ক্যাটেগরিঃ অর্থনীতি-বাণিজ্য

বাংলাদেশে বিনিয়োগের সম্ভাবনা খতিয়ে দেখতে সাহারা ইন্ডিয়া পরিবারের কর্ণধার সুব্রত রায় সহ ২০ সদস্যের একটি প্রতিনিধিদল নিয়ে মঙ্গলবার বিকেলে ঢাকা পৌঁছান। আবাসন খাতে বিনিয়োগের জন্য গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে বুধবার একটি সমঝোতা স্মারকে সই করেন তিনি।

[সংবাদ সূত্র: শুরুতে সাড়ে ১২ কোটি ডলার বিনিয়োগে আগ্রহী সাহারা, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম, ২৫ মে ২০১২]

আবাসন প্রকল্প অথাৎ ঢাকার আশে-পাশে বেশ কয়েকটি উপশহর গড়ে তোলার জন্য সরকার যে পরিকল্পনা নিয়েছে, সাহারা গ্রুপ মূলত সেসব প্রকল্পে অংশগ্রহণে আগ্রহী। বাংলাদেশে কোন বৈদেশিক বিনিয়োগ নিঃসন্দেহে চমৎকার ব্যাপার। কিন্তু মজার বিষয় হল আবাসন প্রকল্পে বিনিয়োগ কতটা জরুরী। বাংলাদেশের মত ছোট দেশে অসংখ্য দেশী কোম্পানী আবাসন প্রকল্পে বিনিয়োগ করছে।

তাছাড়া দেশের বৃহত্তর স্বার্থে প্রথমে জমির মালিকানার বিষয়টা স্পষ্ট হওয়া দরকার সকলের কাছে কেননা বিদেশী কোন কোম্পানিকে জমির মালিকানা দেওয়া যাবে কিনা! যদি তারা ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান হিসাবে কাজ করেন সেটা হয়ত সরকার সহ দেশের বিশিষ্টজনেরা চিন্তা করে দেখতে পারেন।

সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ যে বিষয়টি এই খাতে বিনিয়োগে প্রডাক্টিভ কিছুই নেই আবাসন প্রকল্প তৈরী করে পরবর্তীতে তা বিক্রি করে প্রচুর পরিমানে বৈদেশিক মুদ্রা নিয়ে যাবেন। অর্থাৎ এ দেশ থেকে ভাল একটি ব্যবসা আশা করছেন তারা। যদি উৎপাদনশীল বা কোন শিল্প খাতে চলমান ভাবে বিনিয়োগ করতেন তা হলে দেশের লাভ হত। দেশের মানুষের বৃহৎ কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা হত। যদিও তারা বাংলাদেশে আবাসন খাত ছাড়াও পর্যটন, শিক্ষা, স্বাস্থ্য এবং জ্বালানি খাতে বিনিয়োগের আগ্রহ প্রকাশ করেন। তবে আমাদেরকে চলমান যে চুক্তি সাক্ষরিত হচ্ছে তাতে দেশ কতটুকু লাভবান এবং ভবিষ্যতের যে দেশের ভূমি নিয়ে কোন সমস্যা হবে কিনা এবং তাদের নির্মানকৃত ভবনগুলো প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবেলা করতে কতটা সক্ষম হবে এবং কোন প্রকার সমস্য হলে কি ক্ষতিপূরণ দিবেন সেটা চিন্তা করবেন দেশের সরকার ও বিশিষ্ট জনেরা।

দেশের অর্থনীতিতে আসলে কি প্রভাব ফেলবে এসব বিষযগুলো খুব একটা বুঝিনা বলেই আপনাদের কাছে বিষয়টি জানতে চাচ্ছি আমার এই লেখাটির মাধ্যমে, আশাকরি আপনাদের সুন্দর ও সুচিন্তিত মতামতে অনেক কিছু জানতে পারব। সর্বোপরি আমরা আশা করছি মাতৃভূমির সার্বভৌমত্ব সহ সকল প্রকার দেশীয় স্বার্থ সংরক্ষণ করতে আবেগ দিয়ে নয় সত্যিকারের ভালবাসা নিয়ে আমাদের সরকার, অর্থনীতিবিদ ও জনগন এক মতে পৌছাতে পারবেন।আমাদের জন্মভূমির ও ১৬ কোটির বেশী বাঙালীর প্রানের বাংলার জন্য শুভ কামনা রইল।