ক্যাটেগরিঃ অর্থনীতি-বাণিজ্য

হাত পাতা এখন আমাদের একটি স্বভাবে পরিনত হয়েছে। নিজস্ব অর্থায়নে কিছু করতেই আমরা রাজী নই। বাংলাদেশে এমন অনেক ব্যক্তি আছেন যারা শুধু মাত্র নিজেদের টাকাতেই ২/৩ টা পদ্মা সেতু বানাতে পারেন। আর বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান গুলোর কথা তো বাদ্ দিলাম। এছাড়া আমাদের আছে এক অসাধারন সম্পদ। জনসম্পদ। এই কোটি কোটি মানুষের সম্মিলিত প্রয়াস যে কী অসাধারন কাজ নিমিষেই করে দিতে পারে তা পূর্বে বহুবার প্রকাশিত।

তবে কেন অন্যের দিকে চেয়ে থাকা? তবে কেন আমরা নিজেদের অর্থায়নে করছি না পদ্মা সেতু? আজ বিশ্ব ব্যাংক যখন আমাদের ঋণ দিতে অনিচ্ছা প্রকাশ করেছে তখন আমরা ভাবছি নিজেদের টাকায় পদ্মা সেতু বানাব। আজ যদি এটা ভাবতে পারি তবে ঋণ চাওয়ার আগে কেন ভাবতে পারলাম না? কারন আমাদের দেশের কোন সরকারই দেশ নিয়ে ভাবে না, তারা শুধু ভাবে কিভাবে নিজেদের পকেট ভরা যায়।

দু:খ জনক হলেও সত্যি, বাহির থেকে ঋণ পাওয়া টাকা অর্ধেকেরই কোন হদিস পাওয়া যায় না। সরকারে বলছি, আপনারে একটু বদলান। একটু হলেও দেশের জন্যে ভাবুন। সাধারন মনুষ আপনাদের নির্বাচিত করে দেশের মঙ্গলের জন্যে, আপনাদের নিজেদের পকেট ভরবার জন্য নয়।

বাহির থেকে ঋণ আনলে আমাদের দেশের কত টাকা যে চলে যাবে তা হিসেব করার মত না। এছাড়া দেশীয় অর্থায়নে কাজ হলে দেশের অনেক মানুষের কর্মসংস্থান হবে। বেচে যাবে দেশের সম্পদ। আরো একটি বড় ব্যাপার হল, যদি আমরা দেশীয় অর্থায়নে এই কাজটি করতে পারি তবে তা হবে দক্ষিন এশিয়ার জন্যে একটি মাইল ফলক। তাহলে কেন নয় দেশীয় অর্থায়ন?
আসুন, আমরা দেশকে ভালবাসি, দেশের জন্য কাজ করি।