মায়ার টানে মায়াবী ঝরনায়

/

শাঁ শাঁ শব্দে পাহাড়ের বুক চিরে ঝরে পড়ছে স্বচ্ছ জলের ঝর্ণাধারা। পাথর ফেটে শিরশিরে সে শীতল জল প্রবল বেগে আছড়ে পড়ছে পাথর থেকে পাথরের গায় । কোমল জলে গা ভিজিয়ে সৌন্দর্যের পিয়াসা মেঠাচ্ছে সৌন্দর্য পিপাসু পর্যটকের দল। ঝর্নার গায়ে পাথুরে প্রাকৃতিক সিঁড়ি বেয়ে একেবারে চূড়ায় চড়ে দূরন্ত পর্যটকেরা দিচ্ছে আনন্দের হাতছানি, চলছে সেলফি, গ্রুপফি। মনে… Read more »

মেঘালয়ের পাদদেশে

/

সিলেট হতে জাফলং যাওয়ার পথে শ্রীপুর বাজার পার হওয়ার পরই ডান পাশের ছোট রাস্তা ধরে এগুলেই খাসিয়া মোকামপুঞ্জি। ছবির এই জায়গাটির নাম শ্রীপুর পাথর কোয়ারি। বর্ষাকালে মেঘালয় পাহাড় থেকে ঝর্ণা হয়ে ধেয়ে আসে পানির ঢল, সেই সাথে নিয়ে আসে পাথর। শীতের সময় পাথর উত্তোলনের অপরূপ প্রকৃতির ছবিটি ধারণ করেছি। স্থান: মোকামপুঞ্জি শ্রীপুর, জৈন্তাপুর উপজেলা সিলেট।

slide

খাসিয়া-জৈন্তা পাহাড় এর প্রকৃতি কন্যা জাফলং

/

জাফলং- বাংলাদেশের সিলেট বিভাগের সিলেট জেলার গোয়াইনঘাট উপজেলার অন্তর্গত, একটি এলাকা। জাফলং, সিলেট শহর থেকে ৬২ কিলোমিটার উত্তর-পূর্ব দিকে, ভারতের মেঘালয় সীমান্ত ঘেঁষে খাসিয়া-জৈন্তা পাহাড়ের পাদদেশে অবস্থিত, এবং এখানে পাহাড় আর নদীর অপূর্ব সম্মিলন বলে এই এলাকা বাংলাদেশের অন্যতম একটি পর্যটনস্থল হিসেবে পরিচিত।      

ক্ষুধার রাজ্যে পৃথিবী গদ্যময়

/

কবি সুকান্ত ভট্টাচার্য্যের কবিতার একটি লাইন‍- ‌‌‌‍ক্ষুধার রাজ্যে পৃথিবী গদ্যময়, পূর্ণিমা-চাঁদ যেন ঝলসানো রুটি। মানুষ যখন ভাবছে মঙ্গল গ্রহে বাসস্থান করার। ২০১৮ সালে যখন বাংলাদেশের নিজস্ব বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট উত্তোলন হবে। ঠিক সেই সময় অনাহারে খুটে খাওয়ার মানুষটিকে ক্যামেরার ভিউ পয়েন্টে বন্দি করলাম হাজার হাজার মানুষের ভিড়ে থেকে আড়ালে প্রকৃতি কন্যা জাফলং-এ।   

slide

লিডিং ইউনিভার্সিটির সিএসই ৩৯ ব্যাচের বনভোজন

/

অপরূপ সৌন্দর্যের লীলাভূমি সিলেটের জাফলং। পাহাড় টিলা আর চা বাগান সংলগ্ন সীমান্তঘেষা জাফলং প্রকৃতিকন্যা নামেও পরিচিত। সিলেট নগরী থেকে ৫৯ কিলোমিটার দূরে জাফলংয়ের অবস্থান। গোয়াইনঘাট উপজেলার অধীন জাফলংয়ের সৌন্দর্য্য উপভোগ করতে প্রতিদিনই সেখানে আসেন নানা বয়সের দেশি-বিদেশি পর্যটক। ঈদ ও অন্যান্য ছুটির সময়ে জাফলংয়ে পর্যটকদের উপচেপড়া ভিড় পরিলক্ষিত হয়। এখানে পর্যটকদের অন্যতম আকর্ষণ হচ্ছে স্বচ্ছ… Read more »

পাহাড়ের ঢালে পাথুরে নদী, পাথরচাপা মানুষ বহে পাথর সময়

/

সীমান্তের ওপারে আকাশ ছোয়া পাহাড়। দক্ষিনের বাতাসে ভেসে যাওয়া মেঘ গুলো আটকে থাকে পাহাড়ের গায়ে ঠেস দিয়ে। পাহাড়ের গা বেয়ে নেমে আসা ঝিরিঝিরি জলের ধারা রুপ নিয়েছে স্রোতস্বিনী ধলাই নদী। নদীর মাঝে মাঝে বালুর চর। চারিপাশে যতদুর দৃষ্টি যায় চড় আর চড়। আপাত দৃষ্টিতে বালুর মহাল বলে মনে হলেও এই বালুর নিচে আছে সোনার খনি।… Read more »