ক্যাটেগরিঃ প্রকৃতি-পরিবেশ

 

এই তো কিছুক্ষন আগে কোকিল ডেকেছে। মনে করিয়ে দিয়েছে বসন্ত দুয়ারে দাঁড়িয়ে। শুধু একটি নতুন সূর্যের অপেক্ষায় প্রতিটি বাঙালির অন্তর।

শীতের এই বিদায় বেলা কিছুটা বেদনা মনে জমা হলেও তা কেটে যায় বসন্তের আগমনে। বাংলার ছয় ঋতুর রাজা ঋতুরাজ বসন্ত। এই বসন্ত নিয়ে কতো শত কবি রচনা করেছেন কতো শত কাব্যমালা। এই বসন্ত এলে এখনো কতো শত কবিতার জন্ম হয়।

আজ পহেলা বসন্তে ইংরেজি বৎসরের প্রথম বৃষ্টির অপেক্ষায় হাজার হাজার বৃষ্টিপ্রেমিদের দল। আমিও তাদের মধ্যে একজন। আজ বৃষ্টি আসুক। ভিজিয়ে দিক ধুলো জমা প্রকৃতিকে। ধুয়ে নিক প্রতিটি মনের সকল জীর্ণতা। ফুটিয়ে তুলুক কাননে রঙের বাহার। হোক গাঁদা ফুলের রঙ্গে হলুদ পুরো বাংলা।

বসন্ত প্রতিটি বাঙালিকে কবি করে তোলে। এ যেন কবি জন্মের এক গুরুত্বপূর্ণ ক্ষণ। এক্ষণেই যেন কবি হয়ে উঠা যায় খুব সহজে। আজ না হয় আমিও কবি হয়ে জন্ম নেই। দেই বসন্ত কাব্যের জন্ম।

কোকিল ডেকেছে আজ এই আঁধারে।
তবে কি বসন্ত দাঁড়িয়ে দুয়ারে?
আমি কি পাবো তার দেখা
নাকি এই আধাঁরটাই আমার শেষ দেখা?
যদি নাই পাই আগত বসন্তের প্রথম প্রহর
তবে ফের ফিরবো মনে রেখ কোন এক বসন্তে
হয়তো বসন্তের কোকিলের বেশে।
হয়তো সেদিন তোমরা আমাকে চিনবে না
বসন্ত প্রকৃতি ঠিকই চিনে নেবে আমায়।
স্বাগত জানাবে ফুলের সৌরভ আর রঙের ধারায়।
আমি না হয় থাকবো আজকের পর থেকে
সেই দিনটির অপেক্ষায়।
দিকনা এ বসন্ত তার সৌরভ সব বিলিয়ে সুরঞ্জনায়।
আমি না হয় থাকাবো সে দিনটির অপেক্ষায়।

সবাইকে ঋতুরাজ বসন্তের শুভেচ্ছা।
আসুন এক সাথে গাই ’বসন্ত এসে গেছে, বসন্ত এসে গেছে’।