ক্যাটেগরিঃ অর্থনীতি-বাণিজ্য

আজকে একটা ইমেইল পেলাম, যার মূল বিষয় “বাংলাদেশি ভিসা ব্যান ইন ইউএই”। যার মধ্যে রয়েছে অধ্যাপক ডঃ মুহাম্মদ ইউনূস ও ইউএই রাষ্ট্রপতি খলিফা বিন জায়েদ আল নাহিয়ান এর ব্যক্তিগত সম্পর্ক! প্রতিশোধ….প্রতিহিংসা……

“Send back 500 thousand Bangladeshi!!

আমি যার কাছ থেকে ইমেইল পেলাম, উনি একটি গ্রুপ অফ কোম্পানিতে ফাইনান্স ডিরেক্টর হিসেবে কর্মরত আছেন, যাদের বাৎসরিক টার্ন ওভার ৫০০ মিলিয়ন ডলারের উপরে (২০১০) । ব্যক্তিগত ভাবেও তিনি কোন দলের সাথে সম্পৃক্ত না।

ইউএই সরকার তাদের শ্রম বাজারে ভারসাম্য আনার চেষ্টা করছে, যেমনটা সৌদি সরকার করেছে। সংযুক্ত আরব আমিরাতের অনেক মেগা প্রোজেক্ট আছে, যেখানে অনেক শ্রমিক কাজ করছে এবং আরও শ্রমিকের দরকার হবে। বড় আবকাঠামো নির্মাণে একসাথে অনেক শ্রমিক দরকার হয়, সাধারণত ওই শ্রমিকদের ক্যাম্প করে রাখা হয় যাতে এক সাথে ১০০০ জন থাকে ৫০০০ জন শ্রমিকও হতে পারে।

আমার ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতা থেকে বলছি, যদি আমাদের অনুপাত বেশি হয় তাহলে কেও কিছু বলার সাহস পায়না। একজন প্রোজেক্ট ম্যানেজার তার সাধারণ শ্রমিককে নির্দেশ দিতে পারে না।খাবার, রুম, টাকা পয়সা নিয়ে তো মহা মারামারি আছেই। এই প্রেক্ষাপটে অনেক কোম্পানি তাদের শ্রমিকদের একটা ভারসাম্য রাখার চেষ্টা করে।

কাকে বিশ্বাস করবো বুঝতে পারছি না!!!