ক্যাটেগরিঃ নাগরিক সমস্যা

 

ঘটনা-১:রাত ১১ টা। বাসে চট্টগ্রাম যাচ্ছি। বাস সায়েদাবাদ জ্যামে আটেক আছে। সামনের সীটের ভদ্র মহিলা (জানালার পাশে বসা) মোবাইল ফোনে কথা বলছেন। আচমকা রাস্তা হতে একটি লোক হাত দিয়ে ঝটকা মেরে মোবাইলটা ছিনিয়ে নিল। ভদ্র মহিলা চিৎকার করে উঠলেন আর বলতে লাগলেন “আমার মোবাইলটা নিয়ে গেল”। আর আমরা কিছু বুঝে উঠার আগেই মোবাইল চোর, মোবাইল নিয়ে পালিয়ে গেল।

ঘটনা-২:রাত ৯ টা। বিজয়নগর পানির ট্যাংক এর সামনের রাস্তায়। রিকশাযোগে বাসায় ফিরছি। ঠিক আমার সামনের রিকশায় এক ভদ্রলোক মোবাইল ফোনে কথা বলছেন। কিছুক্ষন পর একটি মোটর সাইকেল আরোহী খুব দ্রুতগতিতে আমাদের পার হয়ে গেল। সাথে সাথে আমার সামনের রিকশার সেই ভদ্রলোকটির চিৎকার, “আমার মোবাইল নিয়ে গেল”। এরপর শুধু চেয়ে চেয়ে দেখলাম বাইক আরোহীর দ্রুত চলে যায়া।

ঘটনা-৩: রাত ৯ টা ৪৫ মিনিট। নটরডেম কলেজের সামনের রাস্তায়। গন্তব্যটি আর ট্রাভেলসের কাউন্টার। রিকশাযোগে আমি আর আমার এক ডাক্তার বন্ধু যাচ্ছি। সবেমাত্র আমার ডাক্তার বন্ধুটির জন্য একটি ল্যাপটপ কিনে আনলাম। একটি মোটর সাইকেলে দুজন আরোহী আমাদের খুব দ্রুতবেগে ক্রস করল। সাথে সাথেই আমার বন্ধুটির চিৎকার “আমার ল্যাপটপ”। কিছুই করতে পারলাম না।

ঘটনা-৪: আজ সকাল ৮ টা ৩০ মিনিট। গুলিস্তান হতে বায়তুল মোকার্‌মের রাস্তায়। হেঁটে অফিসে যাচ্ছি। রাস্তার বিপরীত দিক হতে হঠাৎ চিৎকার শুনে ফিরে তাকালাম। দেখি একটি রিকশার পাশে একটি মহিলা এবং একটি শিশু রাস্তায় পড়ে আছে। তাড়াতাড়ি কাছে গেলাম। গিয়ে শুনলাম, সেই ভদ্র মহিলা তার স্বামী এবং সন্তান সহ রিকশাযোগে যাচ্ছিলেন। সে সময় একটি মাইক্রোবাস তাদের অতিক্রম করার সময় মাইক্রোবাসের ভিতর বসা এক লোক ভদ্র মহিলার হাতে ধরা ব্যাগটি ছিনিয়ে নিয়ে যায়। আর সেই ভদ্রমহিলা তাল সামলাতে না পেরে তার শিশু সন্তানসহ রিকশা থেকে পড়ে গিয়ে মারাত্নক ব্যাথা পান।

পাঠকবৃন্দ, উপরের ঘটনাগুলো এখন আমাদের এই শহরের একটি নিত্য ঘটনা। যার ফলে প্রতিদিন এই শহরের অনেক মানুষ আর্থিক, শারীরিক এবং মানসিকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে। আসুন আমরা সবাই সচেতন হই যাতে করে এ রকম ঘটনার পুনরাবৃত্তি না হয়।