ক্যাটেগরিঃ রাজনীতি

 

আবারো পাকিস্তান তার সীমা অতিক্রম করেছে। বাংলাদেশের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে নাক গলিয়েছে। একজন রাজাকার ও পাকিস্তানী দোসরের ফাঁসির আদেশে ওদের পিত্তি গরম হয়ে উঠেছে। সাপুড়েদের মুখ-পোড়া সাপের মত ফোঁস -ফোঁস করছে। আসলে এই ওদের সম্বল। ফলে নির্লজ্জ, বেহায়ার মত বার বার একই কাজ করে যাচ্ছে। বাংলাদেশ সরকার অবশ্য নিয়মতান্ত্রিকভাবে এর প্রতিবাদ করে যাচ্ছে। প্রতিবাদের ভাষা বুঝার ক্ষমতা আমার মনে হয় পাকিস্তানের নেই। ‘৬৯ ‘৭০ এও ওরা আমাদের প্রতিবাদী ভাষার অর্থ বুঝতে পারেনি। ফলশ্রুতিতে যা হবার তাই হয়েছে।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রনালয় পাকিস্তানী রাষ্ট্র দূতকে তলব করে কড়া ভাষায় প্রতিবাদ জানিয়েছে। এর আগেও এমন প্রতিবাদ জানানো হয়েছে। যদি পাকিস্তান এ ধরনের প্রতিবাদ থোরাই কেয়ার না করত, তবে বারংবার এই ঘটনা ঘটতো না। যেহেতু সোজা আঙ্গুলে ঘি উঠবেনা, আমার মনে হয় এবার আঙ্গুল বাঁকা করার সময় এসেছে। বাংলাদেশের উচিত, পাকিস্তানের সাথে সকল কূটনৈতিক সম্পর্ক ছিন্ন করে, রাষ্ট্রদূতকে অনতিবিলম্বে এদেশ থেকে বহিষ্কার করা। দূতাবাসে তালা ঝুলিয়ে দেয়া। বিশ্বের সবচেয়ে বাজে রাষ্ট্রকে এভাবে এড়িয়ে চলা যুক্তিযুক্ত বলে আমি মনে করি।

পাকিস্তানকে এড়িয়ে চললে- উগ্র ধর্মীয় মতবাদ, জঙ্গিবাদ, ব্লগার হত্যার মতো স্পর্শকাতর বিষয়গুলোতে বাংলাদেশ আরো ভাল করবে। এ ধরনের কর্মকাণ্ড বিস্তারে যে পাকিস্তানের কোন লগ্নি নেই তার নিশ্চয়তা কী। আশা করি, সরকার এ ব্যাপারে যুগান্তকারী পদক্ষেপ নিবে।