ক্যাটেগরিঃ চারপাশে

 

এই শিরোনামটা দেখে অনেকে হয় তো অবাক হবেন। আমরা সবাই জানি ইলিশ মাছ সোনার হরিণ, যা মধ্যবিত্তের নাগালের বাইরে। কিন্তু ইলিশ মাছ কিভাবে এখন গরিবের মাছ হল তা বলব।

সরকার ইলিশ সম্পদ রক্ষার জন্য নিয়মিত কর্মসূচি হিসেবে প্রতিবছর ২৫ সেপ্টেম্বর থেকে ৫ অক্টোবর পর্যন্ত ইলিশ মাছ ধরা নিষিদ্ধ করে । এজন্য সরকারের প্রতি বছর কয়েক কোটি টাকা খরচ হয় । সেই ধারাবাহিকতায় এবার ২৫ সেপ্টেম্বর থেকে ৫ অক্টোবরে পর্যন্ত ইলিশ মাছ ধরা সরকার কর্তৃক নিষিদ্ধ করা হয়েছে। কিন্তু প্রতিদিন লাখ লাখ টাকার ইলিশ মাছ কেনা বেচা হচ্ছে শরীয়তপুর জেলার ,সখিপুর থানাধীন চরভাগা এবং তারাবুনিয়া ইউনিয়নে।

বর্তমানে সেখানে প্রতিটি ১ কেজির ইলিশ মাছ বিক্রি হচ্ছে মাত্র ১০০ টাকায়। যা অন্য সময়ের বাজার ধরের তুলনায় ১০ থেকে ১২ গুন কম। তাই শরীয়তপুর জেলার সকল মানুষের এখন একমাত্র মাছ হচ্ছে ইলিশ মাছ। সেখানে গরিব মানুষেরা ইলিশ মাছ পান তাদের সাধ্যের মধ্যে। আর অনেক ইলিশ মাছ পাচার হয়ে যায় ঢাকা সহ পাশের জেলা গুলোতে।

প্রতিদিন শরীয়তপুর জেলার যেই পরিমান ইলিশ বিক্রি হচ্ছে মাত্র লাখ টাকায় যা পরবর্তী সময়ের কয়েক কোটি টাকার সমান। ইলিশ সম্পদ রক্ষার জন্য প্রতিদিন জেলায় চলছে পুলিশ, র‌্যাব, ভ্রাম্যমান আদালত এবং কোস্ট গার্ডের যৌথ অভিযান। কিন্তু জেলে ও এলাকাবাসীদের কাছে তারা অসহায়। এর ফলে নষ্ট হচ্ছে কোটি টাকার সম্পদ। আমি মনে করি শুধু জনগনের সচেতনতাই পারে দেশের ইলিশ সম্পদ রক্ষা করতে।