চাল বিক্রির কার্যক্রম শুরু হয়েছে সোমবার। কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, সোমবার সকাল ৮টায় ঢাকা শহরের পাঁচ লাখ ৮০ হাজার কার্ডধারীসহ সারা দেশের প্রায় ১১ লাখ ১৮ হাজার ব্যক্তি ও পরিবারের কাছে এ কার্ডের আওতায় চাল বিক্রি শুরু হয়েছে। চলবে রাত ৮টা পর্যন্ত। নভেম্বর মাসে শুক্রবার ছাড়া সপ্তাহের ছয়দিন এ কার্যক্রম চলবে বলেও জানান তারা। এ বিষয়ে খাদ্যমন্ত্রী আব্দুর রাজ্জাক রোববার তার কার্যালয়ে সাংবাদিকদের জানান, খোলা বাজারে বিক্রির (ওএমএস) চালের মতো এর দামও কেজি প্রতি ২৪ টাকা ধরা হয়েছে। খাদ্যমন্ত্রী বলেন, “ঈদের আগেই এ কার্যক্রম শুরু করা হয়েছিলো। কিন্তু তখন বাজারে এ চালের তেমন চাহিদা ছিল না। তাই বন্ধ করে দেওয়া হয়। এখন আবার চালু করা হচ্ছে।” মন্ত্রী জানান, প্রথমে শুধু নভেম্বর মাসকে মাথায় রেখেই এটি চালু করা হয়েছে। প্রয়োজনে ডিসেম্বর মাসেও এ কার্যক্রম চালানো হবে। ন্যায্যমূল্যের চাল বিতরণ এবং ওএমএস কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে পরিচালনা এবং উপযুক্ত ব্যক্তিদের এ চাল পাওয়া নিশ্চিত করার কার্যক্রম স্থানীয় সংসদ সদস্য ও ওয়ার্ড কমিশনার এবং মহাজোট নেতারা তদারকি করবেন। গত ১৯ অগাস্ট থেকে এফপিসি’র চাল

চাল বিক্রির কার্যক্রম শুরু হয়েছে সোমবার। কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, সোমবার সকাল ৮টায় ঢাকা শহরের পাঁচ লাখ ৮০ হাজার কার্ডধারীসহ সারা দেশের প্রায় ১১ লাখ ১৮ হাজার ব্যক্তি ও পরিবারের কাছে এ কার্ডের আওতায় চাল বিক্রি শুরু হয়েছে। চলবে রাত ৮টা পর্যন্ত। নভেম্বর মাসে শুক্রবার ছাড়া সপ্তাহের ছয়দিন এ কার্যক্রম চলবে বলেও জানান তারা। এ বিষয়ে খাদ্যমন্ত্রী আব্দুর রাজ্জাক রোববার তার কার্যালয়ে সাংবাদিকদের জানান, খোলা বাজারে বিক্রির (ওএমএস) চালের মতো এর দামও কেজি প্রতি ২৪ টাকা ধরা হয়েছে। খাদ্যমন্ত্রী বলেন, “ঈদের আগেই এ কার্যক্রম শুরু করা হয়েছিলো। কিন্তু তখন বাজারে এ চালের তেমন চাহিদা ছিল না। তাই বন্ধ করে দেওয়া হয়। এখন আবার চালু করা হচ্ছে।” মন্ত্রী জানান, প্রথমে শুধু নভেম্বর মাসকে মাথায় রেখেই এটি চালু করা হয়েছে। প্রয়োজনে ডিসেম্বর মাসেও এ কার্যক্রম চালানো হবে। ন্যায্যমূল্যের চাল বিতরণ এবং ওএমএস কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে পরিচালনা এবং উপযুক্ত ব্যক্তিদের এ চাল পাওয়া নিশ্চিত করার কার্যক্রম স্থানীয় সংসদ সদস্য ও ওয়ার্ড কমিশনার এবং মহাজোট নেতারা তদারকি করবেন। গত ১৯ অগাস্ট থেকে এফপ

চাল বিক্রির কার্যক্রম শুরু হয়েছে সোমবার। কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, সোমবার সকাল ৮টায় ঢাকা শহরের পাঁচ লাখ ৮০ হাজার কার্ডধারীসহ সারা দেশের প্রায় ১১ লাখ ১৮ হাজার ব্যক্তি ও পরিবারের কাছে এ কার্ডের আওতায় চাল বিক্রি শুরু হয়েছে। চলবে রাত ৮টা পর্যন্ত। নভেম্বর মাসে শুক্রবার ছাড়া সপ্তাহের ছয়দিন এ কার্যক্রম চলবে বলেও জানান তারা। এ বিষয়ে খাদ্যমন্ত্রী আব্দুর রাজ্জাক রোববার তার কার্যালয়ে সাংবাদিকদের জানান, খোলা বাজারে বিক্রির (ওএমএস) চালের মতো এর দামও কেজি প্রতি ২৪ টাকা ধরা হয়েছে। খাদ্যমন্ত্রী বলেন, “ঈদের আগেই এ কার্যক্রম শুরু করা হয়েছিলো। কিন্তু তখন বাজারে এ চালের তেমন চাহিদা ছিল না। তাই বন্ধ করে দেওয়া হয়। এখন আবার চালু করা হচ্ছে।” মন্ত্রী জানান, প্রথমে শুধু নভেম্বর মাসকে মাথায় রেখেই এটি চালু করা হয়েছে। প্রয়োজনে ডিসেম্বর মাসেও এ কার্যক্রম চালানো হবে। ন্যায্যমূল্যের চাল বিতরণ এবং ওএমএস কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে পরিচালনা এবং উপযুক্ত ব্যক্তিদের এ চাল পাওয়া নিশ্চিত করার কার্যক্রম স্থানীয় সংসদ সদস্য ও ওয়ার্ড কমিশনার এবং মহাজোট নেতারা তদারকি করবেন। গত ১৯ অগাস্ট থেকে এফপ

চাল বিক্রির কার্যক্রম শুরু হয়েছে সোমবার। কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, সোমবার সকাল ৮টায় ঢাকা শহরের পাঁচ লাখ ৮০ হাজার কার্ডধারীসহ সারা দেশের প্রায় ১১ লাখ ১৮ হাজার ব্যক্তি ও পরিবারের কাছে এ কার্ডের আওতায় চাল বিক্রি শুরু হয়েছে। চলবে রাত ৮টা পর্যন্ত। নভেম্বর মাসে শুক্রবার ছাড়া সপ্তাহের ছয়দিন এ কার্যক্রম চলবে বলেও জানান তারা। এ বিষয়ে খাদ্যমন্ত্রী আব্দুর রাজ্জাক রোববার তার কার্যালয়ে সাংবাদিকদের জানান, খোলা বাজারে বিক্রির (ওএমএস) চালের মতো এর দামও কেজি প্রতি ২৪ টাকা ধরা হয়েছে। খাদ্যমন্ত্রী বলেন, “ঈদের আগেই এ কার্যক্রম শুরু করা হয়েছিলো। কিন্তু তখন বাজারে এ চালের তেমন চাহিদা ছিল না। তাই বন্ধ করে দেওয়া হয়। এখন আবার চালু করা হচ্ছে।” মন্ত্রী জানান, প্রথমে শুধু নভেম্বর মাসকে মাথায় রেখেই এটি চালু করা হয়েছে। প্রয়োজনে ডিসেম্বর মাসেও এ কার্যক্রম চালানো হবে। ন্যায্যমূল্যের চাল বিতরণ এবং ওএমএস কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে পরিচালনা এবং উপযুক্ত ব্যক্তিদের এ চাল পাওয়া নিশ্চিত করার কার্যক্রম স্থানীয় সংসদ সদস্য ও ওয়ার্ড কমিশনার এবং মহাজোট নেতারা তদারকি করবেন। গত ১৯ অগাস্ট থেকে এফপ