মাকড়শা ও শিশিরের অনিন্দ্য শিল্পিতা!

২০১৫ সালের অক্টোবরে মাকড়শা ও শিশিরের যুগলবন্দিতার শিল্প সৌন্দর্য নিয়ে নিপুণ জালের বুনন কারিগর মাকড়শা! শিরোনামে একটি আর্টিকেল লিখেছিলাম। তেমন মাকড়শা জাল ও শিশিরিকা এবার ডিসেম্বরেও আমাকে যারপরনাই মুগ্ধ করল। ভূমি’র গহ্বরের আলো-আঁধারিতে আপন খেয়ালে জাল বুনে চলে মাকড়শা। সবুজ পত্রপল্লব তাকে চারপাশে সাজিয়ে তোলে। আর সাত সকালে শিশির এসে সেই নিপুণ জালে এঁকে দেয়… Read more »

চোখের আলোয় দেখেছিলেম চোখের বাহিরে

আমাদের এই বহুবর্ণিল নয়নাভিরাম চোখের শিশু মডেলরা থাকেন গাজীপুর জেলার কালিয়াকৈর উপজেলার বাংগুরী গ্রামে। ছবিটি ১৯ ডিসেম্বর ২০১৬ তারিখে তোলা। একদিন এমন চোখের চাহনি দেখেই মুগ্ধকর কেউ কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের সুরে গেয়ে উঠবেন- চোখের আলোয় দেখেছিলেম চোখের বাহিরে। অন্তরে আজ দেখব, যখন আলোক নাহি রে॥ কবি কাজী নজরুল ইসলাম গান গেয়ে যাবেন অলখে- আমার নয়নে… Read more »

ট্যাগঃ:

ক্যাটাগরীঃ ভ্রমণ

মাকড়শার নিপুণ জালে শিশিরের আলপনা

  বর্ষার জল সরে যাওয়া এবড়ো-থেবড়ো ভূমি’র গর্তে জাল বুনে শিল্পী মাকড়শা। আর সেই নিপুণ জালে সুশোভন আলপনা আঁকে শিশিরের প্রকৃতি। ছবিটি গাজীপুরের বাংগুরী গ্রাম থেকে ১৯ ডিসেম্বর ২০১৬ তারিখে তোলা। ফারদিন ফেরদৌস লেখক ও সাংবাদিক

slide

বান্দরবানের সাঙ্গু নদী

ছবিটি বান্দরবান শহরের নতুন ব্রিজ থেকে ০২ ডিসেম্বর ২০১৬ তারিখে তোলা। ফারদিন ফেরদৌস লেখক ও সাংবাদিক

slide

সমতায় গড়ি বিশ্ব-২

শীতের সকালে শিশির ভেজা মাঠে ফসলের পরিচর্যা করছেন এই ভূমির বড় আপনজন কৃষাণ-কৃষাণী। ছবিটি ১১ ডিসেম্বর ২০১৬ তারিখে গাজীপুরের বাংগুরী গ্রাম থেকে তোলা। ফারদিন ফেরদৌসঃ লেখক ও সাংবাদিক

slide

সমতায় গড়ি বিশ্ব-১

যা কিছু মহান সৃষ্টি চিরকল্যাণকর, অর্ধেক তার করিয়াছে নারী, অর্ধেক তার নর! ছবিটি ১১ ডিসেম্বর ২০১৬ তারিখে গাজীপুর জেলার বাংগুরী গ্রাম তোলা। ফারদিন ফেরদৌসঃ লেখক ও সাংবাদিক

slide

দুর্বা ঘাসের শিশিরস্নান

ছবিটি ১১ ডিসেম্বর ২০১৬ তারিখে গাজীপুরের বাংগুরী গ্রাম থেকে তোলা। ফারদিন ফেরদৌসঃ লেখক ও সাংবাদিক

slide

নীলগিরির আকাশ নীলে পাহাড় সবুজের মিতালী

ছবিটি বান্দরবানের ‘নীলগিরি’ থেকে তোলা। ফারদিন ফেরদৌস ০৩ ডিসেম্বর ২০১৬

slide

প্রকৃতি বন্দনা…

ছবিটি বান্দরবানের ‘নীলাচল’ থেকে তোলা। ফারদিন ফেরদৌস ০২ ডিসেম্বর ২০১৬!

slide

তোমার পতাকা যারে দাও

ছবিটি কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতের কলাতলী পয়েন্ট থেকে তোলা। ফারদিন ফেরদৌস ০৪ ডিসেম্বর ২০১৬!

slide