ক্যাটেগরিঃ শ্রদ্ধাঞ্জলি: আজম খান, সেলুলয়েড

 

গুরু তোমার তিন টাকার ঋণ শোধ করা হলনা।পারলাম না,গুরু ! দাবি রেখ না গুরু,দাবি রেখ না।এই ইহ কালে পারলাম না।গুরু,গুরু গো শুনতে পাচ্ছ কি তোমার ভক্তের আত্ম চিৎকার? দেখতে কি পাচ্ছ আমার বুকের রক্ত ক্ষরণ? গুরু আসি আসি বলে ফিরে এলেনা। আর আসবেনা তুমি,জানি গুরু এই দেশ পেয়েছে একটি স্বাধীনতা।আর তুমি ছিলে তার একজন কাণ্ডারি। গুরু,গুরু গো আজ লাল সবুজ পতাকায় মোড়ানো হোল তোমাকে।জেই পতাকার জন্য যুদ্ধ করলে, সেই পতাকা বুকে জড়িয়ে চলে গেলে সুদূর পানে। গুরু, গুরু গো তোমার অনেক ভক্ত রেখে গেলে।রেখে গেলে তোমার অমর কৃত্তি। আমরা তোমাকে ভুলব না। গুরু যেখানে থাক ভাল থেক। রাতের তারা হয়ে মাঝে মাঝে উকি দিও, আমরা দেখবো। গুরু তোমার জন্য বলতে চাই, “ দূর আকাশের দূর নক্ষত্রের মত, দূরে চলে গেলে তুমি দূরের মানুষ হয়ে” ……………………আবার ও বলছি যেখানে থাকো, ভাল থাকো, ভাল থাকো, ভাল থাকো………………গুরু।

(অনেকে আমার লেখা টি পড়ে “তিন টাকার ঋণ” শব্দ টি বুঝতে পারবেনা। তাই পাঠক গুরু কে নিয়ে আমার পূর্বের একটি লেখা, “ গুরু! তুমি ফিরে এসো!” পড়ার জন্য অনুরোধ জানাই)