ক্যাটেগরিঃ রাজনীতি

দেশ এর বর্তমান আবস্থা যে ভাল না তা মনে হয় সব সচেতন মানুষই জানেন। দেশ এর এই অবস্থার জন্য অনেকে বিএনপি,অনেকে আওয়ামী লীগকে দায়ী করবেন।কিন্তু আমি মনে করি এই জন্য আমরা যারা নিজেদেরকে বাংলাদেশ এর নাগরিক হিসাবে পরিচয় দিই তারাই দায়ী।

বাংলাদেশে গণতান্ত্রিক সরকার ব্যাবস্থা পুনঃপ্রতিষ্ঠিত হবার পর থেকে পালাক্রমে দেশ এর ক্ষমতায় এসেছে দুটি দল।এটা যেন একটা অলিখিত নিয়ম হয়ে দাড়িয়েছে।তাই যারা যখন ক্ষমতায় গেছে তখন যা খুশি তাই করেছে কারণ তারা বুঝে গেছে সামনের নির্বাচনে বাংলার জনগন তাদের ক্ষমতায় না আনলেও ক্ষতি নাই,তার পরের বার তো বাংলার জনগন তাদের ক্ষমতায় আনবেই।

মানুষ একবার প্রতারিত হয়,দুই বার প্রতারিত হয় কিন্তু আমরা বাংলার জনগন চার চার বার প্রতারিত হয়েও মনে হয় আমাদের চোখ খোলেনি। ভবিষ্যতেও হয়ত আমরা সেই অলিখিত নিয়ম অনুযায়ী এই দুই দল এর এক জন কে ক্ষমতায় বসাবো।এখানে হয়ত বলা যেতে পারে যে দেশে তো কোন তৃতীয় অপশন নাই।কিন্তু আমার মতে আগে ছিল না কিন্তু এখন আছে,আর সেটা হচ্ছে না ভোট। যতক্ষন না পর্যন্ত সৎ যোগ্য শিক্ষিত লোক প্রার্থী হিসাবে না পাওয়া যাবে ততক্ষণ পর্যন্ত যদি আমরা না ভোট দিতাম তাহলে আজ দেশ এর এই অবস্থা হত না।অনেকে বলে না ভোট দিলে নাকি ভোট নষ্ট হয়।ভোট হচ্ছে আপনার মতামত,আর মতামত কিভাবে নষ্ট হই আমি জানি না।দশ জন লোক যাকে ভোট দিয়েছে তাকে ভোট না দিলে যে আপনার ভোট নষ্ট হবে এমনটা ভাবার কোনো কারণ আছে বলে আমি বিশ্বাস করি না।

আমি বিশ্বাস করি দেশ তথা দেশ এর জনগনের মুক্তিতে এই না ভোট হতে পারে অন্যতম হাতিয়ার।