হেরে যাওয়া চলবে না

/

আগে আমরা প্রতিদিন শুনতাম প্রতিমুহুর্তে সন্তান জন্ম নিচ্ছে, সন্তান জন্ম নেবার হার ছিলো প্রায় তিন চার। সেই সন্তান জন্মের হারকে কমানোর জন্য সারা পৃথিবী বাংলাদেশকে সাহায্য দিতে শুরু করেছিলো সেই ষাটের দশকে। নানা রকম বিজ্ঞাপন, ঔষধ, কনডম, ইঞ্জেকশন, অপারেশন পদ্ধতি আর বিভিন্ন লোকবল নিয়োগ দিয়ে এই সন্তান উৎপাদন হার কিছুটা হলেও কমিয়ে আনা হয়েছে। সেই সময়… Read more »

কোনো অবস্থাতেই ছাত্র সংসদ নির্বাচন নয়!

/

কোন অবস্থাতেই ডাকসু নির্বাচন দেবেন না। মনে রাখবেন আজ ডাকসু নির্বাচন দিলেই কাল রাকসু। তার পরদিন সকল পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্র সংসদ নির্বাচন দিতে হবে। আর এক বার যদি সেটা হয়ে যায় তাহলে আজ যারা দেশে রাজ করছেন কাল তাদের টিকিটিও খুঁজে পাওয়া যাবে না। যেচে বিপদ কেন ডেকে আনবেন? যে দেশের রাজনীতি একজন রিকশাচালকের ছেলেকে… Read more »

ছাত্র রাজনীতি থেকে দেশ আজ কী পাচ্ছে?

/

ছাত্র রাজনীতির নামের সাথে যে জিনিসগুলো আমাদের চোখের সামনে চলে আসে – গুলিসহ অমুক ছাত্রনেতা আটক, হল দখল নিয়ে অমুকদল অমুকলীগ মারামারি, দুপক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ, ধর্ষন মামলা, রগকাটা ইত্যাদি। এভাবেই চলে আসছে দীর্ঘ ৩০-৪০ বছর যাবত। একজন ছাত্রের প্রধান কাজ কী? প্রথমত নিশ্চয়ই পড়াশোনা করা। এখন ভাবতে পারেন তাহলে রাজনীতি কে করবে? রাজনীতি ঐ ছাত্রই… Read more »

বিএনপির জন্ম এবং পিকিংপন্থী ’বামাতি’

/

১৯৭৫ থেকে ২০০৯ সময়টা বাংলাদেশের জন্য যে সকল দিক থেকেই একটা কালো অধ্যায় ছিল তার প্রমাণ অর্থনীতি, রাজনীতি, সমাজনীতি, দূর্নীতি – সকল ক্ষেত্রেই। এই সময়ে বাংলাদেশের উপর আধিপত্য বিস্তার করে লুটতরাজ করেছে আমেরিকা আর তাদের হাতে তৈরী দক্ষিণ এশিয়ার জঙ্গি, পাকিস্তান। আমেরিকা, পাকিস্তান তাদের আধিপত্য বিস্তার করার কাছে লাগিয়েছে সামরিক শাসকদের। এ কাজ তারা চিলি,… Read more »

প্রধানমন্ত্রীর সফরসঙ্গীনামা

/

প্রধানমন্ত্রীর সফর সঙ্গীনামা সাধারণভাবে বেশ ভারী । ২০১৫ তে প্রধানমন্ত্রীর জাতিসংঘ অধিবেশন সফরে সঙ্গী ছিলেন ২২৭ জন । ১১৯ জন ছিলেন ব্যাবসায়ী যারা নিজেদের খরচেই ঢাকা টু নিউ ইয়র্ক করেছেন । বাকিরা সরকারি ভাবে । যেহেতু প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গী সবাই সুতারং সবার সাতকাহন স্বাভাবিকভাবেই স্বচ্ছ । এটাই ধরে নেয়া যায় । ১১৯ জন ব্যাবসায়ী আসলে কি… Read more »

মোস্তাকরা ফিরে আসে বার বার!

/

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের পিতা মারা যাওয়ার পর সবচেয়ে বেশী কেঁদেছিলেন মোস্তাকরা।আর বঙ্গবন্ধু হত্যার পর সেই মোস্তাকই ক্ষমতা দখলের জন্য বঙ্গবন্ধুর রক্তের উপর দিয়ে হেঁটে ক্ষমতায় বসেছিলেন।সেই মোস্তাকরা আজ ও বাংলার মাটিতে রয়ে গেছে।একই কায়দায়,’হাইব্রিড কাউয়া’। ছবি অংকন প্রতিযোগিতায় পঞ্চম শ্রেণীর শিক্ষার্থীর আঁকা বঙ্গবন্ধুর ছবি “বিকৃত” অভিযোগে ইউএনওকে গ্রেফতার করা হয়েছে।পুলিশ তাকে টেনে নিয়ে যাচ্ছে… Read more »

রাজনৈতিক অঙ্গন এবং সুশীল সমাজের সাফাত-পাভেল

/

আমাদের বনানী গুলশান উত্তরায় এখন অনেক কিছুই মধ্যরাতে হয়! ধনীর জলজ দুলালরা মধ্যরাত হলেই জন্মদিনের উৎসবের নেশায় জেগে ওঠেন! শিরায় শিরায় স্পেশাল দাওয়াতের কলের ক্রিম মাখানো পরিবার-মুক্ত তরুণীরা মধ্যরাতের দাওয়াতেই স্বচ্ছন্দ! টকশো-ওয়ালারাও ভালবাসে মধ্যরাত! ডানদিকে আগ্রাসী মানসিকতায় ঝুঁকে থাকা বুদ্ধি-বলাৎকাররা চোখের ঔষধ কিনতে রাস্তায় নামে মধ্যরাতের পরে! রব, বদ-বদি, মান্নারা তাই মধ্যরাতেই বসিয়েছে বিকেলের চা-চক্র!… Read more »

আমাদের চেয়ারম্যান

/

আলহাজ্ব ফিরোজুর রহমান ওলিও। আমাদের ব্রাক্ষণবাড়িয়া জেলার ১১ নং সুলতানপুর ইউনিয়নের জনগণের ভোটে পাঁচ বারের নির্বাচিত সফল চেয়ারম্যান। লায়ন্স ক্লাবের সাবেক জেলা গভর্নর, স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংক লিমিটেড এর উদ্যোক্তা পরিচালক, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার রাধিকাস্থ লায়ন ফিরোজুর রহমান রেসিডেন্সিয়াল একাডেমির প্রতিষ্ঠাতা। আজ এই মহান ব্যক্তির কিছু ব্যক্তিগত মানব সেবার কথা উল্লেখ না করলে ইউনিয়নবাসী হিসেবে আমার লজ্জিত হতে হবে… Read more »

সহিংস রাজনীতি ও আমাদের গ্রাম

/

শহরকেন্দ্রিক সহিংস রাজনীতিগত সমস্যাগুলা যেনো আজকাল গ্রামে ছড়িয়ে পড়েছে ব্যাপক আকারে! আগে দেখা যেতো বিভিন্ন বড় বড় শহরে রাজনৈতিক মতাদর্শ ভাগাভাগি নিয়ে খুনাখুনি হতে। আজ সেখান থেকে এই খুনাখুনির মতাদর্শনামক রাজনীতি গ্রামের তৃর্ণমূল পর্যায়ে পৌছেগেছে। যাঁতে করে এর প্রভাব পড়েছে গ্রামীণ জনগোষ্ঠীর উপর। এতে প্রভাবিত হয়ে দংশ হচ্ছে গ্রামের সরল সিধে যুবকেরা। আগে আমরা আমাদের… Read more »

ফরহাদ মজহার এবং কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন

/

ফরহাদ মজহার কি সেরকম কেউ যাঁর “হলে ভালো হয়” টাইপের সামান্য প্রয়োজনীয় কোনো ওষুধ কেনার জন্য ভোর পাঁচটায় নিজেই বের হতে হয়? এটা কি বিশ্বাসযোগ্য? বাদ দিলাম ফরহাদ মজাহারের মত একজন বয়স্ক বিখ্যাত মানুষের কথা, আপনার আমার মত অখ্যাত কোনো লোকও কি ভোর পাঁচটায় “অপ্রয়োজনীয়” এরকম ওষুধ কিনতে বাইরে বের হবে? এত ভোরে তো আমরা… Read more »