ক্যাটেগরিঃ মুক্তমঞ্চ

 

মানুষের ঘরে মানুষ হিসাবে জন্মগ্রহণ করার পরেও একজন মানুষকে প্রকৃত মানুষ হওয়ার জন্য নিরন্তর চেষ্টা ও সাধনা করতে হয়। কথায় আছে, পশুপাখী সহজেই পশুপাখী, তরুলতা সহজেই তরুলতা, মানুষ প্রাণপন চেষ্টা তবেই মানুষ। তাই মানুষের ঘরে জন্ম নিলেই একজন মানুষ মানুষ হয় না। তাকে মানুষ হওয়ার জন্য প্রকৃত বিদ্যা অর্জন করতে হয়, সাধনা করতে হয়, চেষ্টা করতে হয়।

আর এই বিদ্যা অর্জনের প্রাথমিক ধাপ শুরু হয় পরিবার থেকে, সমাজ থেকে। যে সমাজ বা যে পরিবারে সে বসবাস করে, বেড়ে উঠে, সে সমাজ বা পরিবার থেকে শুরু হয় তার মানুষ হওয়ার সূচনা। তার বাবা-মা ই তার শিক্ষক। সমাজ বা পরিবারে থেকেই একজন মানুষ নৈতিক শিক্ষা পেয়ে থাকে। তারপর সে স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়ে একটি সিলেবাস নির্ভর বিদ্যা অর্জন করে জীবনে প্রতিষ্ঠিত হওয়ার জন্য। কিন্তু সমাজ বা পরিবার থেকে সুশিক্ষা না পেলে জীবনটাই বৃথা। এক্ষেত্রে ধর্মীয় শিক্ষা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। ধর্মীয় শিক্ষা ছাড়া কোন শিক্ষা পূর্নতা পায় না। ধর্মীয় শিক্ষা, নৈতিক শিক্ষা ছাড়া একজন মানুষ প্রকৃত মানুষ হতে পারে না। একদা কবিগুরু আক্ষেপ করে বলেছেন-

“সাত কোটি সন্তানের হে মুগ্ধ জননী
রেখেছো বাঙ্গালী করে মানুষ করনি।”

তাই প্রকৃত মানুষ হতে হলে ধর্মীয় ও নৈতিক শিক্ষার পাশাপাশি যুগোপযোগী, আধুনিক ও প্রযুক্তি নির্ভর শিক্ষা অর্জন করতে হবে। দেশের জন্য বোঝা না হয়ে সম্পদে পরিণত হতে হবে।