ঝিনাইদহের বর্তমান জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও স্থানীয় ‘অপরাজনীতি’

এক. ঝিনাইদহ জেলা পরিষদ নির্বাচনে নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান জনাব কনক কান্তি দাস। এর আগে তিনি ঝিনাইদহ সদর উপজেলার চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছিলেন। তরুণ এই রাজনৈতিক ধর্ম-বর্ণ-গোত্র নির্বিশেষে এক অসাধারণ মানুষ। তিনি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ ঝিনাইদহ জেলা শাখার যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক, বাংলাদেশ পূজা উজ্জাপন কমিটির সহ-সভাপতি ও বাংলাদেশ পূজা উজ্জাপন কমিটির ঝিনাইদহ জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক এবং বাংলাদেশ… Read more »

ছোট্ট একটি গল্প!

ঝিনাইদহের ছোট্ট একটি এলাকা অামার প্রিয় গান্না। এখানে আমিই শুধু জন্মায়নি আমার বাবা মৃত ওসমান আলীও এখানেই জন্মেছিল। জন্মানোর পরে বাবাকে আওয়ামীলীগই করতে দেখেছি। বাবার জন্য সারা পরিবার এবং গ্রামের সমাজের সবাই আওয়ামীলীগ করতো। ২০০৩ সালে বাবা খুন হল। এই সময় বিএনপি দলীয় চাপে মামলা তুলে নিতে  হল। বাবা ৩ বার ও মা ২ বার ইউপি সদস্য নির্বাচিত হয়। অনেক সময় গেল আমি ইউনিভার্সিটিতে ভর্তি হলাম।ছাত্রলীগের রাজনীতি করলাম  কয়েকটি বছর। বাবার মত এলাকার মানুষের সুখ দুঃখে সাথে থাকতাম। ২০১৪ সালের প্রথমেই সাংবাদিকতা শুরু করলাম এলাকার একটি ছোট্ট পত্রিকায়। সাংবাদিকতা মামার পেশা ছিল না একটি আন্দোলন ও সংগ্রাম… Read more »

আমি একজন সাংবাদিক, কিন্তু সাংবাদিকতা আমার পেশা নয়!

ছোট্ট একটি মফস্বল শহরে বড় হয়েছি আমি। এটা ঝিনাইদহ সদর থানার একটি বড় বাজার। ভালো কোন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে লেখাপড়া করার সুযোগ পায়নি। ২০০৭ সালে গ্রামের পার্শ্বস্থ টিআইসি মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে এসএসসি, গান্না বাজারে অবস্থিত আলহাজ্ব মশিউর রহমান কলেজ থেকে ২০০৯ সালে এইচএসসি ও ঝিনাইদহ সরকারি কে, সি কলেজ থেকে ২০১৩ সালে বাংলায় স্নাতক হয়েছি। এর… Read more »

করলে দোষ নাই, বললে কেন দোষ!

প্রতিক দিয়ে নির্বাচনের ফলশ্রুতি খুব ভালো নয় ইউপি নাগরিকদের। আমি আমার এলাকার বাস্তবতা থেকে এটায় অনুধাবন করলাম। আমার ইউনিয়ন ঝিনাইদহ জেলার সদর উপজেলার গান্না ইউনিয়ন। এখানে আওয়ামী লীগের সভাপতি, সাধারন সম্পাদক, সাংগঠনিক সম্পাদক, যুবলীগের সভাপতিকে ছাপিয়ে নৌকা প্রতিক পেল মাত্র তিন বছর আগে আওয়ামী লীগে যোগ দেওয়া একজন ব্যবসায়ী। আমি একজন ক্ষুদ্র রাজনৈতিক কর্মি হিসাবে… Read more »