ক্যাটেগরিঃ দিনলিপি

অনেকদিন পর পর আপার বাসায় যাওয়া হয়। আমি আপার বাসায় গেলাম। আপা খুব ব্যস্ত ছিল। আমাকে বাসায় একা রেখে চলে গেল তার কাজে। বাসা পুরাই খালী। স্মোকিংয়ের অভ্যাস আছে। সুতরাং ধরিয়ে ফেললাম এক শলাকা। মনের সুখে টানছি। সদর দরজা খোলা কিন্তু সেটা খেয়াল করতে পারি নাই। হঠাৎ দরজায় ধাক্কাধাক্কি। ভয় পেয়ে গেলাম। ভাবলাম বড় আপা আসলো কিনা। কাছে গিয়ে দেখলাম, না- আপা না। সমবয়সী একটা ফেমিনিন জেন্ডার। আমাকে সিগারেটের নানা ক্ষতিকর দিক গুলো আবার আবার স্মরন করিয়ে দিচ্ছিল। আমি তো ভাবলাম, বাড়িওয়ালার মেয়ে কিনা!! ভয়ে বারবার ‘সরি’ বলতে লাগলাম। আর খাব না। আর কত কি! বেশ কিছুক্ষন ভয়ে অস্থির থাকলাম। আপা কে আবার বলে দেয় কিনা। আপা তখনও জানতো না আমি স্মোক করি। সন্ধ্যার দিকে আপা বাসায় ফিরে। সেই চিজ এবার বাসার ভিতরে ঢুকলো। আমি তখন আতঙ্কের শেষ সীমানায়। মেয়েটা চলে যাবার পর বেশ কিছুক্ষন সময় কেটে গেল। দেখি আপা কিছুই বলছে না। শেষপর্যন্ত আপাকে জিজ্ঞেস করেই ফেললাম, মেয়েটা কে? আপা বললো- বাড়ীওয়ালার কাজের মেয়ে।