ক্যাটেগরিঃ প্রশাসনিক

 

21_Public-Sufferinransport_

ঢাকা শহরে সিটিং সার্ভিসের নামে ‘চিটিং সার্ভিসে’ অতিরিক্ত অর্থ ব্যয় হলেও সিটিং সার্ভিস বন্ধে ঢাকাবাসীর যা ভোগান্তি হচ্ছে তার অর্ধেক ভোগান্তি কয়েকদিন আগেও ছিলনা। এই ভোগান্তিতে সবচেয়ে বেশি ভুগছেন ছাত্রছাত্রী, নারী ও প্রতিবন্ধিরা। এখন প্রশ্ন ঢাকাবাসীর হাজার হাজার ভোগান্তির ভিড়ে এই নিত্য নতুন ভোগান্তি সৃষ্টির জন্য দায়ী কে বা কারা?

নগর ও নাগরিক সমস্যা সমাধানে নাগরিক সমাজ ও নগরবিদদের সাথে আলোচনা না করে সিটিং সার্ভিস বন্ধ করে দেয়া বড্ড বোকামি হয়েছে বলে নিশ্চয়ই বুঝতে পারছেন সংশ্লিষ্টরা নতুন ভোগান্তির জন্ম দিয়ে। সিটিং সার্ভিস বন্ধ না করে বরং সিটিং সার্ভিস বৃদ্ধি করাটাই বুদ্ধিমানের কাজ ছিল। সিটিং সার্ভিস নয়, বন্ধ করা উচিত ছিল সিটিং সার্ভিসের নামে ‘চিটিং সার্ভিস’।

আশা করি সিটিং সার্ভিস বন্ধ করার বোকামি থেকে অভিজ্ঞতা নিয়ে ভবিষ্যতে নগর ও নাগরিক সমস্যার সমাধানের আগে সংশ্লিষ্টদের নাগরিক সমাজ এবং নগরবিদদের সাথে আলোচনা করার মনমানসিকতা সৃষ্টি হবে।