ক্যাটেগরিঃ নাগরিক আলাপ

 

টিআইবির বর্তমান ন্যায়পাল কে- এটা জানার জন্য ফোন করেছিলাম টিআইবি’র প্রধান কার্যালয়ে। টেলিফোন নম্বর পেয়েছি তাদের ওয়েবসাইট থেকে। ফোনে অটো রিসিভ হওয়ার পর তাদের নির্দেশনা মোতাবেক ০ প্রেস করলাম। ধরলেন একজন নারী। প্রাসংঙ্গিক পরিচয় দিয়ে আমার কাঙ্ক্ষিত তথ্য জানার জন্য প্রশ্ন করলাম, ‘আপু, টিআইবির বর্তমান ন্যায়পাল কে? আমার একটু নামটা প্রয়োজন।’ টেলিফোনের ওপাশ থেকে জানানো হলো, ‘ন্যায়পাল? সেটা আবার কী? টিআইবির চেয়ারম্যান আছে, তার নাম…’। অমি তাকে থামিয়ে দিয়ে বললাম, টিআইবির একজন ন্যায়পাল আছেন। উনি তখন কোনো কথা না বলে অন্য একটি লাইনে সংযোগ দিলেন। একজন পুরুষ আমার পরিচয় জেনে ন্যায়পালের নামটি বললেন। আমি ন্যায়পালের ইমেইল আইডি পেতে পারি কি না জানতে চাইলে তিনি সেই তথ্য জানার কারণ জানতে চাইলেন। আমি বললাম, একটি অভিযোগ দায়ের করতে চাই। উনি জানালেন, ‘আমাদের সংগঠনের নিজেদের কর্মীদের (ইন্টারন্যাল) অভিযোগ করার জন্য ন্যায়পাল। টিআইবি সম্পর্কে এক্সটারনাল অভিযোগ করার জন্য প্রথমে ইনফরমেশন অফিসার, তারপর ইডি, এরপর ট্রাস্টিবোর্ড হয়ে ন্যায়পাল। ‘

মজার ব্যাপার হলো, নিজেদের ইন্টারন্যাল অভিযোগ দায়েরের জন্য ন্যায়পাল, অথচ নিজেদের প্রধান কার্যালয়ের একজন কর্মী জানেন না ন্যায়পাল কী, আর তার নাম-ই বা কী? অথচ তিনিই আমার সাথে বাহ্যিক যোগাযোগের পার্ট হিসেবে টেলিফোন ধরে প্রথম কথা বললেন! বোঝেন অবস্থা !!!