ক্যাটেগরিঃ রাজনীতি

বিডি ব্লগে একজন দূর্নীতি বিরোধী ব্লগার রয়েছেন , খুব আশা করেছিলাম আমাদের বিখ্যাত কালো বিড়াল তত্ব প্রবক্তার কালো বিড়ালটাকে একটু খুজে বের করবেন । শ্রদ্ধার সাথে বলছি খুব হতাশ হয়েছি। খুব হতাশ !! যাই হোক, শেষ বয়সে সুরঞ্জিত বাবুকে নিয়ে এমন একটা কলঙ্কময় ঘটনা সৃষ্টি হবে সেটা হয়তো দাদার দূরতম কল্পনাতেও ছিলো না। বিড়ালকে পাটের বস্তার মধ্যে আটকালে যেমন ক্ষিপ্ত হয়ে এদিক সেদিক ঠেলাঠেলি করতে থাকে আমাদের পরম শ্রদ্ধেয় মন্ত্রী মহোদয়ও এখন নিজের মান বাচাতে তেমন করছেন। দাদার কোষ্ঠি বিচারে মনে হয় গলদ ছিলো কোথাও নয়তো এমনতো হওয়ার কথা নয় ! দাদা নাকি বলেছেন বাংলাদেশে এর আগেও এ ধরনের ঘটনা ঘটেছে। তাই বিচার বিভাগীয় তদন্তের দাবী নাকচ করে দিয়েছেন তিনি। এপিএস ঘুষের টাকা সহ ধরা খাওয়ার তদন্তের ভাঁড় (ভার) দিয়েছেন তার পিএস কে !! হায়রে সেলুকাস…সৃষ্টিকর্তা এমন একটা দেশে আমাদের পাঠালেন বিশ্বাস করার মত একটা মানুষও পাওয়া যাবে না ? কি চমৎকার মুখভঙ্গি করে টেলিভিশন ক্যামেরার সামনে বাংলাদেশের জনগনকে নসিহত করেছেন এতোদিন !! নিয়তির কি পরিহাস, পাপের প্রায়শ্চিত্ত হয়তো এভাবেই করতে হয়। তবে সবচেয়ে কষ্টের বিষয় হচ্ছে গাড়ী চালক আলী আজমকে হয়তো শেষ পর্যন্ত ইতিহাসের পূনরাবৃত্তির ধারাবাহিক পরিণতিই বরণ করতে হবে যার আলামাত আমরা ইতিমধ্যেই দেখতে পাচ্ছি। সত্য জানার জন্য হয়তো আমাদের ভবিষ্যতের উপরেই নির্ভর করতে হবে। তবে প্রশ্ন হচ্ছে আর কতদিন ? আর কতদিন এমন ভন্ড শাসক দ্বারা শাসিত হব আমরা?