ক্যাটেগরিঃ অভিজিৎ হত্যাকাণ্ড - ব্লগ সংকলন, আইন-শৃংখলা

 
f49b5ef9-3b4a-40b3-8adf-6e664a79fb51-620x426

ব্লগার মানেই কি কোন বিপদ, গোলা বারুদ নাকি ধ্বংসাত্মক কোন কিছু? তাদের চিন্তা চেতনা মননশীলতা ব্লগে যখন প্রকাশ করে বা লিখে তখন কি ধ্বংসাত্মক কোন কিছু থাকে সেখানে? ব্লগার শব্দটির সাথে এত শত্রুতা কেন? আসলে মানুষের মাঝে যে স্বত্বা থাকে ব্লগারদের মাঝে সেই স্বত্বাটি জীবন্ত ও জাগ্রত । মানবতার উল্লাসের ধারা মানবতার চিন্তা চেতনা সর্বদা সবাইকে জানান দেই জাগ্রত করে তার লেখনীতে চলায় বলায চিন্তা আর মেধা মননে । সে তো কাউকে তিরস্কার বা নিন্দা করেনা শুধুই মনের মাধুরী দিয়ে নিজের মনের ভাবনাগুলো অন্যের মাঝে প্রকাশ করে সৃষ্টির এই সুন্দর ধরণীকে আরো সুন্দর করার জন্য, আরো বৈচিত্র্যতা আনার জন্য , মানুষের মাঝে অন্ধকার অহংকার রয়েছে হিংসা বিদ্বেষ বসবাস করে তা ধ্বংস করার জন্য বা তা বিলীন করার জন্যই তো প্রানান্তর প্রচেষ্টা থাকে তবে এত শত্রু কেন তার?

প্রতি বছর এ সময়ে এ দিনগুলিতে ব্লগারদের রক্তে বাংলার মাটি প্লাবিত হয় — কেন? এ অবস্থার কি শেষ হবে না? এর দায়ভার কার উপর অর্পিত? সব জানার পরও এর কূলকিনারা যেন আবারও খোঁজে পাবেনা এমনই মনে হয় আগে যেমন হয়েছে । কিছুদিন হৈ-হুল্লোর তারপর জীবনের কঠিন বাস্তবতার কাছে শূন্যে মিলিয়ে যাবে ব্লগারদের রক্তের কান্না রক্তের বেদনা কেউ তখন শুনবেনা দেখবেনা আর চিন্তাও করবে না ব্লগারদের রক্ত নিয়ে ।

তবে এই ভেবে শান্তি অনুভব করি যে ব্লগারদের হাতের কালি তাদের চিন্তা চেতনা অন্ধকারাচ্ছন্ন পশুসম মনুষ্যত্বদের জন্য একটি বিরাট পেট্রোল বোমা যার কারণে সারা বছর পরিকল্পনা করে সজ্জিত হয় কিভাবে ব্লগারদের আক্রমণ করে রক্তাক্ত করে নিজেদের পথ প্রশস্ত করতে পারবে । কিন্তু মনে রাখতে হবে মানবতার জয় চিরদিনের — রক্ত শুকিয়ে গেলেও এর জয়যাত্রা থেমে থাকবেনা থেমে যাবেনা আরো শতগুণ হাজারগুন শক্তি হয়ে ফিরে আসবে মানবতার শত্রুদের কাছে তারা আর মাথাচাড়া দিয়ে আর কোনদিন উঠতে পারবেনা । সেই দিনের অপেক্ষায় —- শত সহস্র অভিজিৎ ফিরে আসবে বার বার।