ক্যাটেগরিঃ ব্যক্তিত্ব

 

কিছুদিন আগে আমার স্মৃতিচারণামূলক একটি ঘটনা লিখেছিলাম অন্তর্জালে। লেখাটিতে খুব সাড়া পেয়েছিলাম পরিচিত ও অপরিচিত পাঠকদের কাছ থেকে। সেই লেখায় আমার আব্বা ও ছিদাম কাকাকে নিয়ে জীবনের সুন্দর অতীত এঁকেছিলাম। ছিদাম কাকার কথা বলেছিলাম একজন নরসুন্দর হয়েও উনি দেশ সম্পর্কে খুব সচেতন ও ভাল মানুষ।

রাজনীতি নিয়ে তার আছে গভীর আগ্রহ। দুবলিয়া বাজারের নরসুন্দর ছিদাম বিশ্বাস বঙ্গবন্ধুর আদর্শে জীবন পার করে দিচ্ছেন নিরবে।তিনি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের একনিষ্ঠ কর্মী। এই হালুয়া রুটির যুগেও কোনদিন আওয়ামী লীগ এর কোন নেতার কাছ থেকে কিছু বাগিয়ে নেননি। দুবলিয়া বাজারে দলমত, সম্প্রদায় নির্বিশেষে উনি সবার প্রিয়। কারো সাথে কোনদিন তার বিবাদ হয়নি। সবার সাথে শ্রদ্ধা ও ভালবাসা নিয়ে মেশেন। এক সময় পাবনার জনপ্রিয় আওয়ামীলীগ নেতা ছিলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা রফিকুল ইসলাম বকুল। পরে উনি কোন্দলের কারনে বিএনপিতে যান। রফিকুল ইসলাম বকুল ছিদাম কাকাকে খুব ভালবাসতেন। তার বাসায় ছিদাম কাকার যাতায়াত ছিল অবাধ। কিন্তু বকুল দল পাল্টানোর পর অনেকের মত বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ছেড়ে ছিদাম কাকা যান নি তার সাথে। তবে প্রিয় নেতাকে বুকে ধারণ করে রেখেছেন। ২০০১ সালে রোড এক্সিডেন্টে বকুলের মৃত্যুর পর ছিদাম কাকার দোকানে তার ছবি ঝুলতে দেখেছি। সম্ভবত সেই ছবি এখনো তার দোকানে আছে। পারস্পরিক শ্রদ্ধার বিশাল উদাহরণ রেখেছেন এই মানুষটি।

জীবনের সবটুকু ভালবাসা ও আবেগ দিয়ে বঙ্গবন্ধু ও আওয়ামী লীগকে ভালবাসেন ছিদাম কাকা। পাবনা সদর আসনের আওয়ামী লীগ এর সব বড় নেতাই দুবলিয়ার নরসুন্দর ছিদাম কাকাকে চেনেন। কিন্তু কারো কাছে উনি দয়া চান নাই কখনো। অদ্ভুত নির্লোভ এই মানুষটি আজকের দিনে বিরল উদাহরণ হিসাবে বিবেচিত হবেন নিশ্চিত। আজ মহা প্রতাপশালী যে দলটি সরকারে আছে সেই দলটি ছিদাম কাকাকে কি দিয়েছে আমার জানা নাই। ছিদাম কাকার এখন কেমন অবস্থা সেটাও খুব ভাল জানিনা। যতদূর শুনেছি তার সেলুন এখন ভাল চলেনা। নিজ দিলের এখন বৃহস্পতি তুঙ্গে, নিজের অবস্থা ভাল না। তবুও নৌকা প্রেমে তার ভাটা পড়েনি। যদিও ছিদাম কাকার মত মানুষই এই দলটির শক্তি। ছিদাম কাকার পুরো নাম ছিদাম বিশ্বাস। নামের ‘বিশ্বাস’ শব্দটি অটুট রেখেছেন কর্ম দিয়ে নৌকা বুকে জড়িয়ে। নিরবে নিভৃতে নৌকা প্রেম নিয়ে রয়েছেন।

ছিদাম কাকার মত মানুষেরা কোন দলের অনুগ্রহ নিয়ে বাঁচেনা। তারা বাঁচেন  নিজের ভেতরে জমিয়ে রাখা অকৃত্রিম ভালবাসা নিয়ে। যদি বাংলাদেশের সব নেতারা ছিদাম কাকার মত হত তবে বোধহয় দেশ ও রাজনীতি আরও ভাল হতে পারতো।

এতগুলো কথা লিখলাম কারন আমাদের দুবলিয়ার ফেইসবুক পেইজে চৈত্রপূজার কিছু ছবি দেখলাম। সেখানে ছিদাম কাকাকে আমাদের লাল-সবুজ পতাকা হাতে দেখা যাচ্ছে। এই ছবির কোন অন্তর্নিহিত অর্থ আছে কিনা আমি জানিনা।

 

তানজির খান
কবি ও সাংবাদিক
mtanzirkhan@gmail.com
www.facebook.com/tanzir.khan.3