ক্যাটেগরিঃ চিন্তা-দর্শন

 
Screenshot_2017-06-24-13-54-01-1

ইদানিং আত্মপ্রচার যেন ব্যাধিতে পরিনত হয়েছে। যে যেমনি ইচ্ছে প্রচারনা করে যাচ্ছে। কেউ ঢোলের এপিঠ তো ওপিঠ বাজিয়েই চলেছেন। কিন্তু এই প্রচারনা কতটা যৌক্তিক তা নিয়ে রয়েছে সন্ধেহ।গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনাগুলো এখন আত্মপ্রচারের মূল মাধ্যম হয়ে দাঁড়িয়েছে। বিশেষ করে ইদানিং দানশীল ব্যক্তিদের প্রচারনাটা খুব বেড়ে দাঁড়িয়েছে। কোনো কারণে কিছু দান করলে তৎক্ষনাৎ তা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম কিংবা অনলাইন পোর্টাল, নয়তো ফেস্টুন আর ব্যানারে সাঁটিয়ে দিচ্ছেন।

বিশেষ করে ঈদকে সামনে রেখে প্রচারমুখী জনপদের ওয়ালে চলে আত্মপ্রচারের রেলগাড়ি। রাজনৈতিক নেতা থেকে শুরু করে আত্মপ্রচারের ছোবল নিজের মাঝে পড়েনি এমন লোক খুঁজে পাওয়া দুস্কর! বিলবোর্ড, ব্যানার,ফেস্টুন আর ফেসবুক ওয়ালে নিজেকে যাহিল করতে মানুষের ব্যস্ততার যেন কমতি নেই।

অমুক নেতার লোক, তমুক নেতার লোক বলে নিজেদের পরিচিত করতে ব্যস্ত সকলে।নিজেদের পরিচিতি বাড়ানোর জন্য এসব ব্যানার ফেস্টুনে যে অর্থ খরচ করেন তা দিয়ে অনায়াসে সুবিধা বঞ্চিত মানুষদের উপকার করা যেতো।প্রচার অমনিতেই বেড়ে যেতো।

সুবিধা বঞ্চিত মানুষদের সাহায্য করে সে খবর কে কার আগে পৌছে দিবে তাতেই ব্যস্থ সকলে।আসলেই কি এ দান সঠিক?

“তুমি এমন ভাবে দান করো যাতে তোমার ডান হাতে দান করলে বাঁ হাত টের না পায়!”

কিন্তু এখনকার সমাজে এমন লোক পাওয়া দুস্কর। যার যত বেশি প্রচারনা তারই এখন জয়। সততা, নিষ্ঠা কিসের দেশ প্রিতী।তিলকে যদি তাল না বানায় চলে না রাজনীতি। কিছু লোক যত টাকা ব্যানার ফেস্টুনের পিছনে নিজেদের যাহিলে খরচ করে সে টাকা দিয়ে যদি অসহায় দরিদ্র মানুষকে প্রচার বিমুখ ভাবে সাহায্য করতো তবে সে লোক আরো বেশি জনপ্রিয় হয়ে যেত।

গুরুত্বপূর্ণ ভাস্কর্যগুলোর সৌন্দর্য হরণ করছে আত্মপ্রচারে লাগানো বিলবোর্ডগুলো।এছাড়া এসব শহরের সৌন্দর্যকে বিনষ্ট করছে। সরকার কিংবা দেশের উন্নয়নের চিত্র বিলবোর্ডগুলোতে ফুটে না উঠলেও নিজেদের উন্নয়নের আর বাহবার চিত্র ফুটে ওঠে প্রচারনায়। বিশেষ কোন দিবসে এ বিষয়টি খুব বেশি লক্ষ্য করা যায়। ইদানিং রাস্তার পাশে গাছের মধ্যেও সাঁটানো থাকে আত্মপ্রচারমুখি বিলবোর্ডগুলো।

এতো আত্মপ্রচারের মাঝেও কিছু প্রচার মনে আনন্দ জাগায় আর তা হলো চাঁদপুর গণি উচ্চ বিদ্যালয়ের সাইড ওয়ালে লেখা উপদেশ মূলক, গুণী লোকদের নীতিকথা। এমন প্রচারনা সত্যি ভাল মানুষে পরিনত হতে সহায়ক। আমরাও চাই এমন প্রচারনা, যে প্রচারনা আমাদের ভাল মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে সহায়ক ভূমিকা পালন করে।যে প্রচারনা আমাদের কাজে দেবে, যে প্রচারনা নতুন প্রজন্মের শিশুদের মাঝে নৈতিক মূল্যবোধের যোগান দেবে।

আসুন আমরা প্রচার বিমুখ হয়ে মানুষের পাশে দাঁড়াই। ভাল জিনিসের প্রচার লাগে না।আপনার ভাল কর্মগুলো একেকটি প্রচারনার উৎস। ভাল কাজে নিজেকে বিলিয়ে দিলেই স্রষ্টার কাছে হবেন সম্মানিত।