ক্যাটেগরিঃ নাগরিক আলাপ

রুপকথা মানেই তো রুপক আকারে বাস্তব অবস্থার ব্যাখ্যা করা। কোন জটিল বিষয়কে শিশুদের সহজ করে বোঝানোর জন্যই তাদেরকে নানা রূপকথার গল্প শোনানো হয়। প্রতিটি রূপকথাতেই (ঠাকুরমার ঝুলি-রাশান রুপকথা) একটি মেসেস থাকে, যা শিশুদেরকে বর্তমান সমাজ অবস্থা/ব্যবস্থাকে তাদের মত করে বিশ্লেষণ করার শিক্ষা দেয়। আর তাই শিশুরা যখন সেই মেসেস গুলোর (সদা সত্য কথা বলিবে!!) সাথে বর্তমানের মিল খুঁজে না পেয়ে হাজারটা প্রশ্ন করে “সঠিক”টাকে জানতে চায়। আমাদের উচিৎ তাদের প্রশ্নে বিরক্ত না হয়ে “সত্য”টাকে প্রকাশ করা।

আর বাচ্চাদের রূপকথা শুনানোর মূল দুটি উদ্দেশের একটি হচ্ছে, গল্পের ছলে বর্তমান জীবন যাত্রার “নীতি কথা/মূল্যবোধ” সম্পর্কে জ্ঞান দান এবং অন্যটি হচ্ছে তাদের “কল্পনার জগত”কে বিকশিত করা।
রূপকথার “পাখি/পরি”র মত ডানা মেলে ওড়ার স্বপ্নজালে আটকে পড়েই তো, আজকের চন্দ্র অভিযান, নয়কি?

আপনি কি সাগর-রুনির অবুঝ শিশুটিকে, “কে আমাদের রাষ্ট্র প্রধান, কে আমাদের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, কি তাদের ভুমিকা, what does it mean by “৪৮ ঘণ্টার আল্টিমেটাম” এসব কপচাবেন, নাকি তার “মায়ের কাছে যাব” বলে কান্না থামানোর জন্য, “ এক যে ছিল আজব দেশ, সেখানে প্রতি ৫ বছর অন্তর রাজা বদল হয়,………… সেনাপতিরা বারংবার যুদ্ধে (দায়িত্বে) পরাজিত হলেও নির্লজ্জের মত স্বপদে টিকে থাকেন…………অসংখ্য দৈত্য দানবের তান্ডবে অতিষ্ঠ হয়ে তোমার মা-বাবা আজ ঐ চাঁদের বুকে পাড়ি জমিয়েছে, ………………” এমনটি বলার চেষ্টা করবেন?

“হরতাল কেন ডাকা হয়”? শিশুর এমন প্রশ্নে, আপনি নিশ্চয় রাজনৈতিক জটিল সমীকরণ বিশ্লেষণে বৃথা চেষ্টা না করে, কল্প-কথার ছলে শিশুটির নাছোড়বান্দা “হাজার”টা প্রশ্ন থেকে রেহাই পাবার পথ খুঁজবেন!

আরেকটি কথা, আজকের দিনের ইট-পাথরের চার দেয়ালে আটকে পরা শিশুটির “চিন্তা-চেতনা”কে “চাঁদের বুড়ি চড়কা কাটে” এই রূপকথার মাধ্যমেই ঘরের জানালা দিয়ে শিশুটির কল্পনার জগতটাকে নিয়ে যেতে পারেন ঐ সুদূর “Galaxy” তে।

সুতরাং, “শিশুদেরকে রূপকথা শোনানো খুব একটা ভাল কাজ আমার কাছে কখনোই মনে হয়নি……………” এর মত করে বলে, কোমলমতি শিশুদেরকে শিক্ষাদানের এমন সঠিক মাধ্যমকে এড়িয়ে যাবার কোন সুযোগ আছে বলে অন্তত আমি মনে করি না।

বাচ্চাদের নিয়ে বিভিন্ন ‘কিংডম’ এ যাওয়ার অথবা দামী দামী ‘Day care’ সেন্টার এ বাচ্চাদের রাখার পাশাপাশি যদি আমরা, তাদের জন্য আরও দুটি বিষয়, গ্রাম-বাংলার জীবনযাত্রার প্রত্যক্ষ পরিচিতি নিশ্চিতকরণ এবং আরেকটি হচ্ছে, “………………………………” (আপনার সুচিন্তিত মতামত, যদি থাকে!)

আর শিশুর বয়স বৃদ্ধির কথা কিংবা বাস্তব (বর্তমান) – অবাস্তব (রুপকথার) এর “Conflict” নিয়ে যে দুর্ভাবনার কথা বলা হচ্ছে, তার পরিপ্রেক্ষিতে বলতে পারি, শিশুটি যখন এমনই একটা বয়সকে অতিক্রম করবে, তখন সে নিজেই উপলব্ধি করবে “ওটা” ছিল রূপকথা, কিন্তু একই সাথে সে বুঝতে সক্ষম “বাস্তব- অবাস্তব” এর যোগসূত্রটা কি বা কোথায়।

(বিঃ দ্রঃ আমার এ লেখাটি জনাব, এস, এম আখিউজ্জামান মেনন এর পোস্ট “একটি চমৎকার কাজের সন্ধান দিচ্ছি” এবং এ সংশ্লিষ্ট মতামতের পরিপ্রেক্ষিতে লেখা)

আমার কথাটি ফুরোল, নটে গাছটি মুড়োল।।