ক্যাটেগরিঃ রাজনীতি

মাননীয় দেশনেত্রী আমার সালাম নিবেন, আমি জানি কারো ব্যক্তিগত ব্যাপারে হস্তক্ষেপ করাটা অপরাধ। হ্যাঁ অপরাধ হয় যদি সেটা হয় পরনিন্দা বা আমার মাথা না ঘামালেও চলবে এমন কোন ব্যক্তির ব্যাপারে হয়। যদি আমার পরিবারের আমার ভাই অথবা সন্তানের কারনে আমাকে লজ্জিত হতে হয় তাহলে তাকে বলার অধিকার আমার আছে। সেটা কিন্তু অপরাধ নয়। আপনি আমাদের প্রধান বিরোধী দলের নেত্রী, সাবেক প্রধান মন্ত্রী, সাবেক রাষ্ট্র প্রধান বীর মুক্তিযোদ্ধা শহীদ জিয়াউর রহমান এর স্ত্রী, আমাদের দেশনেত্রী। আপনি এই দেশের মাটি ও মানুষের সাথে অংগাংগি ভাবে জড়িত। আপনি আমাদের নেত্রী আর আমরা আপনার ভক্ত, দিনে অন্তত একবার হলেও আপনার নামটা আমরা মুখে নিই। সেই হিসাবে আপনাকে পর বলার কোন অবকাশ নেই। আপনি আমাদের আপনজন আমরা আপনার রাজনৈতিক পরিবারের সদস্য বটে। সুতরাং আপনার ব্যক্তিগত ব্যাপারে কিছু কথা বলার অধিকার আমাদের আছে যা আমাদের লজ্জার কারন হয়। মহান আল্লাহ্‌ রাব্বুল আলামীন আপনাকে অপরূপ মহিমা দিয়ে সৃষ্টি করেছেন যা অন্য নেত্রীদের চাইতে বেশী, মহান রাব্বুল আলামীনের দরবারে লাখো কোটি শোকরিয়া আদায় করছি আমাদের নেত্রীকে অপরূপ মহিমায় সৃষ্টি করার জন্য। তথাপি কৃত্রিম উপায়ে আপনার সৌন্দর্য বৃদ্ধি করার কোন কারন আমি দেখছি না। আপনি প্রধান মন্ত্রী হন বা দেশ নেত্রী হন যাই হন না কেন সর্বোপরি আপনি একজন বাংলা মায়ের বীর সন্তানের স্ত্রী তথা বাংলার বধূ। আপনাকে বাংলার বধূবেশে বেশী মানাবে বলে আমার বিশ্বাস যা অন্য কোন চালচিত্রে নয়। না আমি আপনাকে বধূ সেজে ঘরে বসে থাকার কথা বলছি না। আপনি রাজনীতি করেন, নেতৃত্ব দেন, দেশের প্রধানমন্ত্রী হউন এটাই কামনা করি। পাশাপাশি আপনার সহযোদ্ধা মাননীয় প্রধান মন্ত্রী, মাননীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী ও পররাষ্ট্র মন্ত্রী এরাও আপনার মতো নারী এদের চলাফেরার এদের বেশভূষার প্রতি একটু নজর দিবেন। তাতে অন্তত আমরা মানুষের কাছে লজ্জিত হওয়া থেকে মুক্তি পাবো। টিভিতে যখন আপনাকে এবং অন্যান্য নারী নেত্রীদের দেখানো হয় তখন গ্রামের সহজ সরল মানুষগুলো দুই নেত্রীর সাজ সজ্জার মধ্যে পার্থক্য খুঁজে এবং আপনার অতিরিক্ত সাজ সজ্জার ব্যাপারে সমালোচনা করে আমাদেরকে কটু কথা বলে। তখন আমাদের খুব খারাপ লাগে এবং লজ্জিত বোধ করি। একমাত্র আপনি পারেন আপনার এই ভক্তদের লজ্জার হাত থেকে বাঁচাতে। বাধ্য হয়ে কথা গুলো বলতে হল বলে বিনীতভাবে ক্ষমা প্রার্থনা করছি।