ক্যাটেগরিঃ চারপাশে


নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

আজ দেশের বৃহত্তম পিপিপি ভিত্তিক প্রকল্প ঢাকা এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ের নির্মাণ কাজের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করা হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আনুষ্ঠানিকভাবে এক্সপ্রেসওয়ের নির্মাণ কাজ উদ্বোধন করবেন। যোগাযোগ মন্ত্রণালয়ের সেতু বিভাগ এ উপলক্ষে ঢাকার বনানীস্থ আর্মি স্টেডিয়ামে সকাল ১০টায় এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে। এক্সপ্রেসওয়ের নির্মাণ কাজ সরকারের মেয়াদকালেই শেষ হবে বলে সরকার আশাবাদী। প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হলে ঢাকা মহানগরীর যানজট অনেকাংশে হ্রাস পাবে।

উদ্বোধন অনুষ্ঠানে যোগাযোগমন্ত্রী সৈয়দ আবুল হোসেন বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন। এছাড়া অনুষ্ঠানে থাইল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রীর প্রতিনিধি ও থাইল্যান্ড ট্রেডের প্রেসিডেন্ট কিয়াট সিথারামোরনসহ থাই সরকারের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত থাকবেন।

গত ১৯ জানুয়ারি এক্সপ্রেসওয়ে নির্মাণের লক্ষ্যে সরকারের সঙ্গে বিনিয়োগকারী প্রতিষ্ঠান ইটালিয়ান-থাই ডেভেলপমেন্ট পাবলিক কোম্পানি লি. এর সঙ্গে চুক্তি সই হয়। ঢাকার শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর হতে মহাখালী-মগবাজার-কমলাপুর-যাত্রাবাড়ী হয়ে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের কুতুবখালী পর্যন্ত ২টি লিংকসহ এক্সপ্রেসওয়েটি হবে প্রায় ২৬ কিলোমিটার এবং ঘূর্ণায়মান পথসহ হবে ৩২ কিলোমিটার দীর্ঘ। এর একটি লিংক থাকবে হোটেল সোনারগাঁও এর পেছনে অপরটি থাকবে তেজগাঁও সাতরাস্তা হয়ে ফার্মগেট পর্যন্ত।

বক্স-গার্ডারে নির্মিতব্য এক্সপ্রেসওয়েটি নির্মাণে ব্যয় ধরা হয়েছে ৮ হাজার ৭শ’ তিন কোটি টাকা। এতে মোট বিনিয়োগের শতকরা ২৭ ভাগ দেবে সরকার। নির্মাণকালে এবং অপারেটিং পর্যায়ে ২ ধাপে সরকারের অংশ দেয়া হবে। অবশিষ্ট অর্থ দেবে বিনিয়োগকারী প্রতিষ্ঠান। নির্মাণ শেষ হলে চুক্তি অনুযায়ী এক্সপ্রেসওয়েটি নির্দিষ্ট সময়কালের পরে সরকারের কাছে হস্তান্তর করা হবে।