ক্যাটেগরিঃ ক্যাম্পাস

 

আমি বাংলাদেশী, বাংলাদেশে আমার জন্ম । আমি বাংলাদেশের দালাল । বাংলাদেশের দালালি করে যদি দেশের উন্নতি করতে পারি তবে আমি ধন্য হব, শান্তিতে চিরনিদ্রায় যেতে পারব । আমি গ্রামে বড় হয়েছি । তাই ছোটবেলায় আমার পৃথিবী ছিল খুবই ছোট । চিন্তার পরিধি ছিল সীমিত । তখন দেশ, রাজনীতি তেমন বুঝতাম না । আমাদের পরিবার রাজনৈতিক মনস্ক ছিল না । তাই রাজনীতির ধারনা মনকে প্রভাবিত করত না । কিন্তু কিছু ছোট ছোট অসুবিধা আমাকে প্রায়ই পীড়া দিত । যেমন আমার প্রাইমারী স্কুলের সহপাঠী শুধু টাকার জন্য স্কুল থেকে ঝড়ে পড়েছিল । সমাজ অথবা রাষ্ট্র কেউ তাকে বড় হবার পথ খুলে দেয় নাই । সে অতটুকু বয়সে সংসারের বোঝা মাথায় চেপে নিতে বাধ্য হয়েছিল ।

আমি যখন হাইস্কুল থেকে কলেজে ভর্তি হই তখন থেকে আমার দৈনিক বাংলা পত্রিকা পড়া শুরু হয়েছিল । প্রতিদিনই পত্রিকার পাতা খুলে দেখতাম, পড়তাম । ভালো লাগত আবার খারাপও লাগত । মিশ্র অনুভূতি ছিল দেশ সম্পর্কে । বিশ্ববিদ্যালয়ে যখন পড়া শুরু করেছিলাম তখন থেকে “রাজনীতি”র সংজ্ঞা বুঝতে শুরু করি এবং সেটা কতটুকু নোংরা হতে পারে তার ধারনা পাই । তখন থেকেই রাজনীতি’র প্রতি অনীহা শুরু । খুব কাছ থেকে ছাত্র রাজনীতি, রাজনৈতিক দলের পৃষ্ঠপোষকতায় ছাত্র রাজনীতি’র নগ্ননৃত্য দেখার সৌভাগ্য ( আমি দুর্ভাগ্য বলি ) হয়েছিল । ছাত্ররা ভালই নাচতে জানে যখন যে দল ক্ষমতায় আসে তাদের দ্বারা। মনে হয় যেন পৃথিবীতে জন্ম হয়েছে তাদের ছাএ রাজনীতি করে শিক্ষাজীবন অতিবাহিত করা, ক্যান্টিনে/ দোকানে ফ্রি খাওয়া, বিপক্ষ ছাএ রাজনৈতিক দলকে অগ্রাহ্য/ মারপিট/ক্যাম্পাস ছাড়া করা ইত্যাদি । একই দলের বহু বিভাজনের মাধ্যমে অন্তঃকোন্দল সৃষ্টি, রাজনীতি’র আশীর্বাদপুষ্ট শিক্ষকদের সাথে ওঠাবসা/সহানুভূতি আদায়, টেন্ডারবাজি আর কত বাহারি আয়োজন । এসকল কারনে আমি ব্যক্তিগতভাবে ছাএ রাজনীতি অপছন্দ করতাম, এখনও করি । যেসকল মহৎ উদ্দেশ্য নিয়ে উপমহাদেশে ছাএ রাজনীতি’র ইতিহাস, আজকালকার ছাত্রদের মধ্যে সেই উদ্দেশ্য দূরীভূত, নেই বললেই চলে। এমনকি নিজের দলের মহান নেতাদের জীবনাদর্শ অনুসরন করতে ব্যর্থ । এত কিছুর পরও সব নির্বাচিত সরকার কখনও ছাএ রাজনীতি বন্ধে কোন কার্যকরী পদক্ষেপ নেয় নাই । তারা চায় ছাএ রাজনীতি টিকে থাকুক । লাভ অনেক। ক্যাম্পাসে নিজেদের অস্তিত্ব জানানো, শিক্ষকদের মধ্যে রাজনীতি’র বীজ বপন করে শিক্ষার পরিবেশ বিনষ্ট করা, একটি মেরুদণ্ডহীন জাতি উপহার দেওয়া, ভবিষৎ প্রজন্মকে অন্ধকারের যুগে হাতছানি দেখানো, দেশকে একটি অনুন্নত রাষ্ট্রে পরিণত করা, জনসাধারনকে বোকা বানিয়ে বছরের পর বছর ক্ষমতায় গিয়ে দেশ পরিচালনা করা । আমরা এতই অন্ধ যে এগুলোকে খুবই গ্রহনযোগ্য বলে ধরে নেই । মাঝে মাঝে মনে হয় আমাদের অনুভূতি ভোতা হয়ে গেছে । আমরা চোখ দিয়ে যা দেখছি, কান দিয়ে যা শুনছি সবই যেন স্বপ্নে ঘটছে । কবে আমাদের স্বপ্ন ভঙ্গ হবে ? কবে আমরা আবার জাগব?