ক্যাটেগরিঃ আইন-শৃংখলা

 

পত্রিকায় প্রকাশিত খবর অনুযায়ী সিলেটে জঙ্গি আস্তানায় সেনা অভিযানকালে অদূরে (পাঠানপাড়ায়) জঙ্গি হামলায় আহত র‍্যাবের গোয়েন্দা শাখার প্রধান লে. কর্নেল আবুল কালাম আজাদকে উন্নত চিকিৎসার জন্য সিঙ্গাপুরে পাঠানো হবে আজ।

সংবাদ মাধ্যমের খবর অনুযায়ী জঙ্গি অভিযান স্থলের অদূরে  দুই দফা বিস্ফোরণে দুই পুলিশ কর্মকর্তাসহ ছয়জন নিহত হন। আহত হন র‌্যাব-পুলিশের তিন কর্মকর্তাসহ অন্তত ৪৩ জন। এর মধ্যে কয়েক জনের অবস্থা গুরুতর বলে খবরে প্রকাশিত হয়েছে।

সাধারণ জনগণ হিসেবে আমাদের প্রশ্ন, আহতদের যথাযথ চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হচ্ছে কিনা, লে. কর্নেল আবুল কালাম আজাদ এবং আর কাউকে উন্নত চিকিৎসার জন্য সিঙ্গাপুর পাঠানোর প্রয়োজন রয়েছে কিনা? গুরুতর অন্য আহতদের কি দ্রুত ঢাকায় পাঠানো হয়েছে হেলিকপ্টারে? হয়ত হয়েছে, কিন্তু জানা যাচ্ছে না কিছু। এমনকি কারা আহত হয়েছে তাও সঠিকভাবে জানা যাচ্ছে না।

সিলেটে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর যেসকল সদস্য জঙ্গীদমনে অংশগ্রহণ করেছেন তারা জনগণের নিরাপত্তার জন্য, দেশের জন্য, স্বাধীনতা রক্ষা করার জন্য কাজ করছেন, এবং সাধারণ নাগরিক হিসেবে ওখানে সংগঠিত জঙ্গি হামলার শিকার প্রত্যেকের রাষ্ট্রের কাছ থেকে একই পরিমাপে সর্বোচ্চ চিকিৎসা-সুবিধা পাওয়ার অধিকার রয়েছে। কারণ, নাগরিকের নিরাপত্তা বিধান করা রাষ্ট্রের সাংবিধানিক অঙ্গিকার।

লে. কর্নেল আবুল কালাম আজাদকে দ্রুত হেলিকপ্টারে ঢাকায় আনা প্রয়োজন ছিল। উন্নত চিকিৎসার জন্য সিঙ্গাপুর পাঠানো হচ্ছে, এটি সাধারণ জনগণ হিসেবে আমাদের জন্য স্বস্তির সংবাদ। কিন্তু আমরা দুশ্চিন্তাগ্রস্ত হচ্ছি এই ভেবে যে বাকী যারা গুরুতর আহত অবস্থায় রয়েছেন তাদেরও উন্নত চিকিৎসার জন্য সিঙ্গাপুর পাঠানোর প্রয়োজন আছে কিনা, বা অন্তত দ্রুত ঢাকায় এনে উন্নত চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে কিনা।