ক্যাটেগরিঃ নাগরিক আলাপ

গরিব দেশগুলোর কেউ যদি সাহিত্যে বা শান্তিতে নোবেল পায় তাহলে আম জাম জনতাও জিজ্ঞাসা শুরু করে ঐ লোকটা কিভাবে নিজ দেশের ক্ষতি করেছিল যে ওদের কাছে তা শৈল্পিক মনে হল? ডক্টর ইউনুস নোবেল পেয়েছে আমি বলি মারহাবা! আগামি কাল আমাদের কেউ সাহিত্যে পাবে একদিন তো রসায়নে পাবে।

অং সাং সূচি কেন নোবেল পেলেন ঘরে ফসল তোলার আগে? যার ওজন কম তাকে ওজন বাড়িয়ে জান্তা লোহাকে লোহা দিয়ে কাটার জন্যে। সূচি অগ্রিম নোবেল নিলেন আর শান্তি(!) দিলেন বাকিতে আরাকানে দাঙ্গায় নিরব থেকে। এখন আমার প্রশ্ন শান্তিতে নোবেল পেতে কে বেশি উপযুক্ত নাফ নদীর ওপারের মেয়ে সূচি না এপারের শেখ হাসিনা?

সুচির শান্তি দেখা যায়না ছোঁয়া যায়না শুনা যায় পড়া যায় অনেকটা কাজির গরু কিতাবে আছে গোয়ালে নেই! আর আমাদের শেখ হাসিনার শান্তি প্রায় সন্তু লারমার মুখে শুনতে পাই ‘আধা পেয়েছি আধা বাকি আছে’।

তবুও এটি একটি স্বীকৃতি ও অগ্রগামিতা শান্তির পথে তাই বলতে বাধ্য সূচি যদি পেতে পারে বাকিতে কাজ রেখে হাসিনা তাহলে আরও বেশি যোগ্য তবে আমরা জানি এখানে সেই ওদের একটি হিসাবের খাতা আছে যেই খাতার হিসেবে ইউনুস পাবে সূচি পাবে তবে হাসিনা পাবে না। আর আমি বলবো হাসিনাকে নোবেল পেতেই হবে এমন নয় ব্যাপারটা তবে সূচি পেলে হাসিনা পাবে না কেন?