ক্যাটেগরিঃ খেলাধূলা

 

বাংলাদেশ ক্রিকেটের এখন এমন একটা সময় এসেছে বিশ্ব ক্রিকেট প্রেমীদের কাছ থেকে সমীহ আদায় করে নেবার আর এ গৌরব ২২ গজের ক্রিজে ১১জন ক্রিকেটারের নয় সেটি হয়ে যায় ১৬ কোটি মানুষের অর্থাৎ সেটি হয়ে যায় ১৬ কোটি বাংলাদেশীর। আজ সারা বিশ্ব বাংলদেশ ক্রিকেটকে সমীহ করে কথা বলছে। লিজেন্ড ক্রিকেটাররা যখন বাংলাদেশকে এমন চমৎকার সব মন্তব্য করেন তখন গর্বে বুক ভরে যায় আর অনেক প্রত্যাশার স্বপ্ন দানা বাঁধে।

আমার মনে হয় প্রতিটি ক্ষেত্রে যে উন্নতি আমরা লক্ষ্য করছি তাতে স্বপ্ন দেখা কিম্বা প্রত্যাশা করা দোষের কিছু নয়। আমাদের নতুন প্রজন্মের তরুন ক্রিকেটাররা আমাদের সে স্বপ্ন দেখতে সাহস যুগিয়েছে যেমনটি সমীহ আদায় করে নিয়েছে বিশ্ব বরেণ্য ক্রিকেটারদের কাছ থেকে।

আমাদের ক্রিকেটারদের যে মেধা আছে তা সম্পূর্ণরূপে মেলে ধরার কোন বিকল্প নেই এর জন্য প্রয়োজন কঠোর সাধনা। কঠোর সাধনা ছাড়া যেমনি জন্ম হয়নি স্টিভ ওয়াহ, শচীন, লারাদের তেমনি সাধনা ছাড়া জন্ম নেয়নি সাকিব, তামিম, মাশরাফি, রাজ্জাক, মুশফিকদের। একটি রান অথবা একটি মূল্যবান উইকেটের মূল্য আমরা সাধারন মানুষ মাঠের বাইরে থেকে বুঝতে পারিনা তাই নানা জনে নানা রকম মুখরোচক কথা বলে সেটাকে নানা যুক্তি দিয়ে প্রতিষ্ঠা করতে চায়।

আর বিনয়ের কথা যেটা বললাম এটা শুধু একজন ক্রিকেটার কেন প্রতিটি মানুষের জীবনেই খুব বেশী প্রয়োজন। আর আমার মত একজন সাধারন মানুষকে যতটা বিনয়ী হওয়ার প্রয়োজন তারচেয়ে বেশী প্রয়োজন একজন স্টার বনে যাওয়া মানুষকে। যেমনটি ধরুন না আজ এশিয়া কাপের বিজয় নিয়ে দেশে ফিরে এক ভক্তকে কষে চর বসিয়ে বিশ্ব মিডিয়ার সমালোচনা পাত্র হয়েছেন আফ্রিদি। আর জীবনে বড় হতে হলে মানুষের আশীর্বাদ অবশ্যই প্রয়োজন আছে। আজ আমরা সাকিব, তামিমদের যে ভালবাসী এতাতো করুনা নয় যোগ্যতা দিয়ে আদায় করে নিয়েছেন তারা। বাংলাদেশের ক্রিকেটের ইতিহাসে সামান্য পেছনে ফিরে তাকালে দেখতে পাবেন আশরাফুল, আফতাব, অলক, অপি, শাহরিয়ার নাফিস সহ আরো জলন্ত নক্ষত্রের নাম যাদের খেলার বয়স আছে মেধা আছে কিন্তু ধারাবাহিকতা না থাকার কারনে আসন ছেড়ে দিতে হয়েছে আগমনী তরুনদের।

আমরা যারা এদেশটাকে ভালবেসে একটি খেলা দিয়ে সমগ্র জাতিকে দল-বল, ধর্ম-বর্ন নির্বিশেষে এক বন্ধনে মিলিত করতে চায় তাদের প্রত্যাশা যেন ধারাবাহিকতা বজায় থাকে আমাদের জাতীয় ক্রিকেটের। কোন রাজনৈতিক দল, গোষ্ঠী বা ব্যক্তি স্বার্থ যেন এই ১৬ কোটির ও বেশী বাঙালীর স্বপ্নতে কালো ছোবল না বসাতে পারে সে দিকে সজাগ থাকতে হবে। আর আমাদের ক্রিকেটাররা বয়সে অনেক তরুন তাই বর্তমান শক্তিশালী গনমাধ্যমের সাথে কথাবলতে মাথা যে কোন পরিস্থিতিতে অত্যান্ত ঠান্ডা রাখতে হবে এবং সতর্ক থাকতে হবে, তা না হলে আপনাদের বড় বড় অর্জনগুলো প্রশ্নবিদ্ধ হবে। আর আমরা যারা ক্রিকেটকে ভীষন ভালবাসি মনে প্রানে বিশ্বাস করুন জয় আমাদের আসতেই থাকবে ইনশাআল্লাহ। সুতরাং আরো অনেক বড় জয়ের উম্মাদনা সহ্য করার মত বড় মানসিকতা থাকতে হবে। ক্রিকেটকে যদি সত্যিকারে ভালবাসি তবে সকল দেশ এবং সকল ক্রিকেটারদের প্রতি শ্রদ্ধা রাখতে হবে। তবে আমাদের দেশ জাতি তথা ক্রিকেটকে সবাই সমীহ করবে সমগ্র বিশ্ব।

সর্বোপরি একটি আবেদন তরুন প্রজন্মের ক্রিকেটারদের কাছে -বিনয় আর কঠোর সাধনা ১৬ কোটি বাঙালীর স্বপ্ন তুলে ধরুন আমরা আছি এবং থাকব। বিজয় অক্ষুন্ন থাকুক বাংলাদেশ ক্রিকেটের।