ক্যাটেগরিঃ রাজনীতি

আমাদের দেশে যতগুলো মসজিদ আছে তার ৮০% মসজিদ ‘তবলিগ জামাতে’র সাথে জড়িত আর তবলিগ জামাতের প্রবর্তক হল মৌলভি ইলিয়াস সাহেব তিনি ছিলেন উপমহাদেশের বিখ্যাত মাদ্রাসা দারুল উলুম দেউবন্দের মতানুসারী। এই দেউবন্দ মাদ্রাসার মত হল মিঃ আবুল আলা মউদুদি দীন ইসলামকে একটি ধর্ম হিসেবে না দেখে তাকে একটি রাজনৈতিক প্লাটফর্ম হিসেবে দেখেছেন এবং ব্যাবহার করেছেন।এই মউদুদি সাহেব নিজের মতের অনুকূলে কোরানের অপব্যাখ্যা দেয়া থেকে তার হাতকে বিরত রাখেনি। নবীদের নিষ্পাপ মনে করেনা। সাহাবিদের ব্যাপারে সন্দেহ পোষণ করে। এবং হাদিস গ্রন্থ গুলোকে স্নেহের চোখে দেখে তাই বলা যেতে পারে মউদুদি সাহেব আর যাই না হোক একজন অভিশপ্ত বটে। আর শিবির হল জামাত-রাজাকার-‘মউদুদি দের মানসপুত্র। ৭১ পরবর্তী জামাত ও শিবিরের নতুন প্রজন্মের কাছে ৭১ একটি আমাদের থেকে আলাদা ও অন্য এক ইতিহাস!!! ওরা বলে বেড়ায় ‘তথাকথিত যুদ্ধাপরাধে’ অভিযুক্ত নাকি তাদের মালাউন নেতারা। আজ অবধি শেখ সাহেবর ও শেখ হাসিনার তিন মেয়াদেও জামাত শিবিরকে বিলোপ করা যায়নি বিলোপ করতে পারেনি আমাদের রথি মহারথীরা। দেখুন আজকের ১৮ দলীয় জোটের মেহফিল পরিবর্তিত হয়েছিল শিবিরের সাইমুমি জলসায়। বিএনপি-জামাত জোট এখন জামাত-বিএনপি জোটে পরিণত হয়ে যাচ্ছে। ম্যাডাম এখনো সময় আছে পরগাছা উপড়ে ফেলার। আর যদি তা আপনার মনপূত না হয় তবে এবার বোরকাটা পরুন। আপনি তার সাহাবাদের সাথে থেকেও পোশাকি ইসলাম* থেকে বহু দূর বহু দূর অবস্থান করছেন। দেশের যখন এই অবস্থা তখন সময়ের দাবী হয়ে দাঁড়ায় বাংলাদেশের ৬৪টি জেলায় নামে বেনামে প্রকাশ্য ও গোপনে শিবিরকে ধ্বংস করার লক্ষে সংঘ দাঁড় করানো!!!