ক্যাটেগরিঃ আইন-শৃংখলা

সম্প্রতি সাংবাদিক দম্পতি সাগর-রুনির খুনের বিষয় নিয়ে দেশ তোলপার। দেশের উচ্চ মহল হতে সাধারণ মানুষের মুখে শুনা যাচ্ছে এই আলোচনা। কেউ বা করে সরকারের বদনাম কেউ বা আবার গোয়েন্দার। সরকার, গোয়েন্দা, পুলিশ বাহিনী কিংবা বিরোধী দল কারোরই আন্তরিকতার অভাব দেখলাম না খুনিকে গ্রেপ্তার করার বিষয়ে। মাননীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী দিলেন খুনিকে গ্রেপ্তার জন্য ৪৮ ঘণ্টার আল্টিমেটাম। ৪৮ ঘণ্টা পেরিয়ে কত ৪৮ ঘণ্টা চলে গেল কাজের কাজ কিছুই হল না। অবশেষে পেলাম খুনির হাতের ছাপ অস্পষ্ট ১ ফুট ৮ ইঞ্চি শিক কাটার গল্প। তাহলে কি আমাদের গোয়েন্দারা দুর্বল? না সেটা আমি মানতে রাজি নই। আমাদের গোয়েন্দারা কোন অবস্থাতে দুর্বল নয়। কারন ইতিমধ্যে আমরা দেখছি আমাদের গোয়েন্দারা “জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর” খুনিদের বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে কিভাবে খুঁজে বের করে আনতে, দেখেছি আমরা ২৫, ২৬ ফেব্রুয়ারী ০৯ ঘটে যাওয়া কলঙ্কিত ঘটনার নায়কদের খুঁজে বের করতে, আরও দেখেছি বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ভিতর লুকিয়ে থাকা আমাদের চির শ্ত্রু রাজাকার বাহিনীর সদস্যদের আর একটি ১৫ আগস্ট সৃষ্টি করার কু-চক্রান্তকে নস্যাৎ করে দিয়ে দেশকে অকল্পনীয় একটা ক্ষতির হাত থেকে রক্ষা করতে। যে গোয়েন্দারা এত বৃহৎ কাজ গুলো করতে পারল বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে খুনিদের বের করে আনতে পারল তারা নাকি একজন শিককাটা খুনির সন্ধান পাচ্ছে না। তাও আবার দেশের ভিতর। এটা কি বিশ্বাস করার কথা? খুনিরা কি জীন তাদের হাতের ছাপ অস্পষ্ট যা আমাদের গোয়েন্দারা দেখতে পারছেনা? গোয়েন্দারা কি সত্যি পারছে না? নাকি কোন অদৃশ্য শিকলে তাদের হাত পা বাধা?