ক্যাটেগরিঃ ব্যক্তিত্ব

 

কমরেড মহাশয়, শতশত ভক্তের অশ্রুস্নাত হয়ে আপনি তো চলে গেলেন।  এখন তো পুঁজিবাদী লাভ-লোকসান হিসাবের পালা- বিপ্লব, মুক্তি, সাম‍্য এসবের নামে কী নামে আপনি কি কি নিলেন, কি দিলেন আর কী-ই বা আমাদের জন‍্য রেখে গেলেন? আপনার যে দাড়ি দেশের জন্য ‘অনেক অর্থ’ বহন করতো, তাও তো সাথে নিয়ে গেলেন।  সুশাসন প্রতিষ্ঠা করে দাড়ি কামানোর কথা দিয়েছিলেন, কিন্তু মরণের আগের দিন পর্যন্ত কিছুই কামাতে পারেননি। আপনি ইতিহাসের কাছ থেকে ‘দায়মুক্তি’ চেয়েছিলেন।  দুঃখিত, গত তেষট্টি বছরের ইতিহাস তা দিতে পারছে না।

1420832283181-cached

কে বলবে যে আপনি কিউবাকে কিছুই দিতে পারেননি! অবশ‍্যই দিয়েছেন- ঘণ্টার পর ঘণ্টা বক্তৃতা দিয়েছেন, সাম‍্যের স্বপ্ন দিয়েছেন, মুক্তির পুরাণ শুনিয়েছেন আর সাতান্ন বছরের স্বৈরতন্ত্র দিয়ে স্বাস্থ‍্যবতী সব যৌনকর্মীকে গ্র্যাজুয়েট করেছেন।

স্বৈরাচারী বাতিস্তার কাছ থেকে কিউবা শাসন ক্ষমতা কেড়ে নিয়ে প্রায় অর্ধশত বছর ধরে আপনি কিউবার প্রধানমন্ত্রী, রাষ্টপতি, দলীয় প্রধানের পদ আগলে রেখেছেন। যদি সুস্থ-সবল থাকতেন তাহলে মৃত‍্যুর আগের দিন পর্যন্ত কখনও কিউবা শাসন ক্ষমতা থেকে সড়ে দাড়াতেন না।  শেষ দিকে যখন শরীরে আর কুলাচ্ছিল না তখন আপন ভাইয়ের সাথে ক্ষমতা ছাড়তে বাধ‍্য হয়েছেন। এ কি আপনার সাম‍্যবাদের স্বপ্ন, না কি রাজতন্ত্রের দুরভিসন্ধি? পাঁচ দশক ধরেও আপনি কিউবার কম‍্যুউনিস্ট পার্টিতে একজন নেতাকে যোগ‍্য করে গড়ে তুলতে পারলেন না? কি করে পারবেন, চে নামের যে কমরেড আপনার হয়ে যুদ্ধ করলো, আপনাকে কিউবার ক্ষমতা দখলে সহায়তা করলো, তাঁকে তো আপনি বলিভিয়াতে নির্বাসন দিয়েছিলেন।  জীবন-মৃত‍্যুর সন্ধিক্ষণে যখন সে আপনার সাহায‍্যের আশায় বুক বেঁধে ছিল তাঁকেও আপনি হতাশ করেছেন।  বেচারা চে’র জন‍্য বড় দুঃখ হয়! ওপারে যদি সে ফিদেলের আশায় বসে থাকে, তবে ফিদেলকে তাঁর কাছেও জবাবদিহি করতে হবে।

এখানেই শেষ নয়।  আপনি আফ্রিকা, দক্ষিণ আমেরিকায় আপনার সাম‍্যবাদের হেরাফেরি করেছেন।  এঙ্গোলা, কঙ্গোর স্বাধীনতা আন্দোলনে মদদ জুগিয়েছেন। স্বাধীনতার পরপরই এঙ্গোলায় ছাব্বিছ বছররের গৃহযুদ্ধ শুরু হয় আর সে সুযোগে দেশটির ক্ষমতা হরণকারী প্রেসিডেন্ট হোসে এদুয়ার্দো সাইত্রিশ বছর পরেও রাষ্ট্রপতির পদ অলঙ্কার করে আছে।  গৃহযুদ্ধের ফলশ্রুতিতে কঙ্গোর প্রেসিডেন্ট হন ম‍্যারিয়েন নগুয়াবি।  একটানা নয় বছর রাষ্ট্রপতি থাকার পরে ১৯৭৭ সালে তাঁকে হত‍্যা করা হলে একই দলের ডেনিস সাসৌ নগুয়েসো এগারো বছর ক্ষমতায় বহাল থাকে। দ্বিতীয় বারের গৃহযুদ্ধর সুযোগ নিয়ে থেকে তিনি শেষ বিশ বছর ধরে ক্ষমতায় আছেন।  দক্ষিণ আমেরিকায় আপনার মতাদর্শের তল্পীবাহক হিসেবে আমরা চিলিতে পিনোশে, ভেনিজুয়েলায় হুগো শ‍্যাভেজ, নিকারাগুয়ায় ড‍্যানয়েল ওর্তেগার মতো শাসকও পেয়েছি।  ধন‍্য আপনার সাম‍্যবাদের টোটকা!

বিশ্বের সবচেয়ে ক্ষমতাধর দেশের মাত্র নব্বই কি.মি. দূরে থেকে ‘বে অব পিগস’, ‘অপারেশন মংগুস’সহ ছয় শতাধিক হত‍্যা চেষ্টা থেকে ভাগ‍্যক্রমে (!) বেঁচে যাওয়া পৃথিবীর একমাত্র মহান মানব আপনি।  এ রেকর্ড খুব সহজে কেউ টপকাতে পারবে না। বারো বছর বয়সে দশ ডলার চেয়ে মার্কিন প্রেসিডেন্ট রুজভেল্টকে লেখা সেই চিঠির কথা আপনার মনে আছে? ঐ চিঠিতে দশ ডলারের বিনিময়ে আপনি তাঁকে কিউবায় একটি লোহার খনির সন্ধান দিতে চেয়েছিলেন।  রুজভেল্ট আপনাকে দশ ডলার না দিলেও কিউবার জনগণকে জুজু দেখিয়ে ঊণপঞ্চাশ বছর ক্ষমতায় টিকে থাকার ব‍্যবস্থা তো করে দিয়েছে।  আর কতো!

কমরেড বাবু, আপনার শাসনামলে গণমাধ‍্যমের কি কোনো স্বাধীনতা ছিল? জনগণ কি অবাধে ইন্টারনেট ব‍্যবহার করতে পারেতা? আপনি কি জানতেন যদি কেউ সরকারের কোনোরূপ সমালোচনা করতো তবে আপনার ঝোড়োবাহিনী তাদেরকে কিভাবে নাজেহাল করতো? এটা নিশ্চিত জানেন যে আপনার সরকার মাঝে মাঝে জাতীয় নিরাপত্তা, জনস্বার্থের নামে লোকজনকে কিউবার বাইরে বের হতে দিতো না।

আশির দশকে অর্থনৈতিক মন্দা চলাকালে সরকার বিরোধী, রাজনৈতিক বন্দীরা যখন বিভিন্ন দূতাবাসে আশ্রয়ের চেষ্টা করছিল তখন তাদের উপর আপনার পেটোয়া বাহিনীদের অত‍্যাচারের কথা আপনার নিশ্চয়ই মনে আছে? সেসব হত‍্যা-গুমের কথা মনে পড়লে আপনার গা শিরশির করে ওঠতো না?  সে সময়ে আপনার এক লক্ষ পঁচিশ হাজার লোক দুষ্টু প্রতিবেশীর দেশে পাড়ি জমিয়ে ছিল।  ইতিহাস একে ‘ম‍্যারিয়েল বোটলিফ্ট’ নামে মনে রেখেছে।  এরাই কিন্তু  সেইসব কিউবান-আমেরিকান যারা এখন আপনার মৃত‍্যুশোক সানন্দে উদযাপন করছে।

আপনি এক মহানুভব! কিউবায় মার্কিন কনসেনট্রেশন ক‍্যাম্প ‘গুয়ান্তোনামো বে’র ভাড়া হিসেবে পুঁজিবাদী বেনিয়ার কোনো ডলার ছুঁয়েও দেখেননি।  অথচ, আপনার অস্বাস্থ‍্যকর জেলখানাগুলো কয়েদীদের ভীড়ে উপচ পড়ছে, জ্বরা-অপুষ্টি দানা বেঁধেছে, কয়েদীদেরকে জোর করে দিনে রোজ ১২ ঘন্টা করে খাটানো হয়- এসব কি কখনও আপনার মনকে ব‍্যথিত করেনি?

আপনার আরেক বিশেষ এক বুদ্ধিমত্তার প্রশংসা না করলেই নয়।  মানবাধিকার সংগঠনকে আপনি কোনোদিনই পাত্তা দেননি।  উত্তর কোরিয়া, চীন, ইরান এরাও এদেরকে পাত্তা দেয় না।  যাই হোক, বিভিন্ন মাধ‍্যমে গৃহীত তথ‍্যচিত্রে কিউবাতে সাংবাদিক, গণমাধ‍্যমকর্মী, ব্লগার, ভিন্নমতাদর্শের যে সংখ‍্যক লোকজনকে হয়রানি, অত‍্যাচার করা হয়েছে তা রাজনৈতিকভাবে ব‍্যাখ‍্যেয় হলেও মানবিক দৃষ্টকোণ হতে কখনোই গ্রহণযোগ‍্য হতে পারে না।

আঠাশ বছর পড়ে বার্লিন দেয়াল ভাঙা হয়েছিল, ক‍্যাস্ট্রো দেয়াল পড়লো সাতান্ন বছরে। এ বছরেই আপনার আপনার ভাইয়ের সাথে দুষ্টু প্রতিবেশীর সখ‍্য হয়েছে।  জানি, অসুস্থতার জন‍্য ওবামার সাথে আপনার দেখা হয়নি, নাকি তখনও গোস‍্যা করে ছিলেন?

কমরেড বাবু, আজ যারা আপনার মৃত‍্যুতে শোক করছে তাদের শোকের মাতমে আহ্লাদিত হবেন না। এরা নিজেদের বাক-স্বাধীনতা, মতপ্রকাশের স্বাধীনতা হরণ হলে সরকারের সমালোচনায় মেতে ওঠে। অসিহষ্ণু সরকারের দমননীতিতে, পেটোয়া বাহিনীর কর্মকাণ্ডে এরা স্বৈরশাসনের নিপাত করে; কিন্তু, আপনার মতো ব‍্যক্তি স্বাধীনতা হরণকারী স্বৈরশাসকের জন‍্য অশ্রুপাত করে।  এরা বুড়ো বটের মতো,  অনেক শেকড় থাকে কিন্তু মূলটা থাকে না।

======০======