাই জানে না যে এটা একটা খন্ডিত জাত। যার অপর খন্ডটি পড়ে রইছে বৃহত্তর ভারতীয় জাতি হিসেবে।
    কাজেই নুরুন্নাহার শিরিনের মতো বলতে ইচ্ছে করছে, আগে নিজের চরকায় তেল, পরে অন্যের উটকো ঝামেলা নিয়ে ভাবিয়েন। গায়ে পড়ে এ ঝামেলা কি বাঙালিরাই নিতে উৎসাহী নাকি অন্য কোনো জাতিরাও!

    • এস দেওয়ান বলেছেনঃ

      বাঙালি জাতীতাবাদ আন্দোলনের মাধ্য মে বাংলাদেশের জন্ম হয়েছে তাই আমরা জাতকে গুরুত্ব দেবো এটাই স্বাভাবিক । অপর দিকে পাকিস্তানের জন্ম হয়েছে ধর্ম ভিত্তিক মুসলিম জাতীয়তাবাদ আন্দোলনের মাধ্যমে তাই ঐ দেশে জাতের চেয়ে ধর্মকেই বেশি গুরুত্ব দেওয়ার কথা ।
      আর আপনি যে ভারতীয় জাতির কথা উল্লেখ করলেন তার উত্তরে বলছি; ভারতীয় জাতি বলতে কিছু নেই, ভারতীয় নাগরিক বলা হয় । জাতীয়তা ও নাগরিকত্বের সজ্ঞা এক নয় ।

      ৬.১
  6. রাজেশ বলেছেনঃ

    এদের বাংলাদেশ-এ এনে আবার ঝামেলা বারিয়ে লাভ কি? ওরা তো বাংলাদেশকে ঘৃণা করে পাকিস্তানে চলে গিয়েছিল। ওখানে ভাল থাকুক।

    • এস দেওয়ান বলেছেনঃ

      পাকিস্তানে দুই প্রকারের বাঙালি আছে, যথা-
      ১- স্বাধীনতা বিরোধী তথা রাজাকার ।
      ২- ৮০ ও ৯০-এর দশকে চাকরির জন্য যাওয়া বাংলাদেশি ।
      যারা চাকরির জন্য গেছে তাদের সবার বাড়ি-ঘর ও আত্মীয়-স্বজন বাংলাদেশে রয়েছে । ২ নাম্বারের বাঙালিরা প্রতি দিনই বাংলাদেশে ফিরে আসছে । তাদের কেউ ফিরিয়ে আনবে সেই অপেক্ষায় বসে নেই । তবে ১ নাম্বারের স্বাধীনতা বিরোধী বাঙালিদের ব্যাপারটা ভিন্ন ।

      ৭.১
  7. জাহাঙ্গীর alam বলেছেনঃ

    সহনশীলতা ইসলামের তথা সব ধর্মেরী বিশেষ শিক্ষা ,তাই সহনশীল মনোবব নিয়ে মানবিক দৃষ্টিকোণ থেকে দেখুন।

  8. নুরুন্নাহার শিরীন বলেছেনঃ

    @জাহাঙ্গীর আলম, ভাই আপনি পাকিস্তান পল্লীর বাঙালীদের দুইচারটা পরিবারকে প্রথমে মানবিক সহনশীল মনোভাব দেখিয়ে নিজের পরিবারের সঙ্গে রাখুন, তবেই বুঝবো আপনার দরদ কতটা প্রকৃত। আপনার উদাহরণ হতে আরও ইসলামী ধর্মের বিশেষ শিক্ষাধারীরা মানবিক সহনশীল মনোভাব দেখাতে উতসাহী হয়েই বাংলাদেশ আপদ-বিপদে ভরে তুলুক, এইতো বলতে চাইছেন তাইনা !!! :eek: :eek: :eek:

    • এস দেওয়ান বলেছেনঃ

      শিরিন আপু, ধরুন আপনার এক ভাই যে কোনো কারনেই হোক পাকিস্তান চলে গেল । তার পর সে যদি ১৫-১৬ বছর পর দেশে ফিরে আসে তাহলে তার কি বাংলাদেশে থাকতে অন্য মানুষের কাছ থেকে আশ্রয়ের প্রয়োজন হবে ?
      যারা বাংলাদেশ থেকে বিদেশে গেছে তাদের বাড়ি-ঘর আত্মী-স্বজন সব বাংলাদেশে আছে । তাঁরা বাংলাদেশে আসতে কারো সাহায্যের জন্য বসে নেই ।
      তবে রাজাকারদের ব্যাপারটা ভিন্ন । যেই বাঙালিরা দেশ স্বাধীন হওয়ার পর ফিরে আসেনি এবং যারা স্বাধীনতা বিরোধী রাজাকার তাঁরা কোনো ভাবেই বাংলাদেশের নাগরিক সুবিধা পেতে পারে না ।

      ৯.১
  9. জনতার মতামত বলেছেনঃ

    দেওয়ান ভাই, আসলেই আমরা খবর নিতে পারছি না। পাকিস্থানে বসবাসরত বাংলাদেশীরা কে ভাল কে রাজাকার তাদের কিভাবে সার্টিফাই করা যায়, বলবেন প্লিজ।

    ১২
  10. টিপূ সুলতান বলেছেনঃ

    জাহাঙ্গীর আলমের উদ্দেশ্যে নুরুন্নাহার শিরীন যে নসিহত করলেন তাতে বোঝা গেল তিনি অনৈশ্লামিক। ইশ্লাম ধর্মে প্রত্যয়ী নন। মহানবীসহ কোনো নবীকেই কিন্তু প্রথমে তার নিজ পরিবারের লোককেই উদ্দীষ্ট ধর্মে আনীত করতে বাধ্য হতে হয়নি। এটা নবী প্রেরিত কোনো ধর্মেই নেই। অন্য ধর্মে আছে কিনা, আপনিই ভালতে পারবেন। যেহেতু আপনার উক্তিতেই স্পষ্ট আপনি কোন ধর্মের। আর ইশ্লাম তো কারো ‘ব্যক্তিগত ধর্ম’ নয়, এটি একটি সামষ্টিক ধর্ম।তবে নামটির কারণে কাউকে যদি ধন্ধে পরতে হয় এ ধরনের নাম আগে থেকেই অন্য সম্প্রদায়ের প্রচলিত ছিল।

    ১৩
  11. টিপূ সুলতান বলেছেনঃ

    জাহাঙ্গীর আলমের উদ্দেশ্যে নুরুন্নাহার শিরীন যে নসিহত করলেন তাতে বোঝা গেল তিনি অনৈশ্লামিক। ইশ্লাম ধর্মে প্রত্যয়ী নন। মহানবীসহ কোনো নবীকেই কিন্তু প্রথমে তার নিজ পরিবারের লোককেই উদ্দীষ্ট ধর্মে আনীত করতে বাধ্য হতে হয়নি। এটা নবী প্রেরিত কোনো ধর্মেই নেই। অন্য ধর্মে আছে কিনা, আপনিই ভাল বলতে পারবেন। যেহেতু আপনার উক্তিতেই স্পষ্ট আপনি কোন ধর্মের। তবে পারিবারিক এই নামটির কারণে কাউকে যদি ধন্ধে পরতে হয় এ ধরনের নাম আগে থেকেই অন্য সম্প্রদায়ের প্রচলিত ছিল। আর ইশ্লাম তো কারো ‘ব্যক্তিগত ধর্ম’ নয়, এটি একটি সামষ্টিক ধর্ম।

    ১৪
  12. টিপূ সুলতান বলেছেনঃ

    জাহাঙ্গীর আলমের উদ্দেশ্যে নুরুন্নাহার শিরীন যে নসিহত করলেন তাতে বোঝা গেল তিনি অনৈশ্লামিক। ইশ্লাম ধর্মে প্রত্যয়ী নন। মহানবীসহ কোনো নবীকেই কিন্তু প্রথমে তার নিজ পরিবারের লোককেই উদ্দীষ্ট ধর্মে আনীত করতে বাধ্য হতে হয়নি। এটা নবী প্রেরিত কোনো ধর্মেই নেই। অন্য ধর্মে আছে কিনা, আপনিই ভাল বলতে পারবেন। যেহেতু আপনার উক্তিতেই স্পষ্ট আপনি কোন ধর্মের। তবে পারিবারিক এই নামটির কারণে কাউকে যদি ধন্ধে পরতে হয় এ ধরনের নাম আগে থেকেই অন্য সম্প্রদায়ের মধ্যে প্রচলিত ছিল। আর ইশ্লাম তো কারো ‘ব্যক্তিগত ধর্ম’ নয়, এটি একটি সামষ্টিক ধর্ম।

    ১৫
  13. টিপূ সুলতান বলেছেনঃ

    জাহাঙ্গীর আলমের উদ্দেশ্যে নুরুন্নাহার শিরীন যে নসিহত করলেন তাতে বোঝা গেল তিনি অনৈশ্লামিক। ইশ্লাম ধর্মে প্রত্যয়ী নন। মহানবীসহ কোনো নবীকেই কিন্তু প্রথমে তার নিজ পরিবারের লোককেই উদ্দীষ্ট ধর্মে আনীত করতে বাধ্য হতে হয়নি। এটা নবী প্রেরিত কোনো ধর্মেই নেই। অন্য ধর্মে আছে কিনা, আপনিই ভাল বলতে পারবেন। যেহেতু আপনার উক্তিতেই স্পষ্ট আপনি কোন ধর্মের। তবে পারিবারিক এই নামটির কারণে কাউকে যদি ধন্ধে পরতে হয় তাদের জানা দরকার, এ ধরনের নাম আগে থেকেই অন্য সম্প্রদায়ের মধ্যে প্রচলিত ছিল। আর ইশ্লাম তো কারো ‘ব্যক্তিগত ধর্ম’ নয়, এটি একটি সামষ্টিক ধর্ম।

    ১৬
  14. প্রেমাধীনায়ক বলেছেনঃ

    নুরুন্নাহার শিরীন রাজাকারদের বিচার চাওয়া স্বাভাবিক, তাই বলে মানবতা বিষর্জন দিয়ে নয়।ব্লগে আপনার অতি আক্রমনত্তক আচরন গ্রহনযোগ্য নয়।

    ১৭
  15. প্রেসিডেন্ট : ARSAD বলেছেনঃ

    ভাই : আপনার কেউ আমাদের মাননীয় প্রায়-মিনিস্টার শেখ হাসিনা এর বিহাই (পুলুর এর সসুর মশাই) কে নিয়া কিসু বলবেন কী? সব রাজাকারের বিচার হতে হলে উনার টা বাদ যাই কী করে?

    ১৮
  16. nirobdewan বলেছেনঃ

    এই সব রাজাকারেদর জন্যই ১৯৭১ সােল ২ লক্ষ্ মা-েবানেদর জন্য সন্মান , ৩০ লক্ষ েলাক শহীদ হেয়েছ। এেদর আেরা েবশী িনজর্াতেনর স্বীকার হোয়া উিচত।

    ১৯
  17. Md.Saiful Islam বলেছেনঃ

    এই সেক্যুলার সরকার বহির্বিশ্বে বাংলাদেশের একটি চিত্র তুলে ধরতে চায়। আর তা হলো- বাংলাদেশ জঙ্গীতে ভরে গেছে। দাড়ি-টুপিওয়ালা এসব জঙ্গী এত বেশি বেড়ে গেছে যে, যখন-তখন তারা ক্ষমতা গ্রহণ করে বাংলাদেশকে তালেবানি রাষ্ট্রে পরিণত করে ফেলতে পারে। কাজেই এই জঙ্গীদের হাত থেকে দেশকে বাঁচাতে হলে- এই জঙ্গীদের দমন করে রাখতে হলে আওয়ামী লীগকে ক্ষমতায় রাখতে হবে।
    শাহজাহান খান তাই জেনেবুঝেই ইসলাম অবমাননাকর উক্তি করেছেন। ওনার মতো ঝানু মাল ‘না বুঝে’ আলেমদের সামনে আল্লাহর রাসূল সম্পর্কে এরকম ঔদ্ধত্বপূর্ণ বক্তব্য দেননি। বরং, ইসলাম অবমাননাকর উক্তির পর উপস্থিতি যখন তার বিরুদ্ধে শ্লোগান দিতে থাকেন, তখন তিনি আরো উচ্চস্বরে বক্তব্য চালিয়ে যান ‘জুতা খাওয়ার জন্য। বিটিভি’র ক্যামেরায় ধারণকৃত এসব ছবি তিনি এইবার বিদেশিদের দেখাবেন- ‘দেখো, আমরা ক্ষমতায় থেকেও তাদের জুতা খেতে হচ্ছে। আমরা ক্ষমতায় না থাকলে এদের অভয়ারণ্য হবে বাংলাদেশ।’

    ২০
  18. মজিবুর রহমান বলেছেনঃ

    বাপের দেশে গেছ বাপের দেশেই থাক।৭১এ পাক বাহিনীর দালালী করেছো আর আমাদের মেরেছো আমাদের মা বোনদের ধরে নিয়ে বা দেখিয়ে দিয়ে পাকিস্থানী প্রভুদের মনোরন্জন করেছো এখন [মডারেটেড] ৭১এ আমাদের কষ্টটা অনুভব কর।

    ২১
  19. লাবিবা বলেছেনঃ

    কেমন আছে পাকিস্তানে বসবাসকারী বাঙ্গালীরা — এটা শিরোনাম না হয়ে যদি এটা হত ” এই শীতে কেমন আছে উত্তরবঙ্গে বসবাসকারী বাঙ্গালীরা ” বা আরও ভাল হত “কেমন আছে আমার বাড়ির পাশে বসবাসকারী বাঙ্গালীরা” । তা না করে সোজা পাকিস্তানে দৃষ্টি চলে গেছে। ওখানে যারা আছে বা গেছে তারা ভাল লোক না। তাদের জন্য দয়া দেখানোর কোন দরকার দেখছি না। যদিও লেখকের তাদের জন্য যত না দয়া তার চেয়ে ঢের বেশি অন্য অ্যালার্জি। সে জন্য বলছি, বাড়িতে কি সবাই এই শীতে ঠিক আছে কি না সে দিকে নজর দিন। পারলে শীতে কিছু কাপড় বিলি করেন।

    ২৪
    • এস দেওয়ান বলেছেনঃ

      সমস্যা সব জায়গাতেই আছে কিন্তু এক সাথে সব বিষয়ে লেখা যায় না । আমি একটি বিষয় তুলে ধরেছি আপনি উত্তর বঙ্গের বিষয়টি তুলে ধরতে পারেন, এতে কোনো বাধা তো নেই । তা না করে আপনি উল্টো একটা মন্তব্য করে দিলেন । সব জায়গাতেই ভালো মন্দ মানুষ আছে । বাংলাদেশে যে যুদ্ধাপরাধী রাজাকাররা আছে তাঁরা নিশচয় আপনার চোখে খুব ভালো মানুষ । ঢালাও ভাবে মানুষ কে খারাপ বলা মুর্খতা ছাড়া আর কিছুই না ।

      ২৪.১
  20. মরুধন বলেছেনঃ

    বর্তমানে নিশ্চয়ই সব রাজাকার বেঁচে নেই। তাদের ২য় প্রজন্ম আছে, ৩য় প্রজন্ম সুত্রপাত। কি একটা কথা আছে- সবার উপরে মানুষ সত্য । আসুননা ওই দিকটাও সবাই একবার ভাবি। রাজাকারেরা ভাবেনি বলে, আমরাও কি ভাববো না। কুকুর কামড়ালেও আমরাতো কামড়াতে পারি না।

    ২৫
  21. শিশির বলেছেনঃ

    লেখক, আপনি ঐ আপার লেখাতে কিভাবে বুজলেন ,উনি বাংলাদেশে যে যুদ্ধাপরাধী রাজাকাররা আছে তাঁরা নিশচয় উনার চোখে খুব ভালো মানুষ , এইজন্য, পিয়াস করিম বলেছে, জোরে হাঁচি দিলে বলা হচ্ছে যুদ্ধাপরাধী রাজাকার , আবার এইজন্য , বিএনপির তরিকুল বলেছে, এই শীত নাকি বিএনপি এনেছে যুদ্ধাপরাধী বিচার বন্দ করতে, একটু সমালোচনা সহ্য করতে পারেন না। আপনি নিশ্চয় আওয়ামীলীগ করেন, ওরা একদম সমালোচনা সহ্য করতে পারে না, করলেই বলে যুদ্ধাপরাধী বা রাজাকার।

    ২৬
  22. মজিবর বলেছেনঃ

    যে পাকিস্তানীরা বাংগালীদের মুসলমান মনে করেনা, আমাদের মানুষ মনে না করে খুন, নির্যাতন, মা- বোনদের ধর্ষণ ও নির্যাতন করেছে, শত শত কস্ট, ক্ষুধার অভাব থাকুক না কেন তারা যদি প্রকৃত বাংগালী হতো পাকিস্তান এ যেত না। 71 এর পর দেশের প্রয়োজনে আমার জানা মতে পাকিস্তান বড় আয়ের উত্স দেশ নয়যে সেখানে যেতে হবে?
    মানুষ হিসেবে সবার দুক্ষে আমার দু:ক্ষ সমান। যা পাকিস্তানীদের মাঝে নায়।

    ২৮
  23. মিল্টন খন্দকার বলেছেনঃ

    এতোকিছুর পরেও আমার মনে প্রশ্নজাগে পাকিস্থানে বসবাস রত ওইসব বাংগালী যারা কিনা আজো পাকিস্থানের নাগরিকত্ত পাইনি তারা আজোকেন বাংলাদেশ কে ঘিন্না করে

    তাহলে কি বোঝাজাইনা যে তারা বাংলাদেশিদের থেকে অনেক শুখে আছে।

    ২৯

কিছু বলতে চান? লিখুন তবে ...