ক্যাটেগরিঃ মুক্তমঞ্চ

 

আপনার জীবনের প্রথম দুজন বন্ধুর কথা মনে আছে তো! কেমন আছেন তারা। আপনার জীবনে যে মানুষটির সাথে আপনার সর্বপ্রথম সখ্যতা গড়ে উঠেছিল, নির্ভেজাল ও কৃতিমতাবিবর্জিত ভালবাসার জন্ম হয়েছিল যে আপনাকে নিয়ে বেশী চিন্তা করত আপনার ভাল মন্দ তাকে গভীর ভাবে ভাবিয়ে তুলত তাকে কাছের বন্ধু ভাবতে আপনার আপত্তি নেই তো!

আমাদের জীবনের প্রথম সখ্যতা গড়ে উঠা সেই কাছের বন্ধু মা অতঃপর বাবা, কেমন আছেন তারা। আপনার শত ব্যস্ততার মাঝে কি একটু খানি সময় হয় জানতে মা, মাগো কেমন আছ তুমি! তোমার কি শরীরটা খারাপ লাগছে! জানতে চেয়েছেন মা তোমার কিছু খেতে ইচ্ছে করছে? চল আজ বাইরে থেকে ঘুরে আসি। আপনি আমি তো কত বাইনা ধরেছে মা আমি এটা খাব ওটা খাব আমাকে এটা কিনে দাও দিতে হবে, যে আবদার টি আপনার সন্তান আপনার কাছে করছে! আমাদের মা-বাবা হয়ত সামর্থের কারনে আমাদের অনেক ইচ্ছাই পূরন করতে পারেনি। আমরা কি আমাদের বৃদ্ধ বাবা-মাকে একটু সময় দিতে পারি না! আপনি এত বড় হয়েছেন আপনার বাবা এখনও বাজারের ব্যাগ হাতে নিয়ে রোজ আপনাকে বাজার করে খাওয়ায়! কখনো কি আপনার ইচ্ছে করেনা …….!

চলুন একটু আত্মজিজ্ঞাসা করিঃ

১\ আপনার মা-বাবার সাথে সুন্দর করে না রুক্ষ ভাষায় কথা বলেন?

২\আপনার মা-বাবা যদি আপনার সাথে থাকেন, আপনি অনেক সৌভাগ্যবান সন্তান। প্রতিদিন তাদের সাথে কুশল বিনিময় হয়? মন খারাপ বা অসুস্থ হলে জানতে চান কি হয়েছে।

৩\ আপনার মা বাবা যদি দুরে থাকে প্রতিদিন একবার সময় হয় কথা বলার জন্য- ফোনে হয় দু’এক মিনিট?

৪\ আপনি জানেন কি- মা-বাবার সাথে কুশল বিনিময়ে তারা কত খুশি হন- যেমন- মা কি খেয়েছন, ওষুধ নিয়মিত খাচ্ছে কিনা ইত্যাদি।

৫\ আপনি জানেন কি- মা-বাবার চাহিদা অনেক সীমিত- মন খুলে বলুন এই অল্প রোজগারে তোমাকে খুব বেশী কিছু দিতে পারছিনা এটা তোমার হাত খরচ হিসাবে রাখ। মা-বাবার দোয়ায় আল্লাহ আপনার স্বল্প আয়েও অনেক বরকত দিবেন।

৬\ আপনার আমার চেয়ে হতভাগ্য আর কে আছে যদি আমাদের বাবা মা আমাদের ভয় পায়। মন খুলে কথা বলতে সাহস না পায়!

৭\ আপনার আমার প্রিয়তম মাতা-পিতা দুনিয়া থেকে চির বিদায় নিয়ে চলে গেছে কখন দোয়া করেন আল্লাহতায়ালার কাছে, কিছু দান করেন তাদের নামে! মা বাবার জন্য আল্লাহ পাক আমাদেরকে যে দোয়াটা করতে বলেছেন সেটা হচ্ছে- “হে আমার রব! আমার পিতামাতা যেমনিভাবে আমাকে ছোটবেলায় লালন পালন করেছেন তেমনিভাবে তুমি তাঁদেরকে তোমার রহমতের কোলে লালন পালন কর।

৮\ আমাদের মধ্যে অনেকেই আছেন, বউ পেলে মা বাবার কথা আর মনে থাকে না। স্ত্রী কথামতো সন্তান তার মা বাবার উপর অত্যাচার করে। মা-বাবা আর স্ত্রী দুজনেরই ভিন্ন ভিন্ন স্থান এবং ভিন্ন ভিন্ন মর্যাদা।

আরে এমন অনেক ছোট ছোট প্রশ্ন আপনি নিজেই খুজে পাবেন। আপনি যে ধর্মেরই মানুষ হন না কেন সব ধর্মতেই মা-বাবাকে সর্বচ্চ আসনে বসিয়েছেন। মসজিদ, মন্দির, গীর্জা, ইবাদত, পুজা আরাধনা, আল্লাহ, ঈশ্বর, ভগবান আপনি যা কিছুই বিশ্বাস করেন না কেন মা-বাবার প্রতি যদি আপনার আমার নুন্যতম শ্রদ্ধাবোধ, সদাচার, ভালবাসা না থাকে তবে আমার আপনার চেয়ে হতভাগ্য আর কেউ নেই।

সর্বপরি কথা আপনি আমি যখন মা কিম্বা বাবার আসনে অধিষ্ঠিত হব তখন নিশ্চই বুঝতে পারব।

আমাদের জীবনের প্রথম সখ্যতা গড়ে উঠা সেই কাছের বন্ধু প্রিয়তম মা-বাবার সাথে আমরা বন্ধুত্বের সম্পর্ক গড়ে তুলতে পারব না কেন!! তাহলে আর নিজেকে স্মার্ট কিম্বা আধুনিক ভাবছেন কেন?

আমি জানি আপনারা সবাই প্রিয় বন্ধু মা-বাবাকে অনেক ভালবাসেন এতে কোন সন্দেহ নেই, আমিও খুব ভালবাসি মাকে, মিস করি বাবাকে। অনেক ছোটবেলায় বাবাকে হারিয়েছি, দোয়া করবেন সবার জন্য শুভকামনা রইল।

* অনুগ্রহপূর্বক ভুল-ক্রুটি ক্ষমাসুন্দর দৃষ্টিতে দেখবেন