মুছে যাক গ্লানি, ঘুচে যাক জরা

/

সংক্রান্তি আর বরণ এই দুটোই বাঙালির জীবনের প্রতিটি ক্ষণের সাথে প্রতিটি মাসের সাথে মিশে আছে। আজকের এক দৈনিক পত্রিকায় লেখক পাভেল পার্থ খুব সুন্দর ভাবে উপস্থাপন করেছেন বাঙ্গালির মাস বরন আর বিদায়ের কথকতা। যেহেতু বাংলা সনের চৈত্র মাস বছরের শেষ মাস তাই চৈত্র সংক্রান্তি বেশ ঘটা করেই পালন করে এসেছে গ্রাম বাংলার সকল জনপদ। সেই… Read more »

বাংলা নববর্ষের ইতিহাস নিয়ে আমার কিছু কথা

/

প্রারম্ভিকতাঃ ইতিহাস এবং ঐতিহ্যের ধারাবাহিকতায় মানুষ কিছু আনন্দ এবং স্মৃতিকে আপন করে নেয়। আর এ আপন করে নেওয়ার বিভিন্ন স্তর এবং সময়ের পথ ধরে সংস্কৃতির বিকাশ। প্রতিটি জাতি ও সভ্যতা সংস্কৃতির মাধ্যমে খুঁজে পায় তার নিজস্ব অনুভূতি এবং স্বকীয় বৈশিষ্ট্য। বাংলাদেশী ও বাঙালী জাতি হিসেবে, ইতিহাস এবং ঐতিহ্যের ধারাবাহিকতায় আমাদের এমন একটি উঠসব হল পহেলা… Read more »

পান্তা ইলিশ কেন? সেদ্ধ কচু খান…

/

শতভাগ বাঙালিয়ানা দেখাতে পহেলা বৈশাখের রকমারি আয়োজনের কমতি থাকেনা বাংলাদেশের আনাচে কানাচে। শৈশবে বর্ষবরন সীমাবদ্ধ ছিল ১০ টাকার হাজার পাওয়ারী অথবা ৫শ পাওয়ারী নামের রঙের মধ্যে। গ্রামে গ্রামে নারী পুরুষ প্রায় সবাই একে অপরকে রঙ মাখাতে ব্যাস্ত থাকতো। এর পাশাপাশি নারী, পুরুষ মিলে নদী, পুকুর বা জলাশয়ে মাছ ধরতে যেন। দু-চার গ্রাম মিলে আয়োজন হতো… Read more »

slide

চৈত্রশেষের বাজনা শেষে পহেলা বৈশাখের ধুমতানানা

/

চৈত্র শেষের দিন মানেই নতুন বছর এলো দুয়ারে আবারও। এবঙ নতুন ভোরের সূর্যালোক জানান দেয় এসেছে বৈশাখ আবারও। পহেলা বৈশাখ মানেই মেলা। সে এক প্রাণের মেলার গন্ধে বাতাস জুড়ে আবহমান বাংলার প্রাচীন ডাক। কবিগুরুর – “এসো হে বৈশাখ এসো, এসো”-র ডাক। বতসরের আবর্জনা, বেদনা দূর হবার, ধুয়ে দেবার মনোবাঞ্ছা সবার প্রাণে জাগিয়ে দিয়ে যাবার বাঙালির… Read more »

মুক্তাগাছায় বর্ষবরণে মুখোশ ব্যবসা!

/

ময়মনসিংহের মুক্তাগাছায় বর্ষবরণ উপলক্ষে তরুণদের ভিন্ন ধর্মী উন্মাদনা লক্ষ্য করা গেছে। বর্ষবরণে ব্যবসায়িক লাভের আশায় একদল তরুণ শুরু করেছে মুখোশের ব্যবসা। কাগজ, আঠা, রং এর সমন্বয়ে হস্ত শিল্পের এক চিত্রকর্ম ফুটিয়ে তোলা হয়েছে ঐ মুখোশে। প্রতিবছর বর্ষবরণ উপলক্ষ্যে পালা-পার্বনের অংশ হিসাবে র‌্যালি, পান্তা উৎসব, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের বিভিন্ন কর্মসূচী হাতে নেয়া হয়। র‌্যালিতে ভিন্ন মাত্রা আনতে… Read more »

পহেলা বৈশাখ উদযাপন বিতর্ক

/

পহেলা বৈশাখ উদযাপন আসলে প্রতি বছরই বিপরীতমূখী দু’টি মতভেদ প্রকট হয়ে ওঠে- প্রগতিশীল ও রক্ষণশীল মতবাদ। প্রগতিশীলরা মূলত উৎসব উদযাপনে বিশ্বাসী। তারা এ বছর রমনায় গিয়ে পান্তা-ইলিশ খাবে, আগামি বছরে বোটানিক্যাল গার্ডেনে গিয়ে যদি বিরিয়ানি পায় তাও খাবে; যাওয়া-খাওয়ার আনন্দটাই এদের কাছে মূখ্য। এরা সংস্কৃতিকে বহন করে, ধারণ করে না। রক্ষণশীল মতবাদের আবার দুটি ধারা… Read more »

সম্রাট আকবরের খাজনা আইন আর ২০১৫ এর ১৫০ টাকার ইলিশপান্তা প্ল্যাটার

/

সেই ১৫৫৬ সালে সম্রাট আকবর খাজনা আদায়ের সুবিদার্থে আইন করে পহেলা বৈশাখের আয়োজন করে। সেই থেকে প্রজাকুল খাজনার ভয়ে জান দিয়ে কামলা খেটে খাজনা পরিশোধ করে বৈশাখের প্রথম দিনে পরিবারসহ নতুন জামা কাপড় পরে প্রতিবেশীদের বাড়ি বাড়ি বেড়াতো আর ভাল ভাল খাবার রান্নাবাড়া করতো। ওই উতসবে অনেকেরই দীর্ঘনিশ্বাস চাপা থাকতো। যাইহোক, কালের বিবর্তনে ওই প্রথা… Read more »

বাংলা সনের প্রচলন যেভাবে শুরু

/

                        ১৫৮৪ সালে মুঘল সম্রাট আকবরের সময় সরকারীভাবে চালু করা হয় বাংলা ক্যালেন্ডার যা বাংলা সাল নামে পরিচিত। এটা প্রথমে তারিখ-এ-এলাহি নামে পরিচিত ছিল এবং ১৫৮৪ সালের ১১ মার্চ এই প্রথা চালু করা হয়। যদিও এটা আকবর-এর রাজত্বের ২৯ বছর চালু করা হয় তবুও… Read more »

বৈশাখ ও আমাদের চেতনা

/

বাংলা বছরের প্রথম মাস হলো বৈশাখ। পয়লা বৈশাখের প্রথম দিন মানে বাংলা নববর্ষ বাঙালির জন্য খুবই আনন্দের ও উৎসব মুখোর একটি দিন। এই দিন বাঙালিরা চায় নিজেদের ঐতিহ্যপূর্ন বিভিন্ন আচার অনুষ্ঠানের আয়োজন করতে। ব্যবসায়ীরা ঐ দিন হালখাতা অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। হালখাতা মানে পুরাতন বছরের হিসাব শেষ করে নতুন বছরের হিসাব শুরু করা। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো ঐ… Read more »

ঐতিহ্য, উৎসব ও আবহমান বাঙালি সংস্কৃতি

/

সংস্কৃতি কোন জাতির সামগ্রিক পরিচয়।  কোন জাতি বা জনগোষ্ঠীর লোকজন যা করেন, যেভাবে করেন; তারা যা দেখেন, যেভাবে দেখেন; যখন দেখেন তা যে মাধ্যমে বা যে আঙ্গিকে দেখেন; সেই জাতির মানুষ যা চিন্তা করেন এবং যেভাবে চিন্তা করেন; যাদের জন্য তারা চিন্তা করেন; কোন জাতির সদস্যরা যা পরেন, যেভাবে পরেন, যখন পরেন, যখন পরান ইত্যাদি… Read more »