ক্যাটেগরিঃ স্বাস্থ্য

 

ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রোগীর মৃত্যু হওয়ার আগেই রোগীকে মৃত ঘোষণা করা হয়েছে ।মৃত ঘোষণা করার তিন ঘন্টা পর রোগী নড়েচড়ে উঠেছে । রোগীর স্বাভাবিক মৃত্যু হওয়ার আগেই তাকে মেরে ফেলা হয়েছে । এই ঘটনার তদন্তে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ চার সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেছে । রোগীর  চিকিৎসা করার দায়িত্ব যার ছিলো সে ডাক্তার কেন মৃত না সত্ত্বেও রোগীকে মৃত ঘোষণা করেছে তার প্রকৃত কারণ উদঘাটন হওয় একান্ত প্রয়োজন । ঘটনার তদন্তে যেহেতু তদন্ত কমিটি গঠন হয়েছে সেহেতু আমরা অপেক্ষা করছি তদন্ত প্রতিবেদন পাওয়া পর্যন্ত । যদি মৃত্যু ঘোষণার জন্যে করো পেশাগত দায়িত্ব পালনের ক্ষেত্রে শিথিলতা পাওয়া যায় তাহলে দায়ী ব্যক্তির জন্য উপযুক্ত ব্যবস্থা নেওয়া একান্ত প্রয়োজন । তদন্ত প্রতিবেদন যেন হিমাগারে চাপা না পড়ে। স্বাভাবিক মৃত্যুর আগেই অস্বাভাবিক মৃত্যু চাইনা।

পর্যাপ্ত কোন পরীক্ষা নিরীক্ষা করা ছাড়াই অসহায় নারী কে মৃত্যু ঘোষণা করেছিল কর্তব্যরত ডাক্তার । ইতোমধ্যে ঘটনার জন্য দায়ী ডাক্তারকে চিহ্নিত করা হয়েছে বলে বিবিসি’তে প্রকাশিত সংবাদে জানা গেছে । যেদিন অসহায় মহিলা রোগীকে মৃত ঘোষনা করা হয় তার তিনদিন আগে মহিলাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল । মহিলাটির সাথে কেউ না থাকায় হাসপাতাল থেকে “জঞ্জাল” দূর করার জন্যে এভাবেই জীবিত  ৪৫ বৎসরের অসহায় মহিলাকে মৃত ঘোষণা করা হয়েছিল । এভাবেই অবহেলা আর বঞ্চনার শিকার  হয় আমাদের দেশের গরীব জনগণ । অথচ জনগণের দেওয়া করের টাকায় পরিচালিত হয় এসব হাসপাতাল ।