ক্যাটেগরিঃ ভ্রমণ

 

সুরমা নদীর উপর নির্মিত দৃষ্টিনন্দন এই সেতুটি মন কাড়বে পর্যটকদের। সন্ধ্যায় সেতুর নিয়ন আলোর ঝলকানি আর নদীর পানিতে আলোর প্রতিচ্ছবি সত্যিই মনোমুগ্ধকর। সিলেট নগরীর শেখঘাটে সুরমা নদীর ওপর ৪ লেনবিশিষ্ট ‘কাজিরবাজার সেতু’। সিলেট শহরে সুরমা নদীর ওপর নব নির্মিত কাজিরবাজার সেতু।

সরকারের সড়ক ও জনপথ বিভাগ সূত্রে জানা যায়, সিলেট নগরীর শেখঘাট এলাকায় কাজিরবাজার নামক এলাকায় সুরমা নদীর ওপর ১৮৯ কোটি ছয় লাখ টাকা ব্যয়ে নির্মিত ‘কাজির বাজার পিসি গার্ডার সেতু’র উদ্বোধন করেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

নগরীর যানজট নিরসনের লক্ষ্যে ২০০৫ সালের এপ্রিলে সেতুটির ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপিত হয়। কিন্তু পরিকল্পনা ও ডিজাইন ছাড়া কাজ শুরু হওয়ায় কিছুদিন পরেই থেমে যায় সেতুটির নির্মাণ কাজ। দীর্ঘদিনের এ অবস্থার প্রেক্ষাপটে একসময় ব্রিজটি পরিত্যাক্ত সেতুতে পরিণতি পায়। 

এরপর ২০০৮ সালের জাতীয় নির্বাচনের মধ্য দিয়ে আওয়ামীলীগ সরকার গঠন করলে স্থানীয় সংসদ সদস্য ও অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের চেষ্টায় এর কাজ শুরু করা হয়। এজন্য নতুন ডিজাইন ও প্রকল্প সংশোধনের মাধ্যমে নতুন করে সেতুটির নির্মাণ কাজ শুরু হয়।

৩৯১ মিটার দৈর্ঘের ও ১৮ দশমিক ৯০ মিটার প্রস্থের সেতুটিতে স্পেন আছে ১০টি, পিয়ার ৯টি এবং ২টি এবাটমেন্ট। সেতুটির উভয় দিকের এপ্রোচ সড়ক ৮৬৫ মিটারের, যার মধ্যে উত্তর প্রান্তে ২৩০ মিটার এবং দক্ষিণ সুরমা প্রান্তে রয়েছে ৬৩৫ মিটার।

পাইল ফাউন্ডেশনের ওপর নির্মিত পিসি গার্ডার এই সেতুর ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করা হয় ২০০৫ সালের ২৪ ডিসেম্বর। ২০১৫ সালের ২০আগস্ট গণভবন থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, সিলেটের জেলা প্রশাসকের সাথে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এই সেতুর উদ্বোধন ঘোষণা করেন। যানজট নিরসনের লক্ষ্যে ২০১৬ সালে ব্রিজের কাজ শেষ হয় এবং ওই সময়েই জনসাধারণের জন্য উন্মুক্ত করা হয়। প্রতিদিন হাজারো মানুষ শুধু বেড়াতে আসেন এই ব্রিজের ওপর।

এই ব্রিজের আরেকটি আঞ্চলিক নাম সেলফি ব্রীজ। দুই পাশে রয়েছে ফুচকা, চটপটি, চানাচুর ইত্যাদি ভাসমান খাবারের দোকান। কয়েক মাসের ব্যবধানে নষ্ট হয়ে গেছে সোডিয়াম বাতি। তাই এসবের সংরক্ষণে প্রয়োজন নিয়মিত দেখাশোনা করার।

 

DSC_0112 copy

ছবি- সুমন দে।

গতবছরে বিজয় উদযাপন করতে নগরীর কাজিরবাজার সেতুতে আয়োজন করা হয়েছিলো ব্যতিক্রমী বিজয় উৎসবের। আকাশে লাল সবুজের ফানুস, নিচে জয় বাংলার গান আর হাজারো জনতার জয়ধ্বনি-  ২০১৬ সালের শুক্রবার (১৬ ডিসেম্বর) ঠিক সন্ধ্যায় আলোয় আলোকিত হয়ে ওঠে কাজির বাজার সেতু সংলগ্ন এলাকা। বিজয়ের ৪৫ বছর পেরিয়ে এসে নতুন আলোর আভায় পূর্ণ হয়ে ওঠে বাংলাদেশ। সেতুতে উড়ানো ফানুসের আলোয় তখন আলোকিত চারপাশ। একে একে উড়ানো হয় লাল-সবুজ রঙের প্রায় চারশত ফানুস। চলে বিজয়ের গান আর আতশবাজি। সেলফি তোলাতে ব্যস্ত থাকেন হাজারো তরুণ-তরুণী।

Cort-Point-300x200-5