ক্যাটেগরিঃ সুরের ভুবন

 

বিজ্ঞানের মৃত্যু ঘটেনি। কিন্তু দর্শন আর শিল্পকলা কি এখন মৃত? এ প্রশ্নের উত্তরে কেউ কেউ—সংখ্যায় তারা নগণ্য হলেও—বলবেন, হ্যাঁ। তারপরও বলা যায়, দর্শন ও শিল্পকলা এখনও বেঁচে আছে, একগাদা ছাইয়ের ভেতর লুকিয়ে থাকা আগুনের মতো করে হলেও। বিজ্ঞানীরা এখন দর্শন চর্চা করছেন। আর শিল্পকলার মধ্যকার একটি ফর্ম, গানের মধ্যেও নতুন আঙ্গিকে আসছে দার্শনিক চিন্তা। এর ভাল উদাহরণ ফার্স্ট এইড কিট এবং মিয়া ডোই টোড। মিয়া একাই গান করেন এবং বিশ্বের বিভিন্ন সঙ্গীত ধারার সম্মিলন ঘটানোর একটা প্রবণতা তার গানের মধ্যে পরিলক্ষিত হয়। ফার্স্ট এইড কিট দুই সুইডিশ সহোদরা বোনের ব্যান্ড, যারা ফোক, ইন্ডি ফোক ধারার গান তৈরি করছেন।

দু’বোনের বয়সের ব্যবধান বছর দুয়েকের মতো; বর্তমানে কমবেশি ২৫-এর কোঠায়। বড়জনের নাম জোয়ান্না সোডারবার্গ (জন্ম: ৩১ অক্টোবর ১৯৯০) ও অন্যজনের নাম ক্লারা সোডারবার্গ (জন্ম: ৮ জানুয়ারি ১৯৯৩)। তবে ছোট বোন ক্লারা প্রধানত লিরিক লিখেন ও প্রধান কণ্ঠদাত্রী। ২০০৭ সালে তারা গান তৈরি করে ইন্টারনেটে প্রকাশ করতে শুরু করেন এবং সুইডেনে সুপরিচিতি পান। ২০০৮ সালে ইউটিউবে ফ্লিট ফক্সেস-এর গান টাইগার মাউন্টেন পিসেন্ট সং-এর কভার প্রকাশ করেন। ফ্লিট ফক্সেস-এর প্রধান শিল্পী রবিন পেকনল্ড তাদের প্রশংসায় তখন রীতিমতো পঞ্চমুখ। সেইসাথে দু’বোন ইন্টারনেটে তাৎপর্যপূর্ণ জনপ্রিয়তা অর্জন করেন। ক্লারা’র কণ্ঠস্বরের সৌকর্য ও স্বাতন্ত্র্য শ্রোতাদের নজর কেড়েছিল।

fak

তবে তাদের গানের কথা সহজবোধ্য নয় মোটেই এবং বিভিন্নভাবে ব্যাখ্যায়ন-সম্ভব। কিন্তু একথা বলা যায়, তারা মানবসমাজের পরিস্থিতি নিয়ে সন্তুষ্ট নন। এ অসন্তোষের কারণ হচ্ছে, চিন্তার ক্ষেত্রে ব্যক্তির পরনির্ভরতা। ধর্মীয় চিন্তা হোক, কি সেকুলার—উভয় ধারার আচার্য্যগণ ব্যক্তির চিন্তাকে নিয়ন্ত্রণ করতে চায়; এবং ব্যক্তি নিজে বিচারশীল না হয়ে একে বা ওকে মেনে নিয়ে চলতে অভ্যস্ত হয়। জীবন সংক্রান্ত গভীর প্রশ্নাবলীর ক্ষেত্রে, তিনি কোনো কর্তৃপক্ষের উত্তরকেই সন্তোষজনক মনে করেন না। আরও একটি লক্ষণীয় বিষয় হচ্ছে, অসন্তুষ্টি সত্ত্বেও ক্লারা সোডারবার্গ দোদুল্যমানও বটে। এক গানে তিনি সাহসী হতে চাইলে, আরেক গানে বলে বসেন, সাহসী আমিও নই, তুমিও নও; আমি যেমন বোকা, বোকা তুমিও। এক গানে তিনি মাকে, ভাইকে, বাবাকে, বোনকে ডাকছেন তাকে ঘরে নেয়ার জন্য; অন্য গানে বলছেন, তিনি ঘরে ফিরবেন না, ইত্যাদি।

ক্লারা’র গানে একটা আকুতি আপনার নজরে পড়তে পারে, আর তা হচ্ছে প্রাকৃতিক পরিবেশকে যথাসম্ভব ফিরিয়ে আনা। এ পরিবেশকে তিনি আখ্যা দিয়েছেন ফরগটেন ল্যান্ড। মোট কথা, ব্যক্তিরা চিন্তার ক্ষেত্রে—তা তাদের ভাবাদর্শ যাই হোক না কেন—আত্মনির্ভরশীল হোক, সৃজনশীল হোক এটাই তার আকাঙ্ক্ষা। জগত ও জীবন সম্বন্ধে একটা উত্তর পেয়ে তার ফর্ম নিয়ে অতিনিশ্চয়তাপ্রসূত ডগম্যাটিক মনোভাবকে তিনি ক্ষতিকর মনে করছেন।

ইতোমধ্যে তারা তিনটে স্টুডিও এলবাম, গোটা তিনেক ইপি এবং তেরটার মতো সিঙ্গেল প্রকাশ করেছেন।

নিচে ৭টি গানের লিংক দেয়া গেল।

১। ড্যান্স টু এনাদার টিউন:

.
২। দি লায়ন’স রোয়ার:

.
৩। এ উইন্ডো ওপেনস:

.
৪। মাই সিলভার লাইনিং:

.
৫। উল্ফ:

.
৬। দি বেল:

.
৭। স্টে গোল্ড

.
n

বিষয়ভিত্তিক বিভাজনসহ ব্লগসূচি