ক্যাটেগরিঃ প্রশাসনিক

 

একজন মানুষ শুধুমাত্র তার দর্শণ দিয়েও একটি জাতির উন্নতি করতে পারেন। সেই ইতিহাস বিশ্বব্যাপি যেমন সুপ্রতিষ্ঠিত, তেমনি এই প্রিয় মাতৃভূমিতেও উজ্জ্বল! সে হোক পুরুষ কিংবা নারী! আমরা অনেকেই ইতিবাচক পরিবর্তনের কথা চিন্তা করতে পারি না। কিছুটা হেরে যাওয়া বা সমালোচিত হওয়ার ভয়ে। আর এই হেরে যাওয়া বা ভয়কে জয় করতে পেরেছে, তারাই তো ইতিহাসের খাতায় নিজের স্মরণীয় করে রাখার সুবর্ণ সুযোগটি পায়।

বিধাতার এই দুনিয়াতে কত মানুষই নিত্য জন্ম-মৃত্যুর অমোঘ নিয়মের খেলায় হারিয়ে যাচ্ছে। কতজনকেই বা আমরা হৃদ মাঝারে মনে রাখি? যারা নিজের বলয়ের মধ্যে থেকেও এই সমাজের জন্য ঝুঁকি নিয়ে কল্যাণকর  কাজ করে তারাই এই সমাজের আলোকিত মানুষ! তেমনি এক কর্মদীপ্ত অনন্য মানুষ, পাবনা জেলার সম্মানিত জেলা প্রশাসক জনাব রেখা রাণী বালো। যিনি নিজে সকল প্রতিকূল সমস্যার ভিরেও যেমন স্বপ্ন দেখেন,তেমনি অন্যকেও স্বপ্ন দেখাতে জানেন!যার সুদক্ষ প্রশাসনিক নেতৃত্বে ও কর্মকান্ডে এগিয়ে যাচ্ছে পাবনার আপন ঐতিহ্য।

DSC00885

১৯৬৫ সালে মানিকগঞ্জ জেলার সদর উপজেলার বাইতারা গ্রামে জন্ম নেন আত্মপ্রত্যয়ী এই নারী। ১৫তম বিসিএস এর মাধ্যমে যোগদান করেন ক্যাডার সার্ভিসে। পাবনার জেলা প্রশাসক হিসেবে যোগদানের পূর্বে তিনি জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের উপ-সচিব হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। জানা যায়, ২০১৬ সালের জানুয়ারীতে পাবনা জেলায় যোগদানের পর কাজ করার পরিবেশটুকু খুব বেশি সহায়ক ছিল না, কিন্তু জেলা প্রশাসনের সকল কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কে সুদক্ষ নেতৃত্বের মাধ্যমে পরিচালিত করে ইতোমধ্যেই তিনি তাঁর কর্মদক্ষতার প্রমাণ করেছেন। প্রশাসনের কাজ কে জনবান্ধব করতে ব্যবহার করেছেন সোশ্যাল মিডিয়াকে আর যোগাযোগ ব্যবস্থায় তথ্য প্রযুক্তির ব্যবহারের জন্য পেয়েছেনও প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের এটুআই পুরস্কার। এছাড়া শ্রেষ্ঠ জেলা ওয়েব পোর্টাল পুরস্কার, শতভাগ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শতভাগ শহীদ মিনার নির্মাণ, কথাসাহিত্যিক প্রমথ চৌধুরীর বাড়ি উদ্ধারসহ নানা ইতিবাচক কাজের নেপথ্যের উদ্যোক্তা এই জেলা প্রশাসক রেখা রাণী বালো।

dc-3

বাংলাদেশে রেখা রাণী বালো’র মতো আত্মপ্রত্যয়ী মানুষরা আছে বলেই, আজো আমরা স্বপ্ন দেখি। কুয়াশার মাঝে দূরের ঐ আলোর মিষ্টি প্রভাটুকু খুঁজে বেড়াই। আর রেখা রাণীর বালো’র মতো হাজারো মানুষ চায় এই সমাজে শুভবোধের ছোয়ায় সমাজটাকে বদলে দিতে। কিন্তু আমাদেরই চারপাশে থাকা নেতিবাচক ও স্বার্থানেষী, ধর্মান্ধ মানুষগুলোর জন্য অনেকের উদ্যোগগুলো আলোর মুখ দেখে না।

DSC00886

আমাদের এই দেশ কোন বিশেষ ধর্মান্ধ গোষ্ঠীর না, এই দেশ অগণিত মানুষের রক্তের বিনিময়ে পাওয়া একটি স্বাধীন রাষ্ট্র। জনবান্ধব প্রশাসন যন্ত্রে সোনার বাংলা কে সমৃদ্ধ করতে রেখা রাণীর মতো মানুষরা এগিয়ে আসুক। অগ্রীম শুভকামনা রইল সকল স্বপ্নদর্শী রেখা রাণী দের জন্য! রেখা রাণী দের কল্যাণকর কাজে অনুপ্রাণিত হোক শুভবোধে বিশ্বাসী সকল বাঙ্গালি।

 

সুমিত বণিক,

ফ্রিল্যান্স সাংবাদিক ও উন্নয়নকর্মী, ঢাকা।

sumitbanikktd.guc@gmail.com