ক্যাটেগরিঃ অর্থনীতি-বাণিজ্য

ব্যাংক ও কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সহযোগীতা দরকার- নিরাপত্তাহীনতায় ক্রেডিট কার্ড!

এখনকার তরুন প্রজন্ম সহ চাকুরজীবি, ব্যবসায়ী প্রায় সকলের মধ্যেই ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার ব্যপক হারে বৃদ্ধি পেয়েছে। গত দু’বছরে বিপুল সংখ্যক মানুষের হাতে পৌছে গেছে ক্রেডিট কার্ড। এর অন্যতম কারন হলো ব্যাংকগুলো গ্রাহকদেরকে খুব সহজশর্তে এই ঋণ সুবিধা দিচ্ছে। এছাড়া এই প্রযুক্তির মাধ্যমে আমরা খুব সহজেই নগদ অর্থ ব্যবহারের না করেই খুব সহজেই কেনাকাটা করতে পারি। এবং অনেকে সখের বসে ক্রেডিট কার্ডে কেনাকাটাকে Prestigious Life Lead করছেন বলে মনে করেন।

যদিও আজকাল এই সুবিধা আপনি ভিসা ডেবিট কার্ডেও পেয়ে থাকবেন, ভিসা ডেবিট কার্ডে আপনার ব্যাংক এ জমাকৃত অর্থ থেকে আপনি কেনা কাটা করছেন আর ক্রেডিট কার্ডে আপনি যা করছেন তার পুরোটাই ব্যাংক ঋণ।

আপনার ক্রেডিট কার্ড দিয়ে যে কেউ কেনাকাটা করতে পারেনঃ
আপনার ক্রেডিট কার্ড দিয়ে যে কেউ কেনাকাটা করে আপনাকে বড় ধরনের বিপদে ফেলে দিতে পারেন। কারন কেনাকাটার সময় সাক্ষর মিলানো হয় না।

এ ক্ষেত্রে ব্যাংক ও কেন্দ্রীয় ব্যাংকের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি এমন কিছু করা যায় কি পস মেশিনে কার্ড দেবার পরে গোপন নম্বার বা কোন পিন কোড গ্রাহক থেকে নিতে হবে। তাহলে আমার মনে হয় বেশ কিছু নিরাপত্তা বলয় তৈরী হয়। আমার মনে নিরাপত্তার বিষয়গুলো ব্যাংকগুলোর গুরুত্ব সহকারে বিবেচনা করা উচিৎ। কেননা গ্রাহকদের উন্নত সেবা প্রদান ছাড়াও এটা একটা সামাজিক দায়বদ্ধতার মধ্যেও পড়ে।

কেননা ক্রেডিট কার্ড হারানো, ছিনতায় কিম্বা খোয়া গেলে এর এর বিশাল বিলের দায়ভার গ্রাহকেই বহন করতে হবে।

এতে কোন সন্দেহ নেই ক্রেডিট কার্ড আমাদের অনেক উপকারে আসে এতে কোন সন্দেহ নেই কিন্তু এর ব্যবহারে নিজেদেরকে যেমন সতর্ক হওয়া দরকার। তেমনি নিরাপত্তার প্রয়োজনে সরকার তথা ব্যাংকগুলোকে এগিয়ে আসা উচিৎ। এছাড়া ও একজন গ্রাহকই আজকাল প্রায় ৪/৫ টা ব্যাংকের ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করছে। অনেকে আবার ঋনের বোঝা বাড়িয়ে এক ব্যাংকের কার্ড দিয়ে অন্য ব্যাংকের বিল পরিশোধ করছেন যা কিনা একটা সময় ভয়াবহ রুপ নিতে পারে। সর্বপরি আমাদের মনে রাখা দরকার ক্রেডিট কার্ড এক প্রকার ঋন আপনি আমি যা খরচ করব তা অবশ্যই পরিশোধ করতে হবে।