ক্যাটেগরিঃ আন্তর্জাতিক

আমাদের দেশটি ছোট। আমরা দরিদ্র। তাই ইচ্ছা থাকা সত্ত্বেও নির্যাতিত রোহিঙ্গাদের জন্যে কিছু করতে পারছিনা! আফসোস!!! জাতি সংঘ এমেরিকা তোমরা অং সাং সুচি কে নিয়ে তোমাদের এজেন্দা এগিয়ে নিতে ছাইছো রোহিঙ্গাদের নিয়ে জান্তাদের উপর চাপ দিতে যেয়ে সেই এজেন্দাকে পিছিয়ে দেয়ার সুযোগ পাচ্ছনা এই ব্যাপারটা গণতন্ত্রের মানস কন্যা সুচিও (?) বুজতে পারছেন তাই তিনিও মানবতার জয়গান গাওয়া থেকে বর্তমানে কৌশল গত কারনে নিজেকে গুটিয়ে রাখছেন! আহারে! এমেরিকা তিয়ান্মেন স্কয়ারের জন্য কত কান্না তোমাদের আর রোহিঙ্গাদের ব্যাপারে উদর পিণ্ডি ভুঁদোর ঘারে দিয়ে সাধু সাজতে চাও! সুচি ও জাতি সংঘ সব ভণ্ড। সুচিও বুঝে গিয়েছে বৃহত্তর স্বার্থে ( জান্তার তথাকথিত গণতন্ত্র) ক্ষুদ্রতর (রোহিঙ্গা ইস্যু) কে ত্যাগ করতে হয়!

অং সাং সূচি এখন মধু চন্দ্রিমায়! এই হই হুল্লরে চাঁপা পরে যাচ্ছে রোহিঙ্গাদের আর্তনাদের ব্লাঙ্ক চ্যাক! তার বর্তমান নিরবতায় প্রতীয়মান হয় যে তিনি ডেমোক্রেসির মানসকন্যা নন হিপোক্রেসির মানসকন্যা! তার শান্তিতে নোবেল জয়ের সার্থকতা আজ প্রশ্নবিদ্ধ! রক্তগঙ্গা বইছে নিজ দেশে তিনি ভিন দেশে ঘুরে বেরাচ্ছেন পশ্চিমাদের পাপেট হিসেবে! ঘৃণা ঘৃণা ঘৃণা তার জন্যে, ঘৃণাই তার প্রাপ্য।