ক্যাটেগরিঃ আইন-শৃংখলা

 

গীতিকার ও সুরকার আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুলের ভাই আহমেদ মিরাজ গত শনিবার আনুমানিক রাত একটায় খুন হয়েছেন বলে জানা গিয়েছিল। খিলক্ষেত কুড়িল ফ্লাই ওভারের পাশে তার লাশটি পড়ে থাকতে দেখা যায় । পুলিশ তাৎক্ষনিক ভাবে লাশের গায়ে কোন আঘাতের চিহ্ন ছিল না বলে দাবি করেছিল ।

লাশের অটোপসি বা ময়না তদন্ত সম্পন্ন হয়েছিল পরের দিন । খুনের মোটিভ নিয়ে সর্বদাই আঁচ অনুমান হচ্ছিল । ময়না তদন্তের পুর্নাঙ্গ রিপোর্ট পত্রিকায় এসেছে সোমবার দুপুরের দিকে। যার তত্ত্বাবধানে ময়না তদন্ত সম্পন্ন হয়েছিল সেই ফরেনসিক চিকিৎসক সোহেল মাহমুদ জানালেন শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে, নাকের হাড় ভেঙ্গে গিয়েছিল , মাথার পেছনে এবং বুকের ভেতরে জমাট রক্ত পাওয়া গিয়েছিল । এছাড়া পাকস্থলিতে অর্ধপাচ্য খাবারও পাওয়া গিয়েছিল । আরও বলা হয়েছে মুখ চাপা দিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছিল ।

যাই হউক মুখের ফেনা গড়িয়ে বের হওয়া থেকে এ রকম একটা হত্যাকাণ্ড পুলিশ সহ কমবেশি সবাই অনুমান করেছিলেন । কিন্তু সবার অনুমানকে এবং ফরেনসিক চিকিৎসকের পর্জবেক্ষনকে ফালতু বানিয়ে দিয়ে আমার দেশ তার হলুদ ,পুঁতিগন্ধময় সাংবাদিকতাকে বরাবরের মত আবারো সামনে আনল ।

এত সব চোখে পড়ার মত পর্জবেক্ষন কে পাশ কাটিয়ে আমার দেশের (পত্রিকা ) হলুদ চোখে যৌনাঙ্গে বীর্জ পাওয়ার ব্যাপারটি ধরা পড়ল । যেটা অস্বাভাবিক কোন ঘটনা নয় । যে কোন ডাক্তার মাত্রই জানেন যখন শ্বাস রোধ করা হয় তখন শরীরের বিভিন্ন অঙ্গের মধ্যে কনজেশন হয়ে প্রেসার বেড়ে যায় । বিশেষ করে ফাঁসির ক্ষেত্রে মল থেকে শুরু করে সিমেন (বীর্য) পর্যন্ত বেরিয়ে আসে । এ ক্ষেত্রেও তাই হয়েছে ।

কিন্তু মাহমুদীয় সাংবাদিকরা পুরুষাঙ্গে বীর্য পেয়েছে (পুলিশের সুরত হাল রিপোর্টে ) জেনে মহা উৎসাহে একে নারী ঘটিত ব্যাপার বলে প্রচার করেছেন । আমার এক পরিচিত জনের মুঠো ফোন বার্তায় আমার দেশের খবরটি জেনেছিলাম । এ খবর দেখে কেউ কেউ ধরেই নিচ্ছেন সেক্স করে বের হতে গিয়ে রোষানলে পড়ে মারা গিয়েছেন । এ ক্ষেত্রে মাহমুদীয় ক্রিমিনালরাই চিরায়ত নিয়মে ক্রিমিনালাইজেশন করেছেন । আমার দেশ লিংক

সুরকার ভাইটির সৎ কাজের (গু আজমের বিরুদ্ধে সাক্ষী ) জন্য নিশ্চিত ভাবে বলি হতে হল মিরাজ কে । শুধু তাই নয় মরার পরেও তাকে উদ্দেশ্য প্রণোদিত ভাবে অপরাধী বানান হচ্ছে । ধিক্কার দেই মাহমুদ গং -দের, সেই সাথে আমার দেশকে ।

বিডিনিউজ লিংক