ক্যাটেগরিঃ ক্যাম্পাস

 

সেন্টু রঞ্জন দাস অর্ক। দরিদ্র পরিবারের বড় সন্তান। তাই দ্বায়িত্ব একটু বেশীই বটে! বিশ্ববিদ্যালয় জীবনের প্রথম বছর পর করল মাত্র।পড়াশুনা করত বিশ্ববিদ্যালয়ের ফার্মেসি বিভাগে। থাকতেন মীর মশাররফ হোসেন হলে। ক‘দিন আগে পরিবারের একমাত্র উপার্জনকারী বাবাও চলে যায় পরপারে। দ্বায়িত্বের বোঝা একটু একটু করে বেড়েই চলল অর্কের উপর। বাবা হারানো বেদনা নিয়েও সবকিছু চলছিল ঠিকঠাক। হেসে খেলে সময় কাটত তাঁর। বন্ধুদের ডাকে সবার আগে সাড়া দিত অর্ক। সকলের খোঁজ-খবর নেয়াসহ বিপদে আপদে সরব উপস্থিতি ছিল তাঁর। জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের সবুজ চত্ত্বরকে খুব অল্প সময়েই হৃদয়ের বন্ধনে আবদ্ধ করে ফেলেছেন।  অর্কের চাওয়াটা কি খুব বেশি কিছু নয়।  সে চায় মায়ের স্বপ্ন পূরণ করতে। এই পৃথিবীর বুকে বেঁচে থাকতে, জাহাঙ্গীরনগরের সবুজ চত্বরে বিচরণ করতে, পরিবারের বড় সন্তান হিসেবে সংসারের হাল ধরতে। দেশের জন্য নতুন কিছু করতে।

জীবনের লক্ষ্য অর্জনে নিজেকে প্রস্তুত করে তোলার কথা, ঠিক সেই সময়টাই প্রকৃতির নিষ্ঠুর পরিহাসের শিকার। পরীক্ষার হলে থাকার পরিবর্তে সে আজ হাসপাতালের বিছানায়। মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে। তার শরীরে বাসা বেঁধেছে মরণব্যাধি ক্যান্সার (Lymphocyte Rich Classical Hodgkin Lymphoma)। রাজধানীর স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজে হাসপাতালে তিনি বর্তমানে চিকিৎসাধীন। তাঁকে সুস্থ করে তুলতে ৩৫ লাখ টাকা খরচ হবে বলে চিকিৎসকেরা জানিয়েছেন। বিশাল এ ব্যয়ভার বহনের সামর্থ্য অর্কের দরিদ্র পরিবারের নেই। তাই মানুষের কাছে সাহায্য চাইছেন  পরিবারের সদস্য ও সহপাঠীরা। কিন্তু পিতৃহীন এই ছেলেটির পরিবারের একার পক্ষে এই খরচ বহন করা সম্ভব নয়। তাই বলে কি সদা হাস্যোজ্জ্বল, অসীম দৃঢ় মানসিকতা সম্পন্ন অর্ক হার মানবে তার নিয়তির কাছে? এই পরাজয়ের গ্লানি কি শুধু তার একার হবে? না, বরং তার দায়ভার আমাদের প্রত্যেকের উপর-ই বর্তাবে। এমনটিই মনে করছেন তাঁর সহপাঠীরা।

 সুনামগঞ্জের ঐতিহ্যবাহী সরকারি জুবিলী উচ্চ বিদ্যালয় থেকে S.S.C এবং সিলেটের ঐতিহ্যবাহী প্রতিষ্ঠান এম সি কলেজ থেকে H.S.C পাস করে।   উভয় পরীক্ষাতেই গোল্ডের এ+ পেয়েছিলেন।

অর্কের নিজ স্কুল ও বিশ্ববিদ্যালয়ের বড়ভাই, দর্শন বিভাগের শিক্ষার্থী আজমাঈন ফায়েক স্বপ্নীল বলেন, “এ দেশে অনেক মানুষ আছে। তারা যদি একটি করেও টাকা দেয়, তাহলেও এই মেধাবী ছাত্রটি রক্ষা করা সম্ভব। একই সাথে তিনি প্রশ্নের সুরে বলেন, “টাকার কাছে কি  হেরে যাবে অর্কের স্বপ্ন?

তাঁর বন্ধুদের আকুতি- “একটি স্বপ্নের অপমৃত্যু ঠেকাতে আপনাদের সহযোগিতার হাতটি বাড়িয়ে দিন। আমাদের সকলের সম্মিলিত প্রয়াস-ই পারে অর্ককে একটি সুস্থ, স্বাভাবিক জীবন উপহার দিয়ে আবার আমাদের মাঝে ফিরিয়ে আনতে, পুনরায় তাকে স্বপ্নের পথে জাল বিস্তার করা শেখাতে।”

save-arka

সাহায্য পাঠানোর ঠিকানা:

বিকাশ নম্বর:

1. 01921729399 (পার্সোনাল)

2. 01722899715 (পার্সোনাল)

3. 01928401260 (পার্সোনাল)

ডাচ বাংলা মোবাইল একাউন্ট নং: 017751311311

ব্যাংক একাউন্ট:

Name of the Account: MD. Abdul Jalil

Account No: 186.105.9236 (Dutch-Bangla Bank Ltd.)

যে কোন প্রয়োজনে:

১। তানজিল (৪১তম আবর্তন-ফার্মেসি)- ০১৭২২৮৯৯৭১৫

২। আব্দুল জলিল (৪২তম আবর্তন-ফার্মেসি)- ০১৯২৯৬৭৬৯৮৯

৩। আফরা নাওয়ার (৪২তম আবর্তন-ফার্মেসি)- ০১৮৫০০৬৭০৬৩

৪। তাসনিম হক নওমি (৪২তম আবর্তন-ফার্মেসি)- ০১৭৮১৪৪৮৯৭৪

৫। হৃদয় কুমার দে (৪৪তম আবর্তন-ফার্মেসি)- ০১৭৭১৮৯৩৮৭৮