ক্যাটেগরিঃ স্বাধিকার চেতনা

বাংলাদেশের স্বাধীনতা আন্দোলনে মেজর জিয়ার ভূমিকা নিয়ে আমি কখনই প্রশ্ন তুলিনি।যথেষ্ট শ্রদ্ধার সঙ্গে তার ভূমিকাকে সম্মান করতাম।যদিও পরবর্তিকালে তার ভূমিকা ছিল নোংড়া ইতিহাস গড়া ছাড়া আর কিছু না। তারপর থেকে তাকে নিয়ে ডিল ছুড়াছুড়ি-কাঁদামাখামাখি কম হয় নি। আজ “আমাদের সময়” মেজর সাহেবের প্রকৃত চেহারা উন্মোচন করে দিল!!!

একটি চিঠি আজ বাংলাদেশের মানুষের সামনে উন্মোচন করেছে পত্রিকাটি।

সেই চিঠি খানি

চিঠিটি ছিল ১৯৭১ সালের ২৯মে কর্ণেল বেগের লেখা মেজর জিয়ার প্রতি। যা ছিল চিঠিতে-

Major Zia Ur Rahman, Pak Army, Dacca

We all happy with your job. We must say good job! You will get new job soon.
DonÕt worrie about your family. Your wife and kids are fine.
You have to be more carefull about major Jalil.

Col. Baig Pak Army
May 29. 1971

এখানে দেখুন বিস্তারিত

‘জিয়াকে লেখা কর্নেল বেগের চিঠি’…বাংলায় অনুবাদ করলে দাঁড়ায়-

মেজর জিয়াউর রহমান, পাক আর্মি, ঢাকা তোমার কাজে আমরা সবাই খুশি। আমাদের অবশ্যই বলতে হবে তুমি ভালো কাজ করছো। খুব শিগগিরই তুমি নতুন কাজ পাবে।তোমার পরিবার নিয়ে উদ্বিগ্ন হয়োনা। তোমার স্ত্রী ও বাচ্চারা ভালো আছে। তোমাকে মেজর জলিল সম্পর্কে আরো সতর্ক থাকতে হবে।( কর্নেল বেগ, পাক আর্মি মে ২৯, ১৯৭১)

এই চিঠি কি প্রমাণ করে?তা বিচার করবে সময়।তবে বই পড়ে,পত্রিকা মারফত কিংবা সেসময়ের মুরব্বীদের কাছ থেকে শুনে(যেহেতু জন্ম স্বাধীনতার অনেক বছর পরে) ইতিহাস যেটুকু জানি তার সাথে এই চিঠি মিলালে একটিই বিশ্লেষণ পাই।

-১৯৭১-এর এই চিঠি,১৯৭৫-এ জিয়া-মোশতাক চক্রের আতাত ও বঙ্গবন্ধুকে স্ব-পরিবারে হত্যা, তার পরবর্তি ঘটনা পঞ্জী,যুদ্ধপরাধের বিচার বন্ধ ও অপরাধিদের মুক্তিদান, দাবি স্বত্ত্বেও ১৯৯১ সালে খালেদা সরকারের ইনডেমনিটি বাতিল না করা,২০০১সালে যুদ্ধপরাধীদের নিয়ে সরকার গঠন এবং মন্ত্রীত্ব দান, এখন আবার বিচার বানচালের যড়যন্ত্র এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকে(যারা আমাদের স্বাধীনতার ঘোর বিরোধী ছিলেন) খালেদা জিয়ার নালিশ পত্র ইত্যাদি একত্র করলে কি দাঁড়ায়?