ক্যাটেগরিঃ রাজনীতি

 

খবরে পড়লাম- কানাডার আদালত বিএনপিকে একটা সন্ত্রাসী দল হিসেবে চিহ্নিত করেছে। কেন করেছে সেবিষয়ে আমরা সবাই কমবেশি অবগত আছি তাই সেদিকে যাচ্ছি না!

তবে এই রায়ের ফলে বিএনপিকে যেসব পরিস্থিতি ফেস করতে হতে পারে সেগুলো হলো-

১) কানাডায় বিএনপি ও তার অঙ্গ সংগঠনের কেউ আর ভিসা পাবে না! পেলেও এয়ারপোর্টে গ্রেফতার হওয়ার পাশাপাশি হয়রানীর শিকার হবেন! এথেকে ম্যাডাম জিয়াও রেহাই পাবেন না!

২) আমি যদিও ‘আইন’ বিষয়ে কিছু জানি না! তবুও ধারণা করি, ব্রিটিশ আইন যেসব দেশে প্রচলিত আছে সেইসব দেশের কোর্টে এই রায়কে “একটা প্রমাণিত ঘটনার রেফারেন্স” হিসেবে উপস্থাপন করা হবে। ফলে সেই দেশগুলোর আদালত তা গ্রহণও করতে পারে! এর ফলে যেটা হবে- বিএনপি ও তার দলের সাথে সম্পৃক্ত থাকা লোকজন বিদেশের দেশে দেশে নাস্তানাবুদ হবেন। এমনকি কেউ যদি ইংল্যান্ডে তারেক জিয়ার নামে এই মর্মে মামলা করে যে, “আমি তার কারণে শঙ্কিত”! তাহলে জনাব জিয়ার সেদেশ থেকে ডিপোর্ট হওয়ার চান্স আছে! অন্যদের ক্ষেত্রে আছে ভিসা না পাওয়ার চান্সও।

৩) বিএনপি’র নেতাদের সন্তান, যারা বিদেশে স্থায়ী হয়েছে বা হতে চাচ্ছে তাদের সামনে সমূহ ঝামেলা অপেক্ষা করছে।

৪) অনেক দেশের কূটনীতিতে এই রায়ের প্রভাব পড়বে। উন্নত দেশগুলো একটা সন্ত্রাসী দলের সাথে মিটিং সিটিং করতে নাও চাইতে পারে বা কেউ করলে তার দেশে এনিয়ে বিতর্ক দেখা দিতে পারে!

৫) বাংলাদেশে এনিয়ে তাদের কোন ঝামেলায় পড়তে হবে না! কারণ যারা বিএনপিকে ভোট দেয় তারা তা দিবেই। কিন্তু যেসব নেতা-পাতিনেতার বিদেশে যাওয়ার ইচ্ছে আছে। আছে- “আগামীতে ক্ষমতায় যেয়েই দুই-চারটা দান মেরে দিয়েই বউ-পোলা-মাইয়া আমেরিকায় পাঠিয়ে দেবো বা কানাডা বেগম পাড়ায় বাড়ী কিনবো!”-এর ধান্দা? তাদের জন্য সামনের দিন অন্ধকার!

৬) জব্দ হয়ে যেতে পারে বিদেশে থাকা সম্পদও।

কথায় আছে- পাপ বাপকেও ছাড়ে না! আর বিএনপি টানা তিনমাসের অবরোধ দিয়ে যেভাবে গরিব-দুঃখী সাধারণ মানুষকে বাসে, ট্রাকে, ট্রেনে, অটোতে পুড়িয়ে মেরেছে বা মেরে ফেলার উস্কানি দিয়েছে, তার ফল কী তারা পাবে না? সৃষ্টিকর্তা কী শুধু তাদেরই আছে, গরীব মানুষদের জন্য উনি নেই?

তাহলে বিএনপির এখন কী উপায়?

ধারণা করি- উপায় লুকিয়ে আছে নাম পরিবর্তনে।

আগের লেখাঃ

১) মশাই, কলা তুমি একাই খাবে? তা হবে না, তা হবে না!
২) আমেরিকা ও বন্ধু-শত্রু’র ব্লাইন্ড গেম
৩) এক অভাগার বিলাপ
৪) অবরোধীয় অবসরের ছিন্নভাবনা
৫) অবরোধীয় অবসরের ছিন্নভাবনা-২
৬) অবরোধীয় অবসরের ছিন্নভাবনা-৩
৭) সুকান্ত’র ডিজিখাতা-২
৮) Delegates of European Union: আমাদের কিছু বলার আছে
৯) লালফোন ও আমাদের বিভ্রান্তি
১০) হরতাল-অবরোধের আর্থিক ক্ষতি
১১) মুরগীর বাচ্চা ও সুশীল
১২) রেশম পোকার গল্প
১৩) বেগম জিয়া’র গ্রেফতার ও আমার মত
১৪) ক্ষমতা, কেন তুমি মানুষকে এমন লোভি বানাও?
১৫) গণপোড়াতন্ত্র চাই না! মুক্তি চাই!
১৬) জ্বলে জ্বলে মরে মানুষগুলো! প্লিজ!
১৭) আরও অনেক