ক্যাটেগরিঃ নাগরিক আলাপ

এতদিন দেশপ্রেম বলতে জানতাম ও বুঝতাম যে, যারা দেশকে ভালবাসে, দেশের উন্নতির জন্য সর্বস্ব বিলিয়ে দেয় এমনকি নিজের জীবন দিতেও কুণ্ঠাবোধ করে না সেই প্রকৃতঅর্থে দেশপ্রেমিক। কিন্তু আজ এ কি শুনি যে, দেশের বারোটা বাজিয়ে, দেশের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করে দুর্নীতির প্রমাণ দিলেও না কি দেশপ্রেমিক হওয়া যায়।

বাংলাদেশ যে মগের মুল্লুকে পরিণত হয়েছে তা আবারো প্রমাণ করল দুর্নীতিবাজকে দেশপ্রেমিক আখ্যা দিয়ে। সব সম্ভবের দেশ আমাদের এই অভাগা মাতৃভূমি । তাকে নিয়ে যে যেভাবে পারে খেলছে আবার ভেঙ্গে ফেলছে । মাঝে মাঝে প্রশ্ন জাগে কতই তোমার সহ্যক্ষমতা?

গাধা জল ঘোলা করে খায়। জল যদি খাবি তো আগে খেলি না কেন? রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রের রক্ত রঞ্জিত না করলেও তো হত। রক্তের লাল রং সংগ্রামের প্রতীক । আর কতজনকে প্রাণ দিয়ে প্রমাণ করতে হবে যে, আমি সংগ্রাম করছি । রক্তের এই হোলি খেলা কবে শেষ হবে?

অপরাধ করে তা না স্বীকার করার প্রবণতা আরো বড় ধরনের অপরাধ। কেউ যদি অপরাধ করেই থাকে তা ঢাকার জন্য এত মিথ্যাচারেরই বা কী প্রয়োজন? পাবলিক কি এতই বোকা নাকি যে আপনারা কি করছেন সে সম্পর্কে কেউ অবগত নয় । মিথ্যা দিয়ে সত্যকে কখনও লুকিয়ে রাখা যায় না । আমাদের চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য হল আমরা ইতিহাস থেকে শিক্ষা গ্রহন করি না।

ভাবগতিক দেখে মনে হচ্ছে অভিধানে “দেশপ্রেমিক” শব্দটার নতুন সংজ্ঞা দেওয়া দরকার । যেহেতু বলেছিলাম সব সম্ভবের দেশ সেহেতু এই পরিবর্তনও সম্ভব । আসুন আমরা সবাই মিলে এই পরিবর্তনের জন্য জোর ও যৌক্তিক দাবি তুলে ধরি যার যার অবস্থান থেকে।