ক্যাটেগরিঃ নাগরিক সমস্যা

মাননীয় অর্থমন্ত্রী আর কত কষ্ট করবে সাধারণ মানুষ? প্রথমে এ ৫০ ভাগ , তারপর আরও ২০ ভাগ দাম বাড়লো সিএনজি গ্যাস এর দাম, আর তাতেই সাধারণ মানুষ কত কষ্টে পড়েছে আপনি কী তা জানেন মাননীয় মন্ত্রী ? পাঁচ টাকার ভাড়া হয়েছে দশ টাকা, ১২০ টাকার ভাড়া হয়েছে ১৮০ টাকা, আর সব কিছুর দাম যখন এমন অসহনীয় তখন কী বুঝে সিএনজির দাম আপনি ডিজেল এর কাছাকাছি আনতে চান?

বর্তমানে কোনও সিএনজি ট্যাক্সি, অটো রিক্সা , মিটারে যেতে চায় না, আর তখন কী হবে ভাবুন! অসংখ্য মানুষ সিএনজি রূপান্তর এর সাথে জড়িত, তারা তাদের কর্মসংস্থান হারাবে। মধ্যবিত্ত মানুষ যারা আগে সিএনজি ট্যাক্সি, অটোরিক্সা তে চড়তো তারা অধিক ভাড়া বৃদ্ধির কারণে এসব যানবাহনে চড়া বন্ধ করে দিবে, আর তাতে এই ক্ষেত্রে বিনিয়োগকারি অসংখ্য মানুষ পথে বসবে, অগণিত ড্রাইভার তাদের কর্মসংস্থান হারাবে, সেই সাথে তাদের পরিবার পড়বে এক অবর্ণনীয় যন্ত্রনায়, জনগণের কষ্ট ভিআইপিরা বুঝে না কারণ তাদের কিন্তু সাধারণ মানুষ এর মত এমন কষ্ট পোহাতে হয় না ( করবিহীন গাড়ী, সরকারী তেল,ড্রাইভার ) জনমানব শূন্য রাস্তা (পুলিশ দিয়ে রাজপথ খালি করে) এসব তাদের কেনই বা ছোঁবে, পরিবহন ভাড়া বৃদ্ধি পেলে , তার সাথে পাল্লা দিয়ে বাড়বে নিত্য প্রয়োজনীয় সব পন্যের দাম, আর কত খেলবেন আমাদের নিয়ে , এমনিতেই ভেঙে পরা অর্থনীতি, তার উপর মূল্যস্স্ফিতীর দিনে দিনে লাগামহীন বৃদ্ধি আমাদের এক ভয়াবহ দু:সময় এর মাঝে নিয়ে যাচ্ছে, তাই অর্থমন্ত্রীর কাছে বলছি দয়া করে আর আমাদের কষ্ট দিবেন না, তা হলে এটা হবে জাতির প্রতি একটা অবিবেচনা প্রসূত কাজ . জ্বালানি তেলের নতুন করে মূল্য বৃদ্ধি করে সরকার কতটা জন বিচ্ছিন্ন তা প্রমাণ করল।