ক্যাটেগরিঃ আইন-শৃংখলা

দেশের দক্ষিণ পশ্চিম অঞ্চলের ভীতিকর ইতিহাস সবার ই জানা। বিশেষ করে ঝিনাইদহ এর হরিনাকুণ্ডু, শৈলকূপা, চুয়াডাংগার আলমডাঙ্গা আর কুষ্টিয়ার ই বি থানার জনগণ বছরের পর বছর একই চিত্র দেখে আসছে, সেটা হল চাঁদাবাজি, মুক্তি পণ , খুন , অপহরণ সহ সব ধরনের অপরাধ এ এই জনগোষ্ঠীর জীবন দুর্বিষহ। যখন যে সরকার ই ক্ষমতায় থাকুক না কেন এই জনপদের চিত্র কমবেশি একই রকম থাকে। তবে কী সরকার ব্যর্থ এই জনপদের শান্তি নিশ্চিত করতে ? কিন্তু কেন ? আমার জানা মতে এখানে যারা এই সব অপরাধের সাথে জড়িত তারা গ্রামের অশিক্ষিত / সল্প শিক্ষিত উঠতি বয়সের যুবক। কিন্তু কথা হল কে বা কারা তাদেরকে এই পথে আনছে বা আসতে বাধ্য বা অনুপ্রাণিত করছে ? স্থানীয় প্রশাসন কেন সেই অন্ধকারের গডফদারদেরকে নির্মূল করতে পারে না? সম্প্রতি এই চক্রটি বেপরোয়া হয়ে উঠেছে, তার ই একটি খবর স্থায়ীয় পত্রিকাতে দেখলাম সুদূরে বসে।

১৯৯৮ সাল আমি তখন কলেজের ছাত্র, একটি কাজে হরিনাকুণ্ডু থানা শিক্ষা অফিসে একটি সরকারী ফর্ম (যা বীনা মূল্যে বিতরণ যোগ্য ) আনতে গিয়ে শুনলাম এখনো (তখন ) আসেনি , অফিস হতে বের হতেই এক বন্ধুর সাথে দেখা, বিস্তারিত শুনে বলল, রাস্তার পাশের দোকান গুলোতে খোঁজ কর পাবি, সত্যেই তাই পেলাম এক দোকানে দাম ২০ টাকা কিনে নিলাম, তার পর সোজা থানা নির্বাহী কর্মকর্তার কক্ষে গিয়ে জানতে চাইলাম কারণটা কী, যেটা আপনার অফিস হতে বিনা মূল্যে বিতরণ হবার কথা, অথচ আপনার অফিস সহকারী বলে দিলেন এখনো আসেনি অথচ সেটা পাশের দোকানে ২০ টাকায় বিক্রি হষ্চে। ভদ্রলোক শান্ত মেজাজে জানতে চাইলেন আমি কী করি মনে পেশা কী, বললাম ছাত্র, কোথাকার বললাম সরকারী কলেজের , তখন উনি বললেন তোমার কাছেও আমার কিছু জানতে চাওয়া আছে, আগে তার জবাব দাও। তার পর তিনি যা বললেন সেটা রীতিমতো অবাক করার মত। তিনি বললেন আমি (নামটা ভুলে গেছি ) এই থানা নির্বাহী কর্মকর্তা, মাসিক বেতন সব মিলিয়ে ১০-১৫ হাজার টাকার বেশি না অথচ আমাকে কেন প্রতিমাসে ২০-২৫ হাজার টাকা চাঁদা দিতে হয়, বাকি টাকা কোথায় পাব ? থানা, পুলিশ সবই তো আমার হাতে !!!!!

সেই কর্মকর্তার কথাতেই প্রমাণ করে এই রক্তাক্ত জনপদের অশান্তির শিকড় কোথায় ? নিশ্চয়ই স্থানীয় রাজনীতি এর সাথে কোনও না কোনও ভাবে জড়িত, তা না হলে ওই সব অপরাধীরা এত শক্তি পায় কোথায় ? এমন ঘটনাও দেখা গেছে পুলিশকে চ্যালেঞ্জ করে সেই নির্দিষ্ট দিনে আসামি জেল হতে মুক্ত হয়ে সেই পুলিশকে (যে তাকে গ্রেপ্তার করেছিল ) কুপিয়ে জখম করেছে। কারা এই অপশক্তিকে বছর বছর পুষে আসছে ? নিচের লিংকটি দেখুন –

দৈনিক মাথাভাঙ্গা