ক্যাটেগরিঃ ধর্ম বিষয়ক

আপনার উপর আল্লাহর রহমতের সাথে শান্তি আসুক। লেখককে উদ্দেশ্য [লিংক] করে বলছি : সবার আগে একটি প্রশ্ন – আপনি কী একজন মুসলিম নাকী অমুসলিম?! যদি আপনি অমুসলিম হন তাহলে কিছু বলার নেই আপনাকে কারণ ইসলাম সম্পর্কে আপনার ভুল ধারনা থাকবে এটাই স্বভাবিক। আর অমুসলানদের জন্য হজ্জ এবং কুরবানী কোনটাই প্রযোজ্য নয় । আর যদি নিজেকে মুসলিম দাবি করেন তাহলে কিছু প্রশ্ন না করে পারছিনা। অকজন মুসলিম তখনই প্রকৃতপক্ষে মুসলিম হবে যখন সে আল্লাহর প্রতি সম্পূর্ণ আত্মসমর্পণ করবে। আপনার কী অধিকার আছে ইসলাম এর পাচটি মূল পিলারের / ভিত্তির একটি (হজ্জ) এর যৌক্তিগতা নিয়ে কথা বলার যেখানে সর্বশক্তিমান আল্লাহ হজ্জ কে ফরজ/ বাধ্যতামূলক করেছেন সব মুসলমানের উপর যাদের ক্ষমতা আছে হজ্জ করার?! হারাম টাকা দেয়া হজ্জ করলে সেই হজ্জ আল্লাহ কখনো কবুল করেন না। হজ্জ এর মাধ্যমে মুসলিমরা তাদের সব গুনাহ মাফ পাবার যে দুর্লভ সুযোগ পায় তা কোন টাকার হিসাবে পরিমাপ করতে পারবেন?! যদি আপনি বিশ্বাসী হন।

আসুন কোরবানির বিষয়ে, এটা ঠিক যে বর্তমান সময়ে অনেক মুসলিম কুরবানীর আসল উদ্দেশ্য ভুলে গেছে । এসব লোক কোরবানিকে লোক দেখানো সস্তা অহংকার এবং প্রতিযোগিতা হিসবে ব্যবহার করছে। কিন্তু এর সাথে ইসলাম এর কোনও সম্পর্ক নেই , আল্লাহ শুধু সেইসব লোকের কোরবানি কবুল করবেন যারা শুধু আল্লাহর সন্তুষ্টি অর্জনের জন্য কোরবানি করবে। কুরবানীর মাংস গরীব এবং আত্মীয়দের মধ্যে ভাগ করে দেবার নির্দেশ আছে। সুতরাং হজ্জ এবং কোরবানি আপনার দেয়া ফর্মুলা তে মুসলিমরা কখনোই বর্জন করবেনা যারা একমাত্র আল্লাহর নির্দেশে চলে।

আসুন এখন আপনার আর্থিক থিওরি বিবেচনা করি- আপনি জনগণের কল্যাণের কথা ভাবছেন খুব ভাল কথা কিন্তু সেটা কেন মুসলমানদের ধর্মীয় উত্‍সব / হজ্জ এর পরিবর্তে করতে হবে?! কেন আপনি দুর্নীতির কথা বলছেন না? এক বছর এর দুর্নীতির টাকা ব্যবহার করে কী কী করা যেত লিখবেন (যদি পারেন) ?! ক্যাপিটালিস্ট / পুজিবাদী অর্থনীতির জন্য গরীব এখন আরও গরীব হচ্ছে , ধনী এখন আর ধনী হচ্ছে । সমাজের সব স্তরে এখন অবিচার এবং অসাধুতা বিরাজমান । দুটি দল গণনন্তের নামে দেশকে বছরের পর বছর লুট করছে এবং অরাজকতা করছে । আসলেই কী এটা গণতন্ত? নাকি গণতান্ত্রিক একনায়কতন্ত?! কেন আপনার সেইসব দুর্নীতিবাজ রাজনীতিবিদ , অসাধু ব্যবসায়ীদের বিলাসী জীবন যাপন এর কথা বলেন না? সারা সম্পদের পাহাড় গড়েছে মানুষের অর্থ লুট করে । এদের এসব সম্পদ জনগণের কী কী ক্যলানে ব্যবহার করা যেত ?! কেন আপনারা সম্পদের সুষম বন্টনের কথা বলেন না? সম্পদের সুষম বন্টন হলে একটা মানুষেরও মৌলিক চাহিদা অপূর্ণ থাকতো না।

ইসলাম এসব নিশ্চিত করেছে ।ইসলাম একটি পরিপূর্ণ জীবন বাবস্থা মানুষের জন্য। কিন্তু ইসলামের এই ব্যবস্থা মূলত মুসলিমদের জন্য প্রযোজ্য। একটি ইসলামিক দেশেও অমুসলিমরা তাদের নিজেদের আইন এবং রীতি অনুসারে জীবন চলতে মুক্ত। সবার অধিকার সংরক্ষণ এর কথা ইসলাম সবসময় সর্বোচ্চ গুরুত্ত প্রদান করে । ইসলাম সম্পর্কে বাংলাদেশে অনেক ভুল ধারনা আছে। আসুন ইসলামকে সঠিক ভাবে জানি। ইসলামের ইতিহাস সম্পর্কে জানি। জ্ঞান অর্জন সব মুসলমানের জন্য বাধ্যতামূলক। তাহলে এভাবে কিছু মানুষ বিভ্রান্তি সৃষ্টি করতে পারবেনা যারা ইসলামকে শুধু কিছু ধর্মীয় অনুষ্ঠানের মধ্যে সীমাবদ্ধ রাখতে চায়। কিছু লোক ধর্ম নিরপেক্ষতার আড়ালে ধর্মহীনতা প্রচার করছে । আর যদি কেউ ইসলামের সঠিক বাণী দিচ্ছে তাকেও ধর্মান্ধ বলে অবহিত করা হচ্ছে।

আল্লাহ আমাদেরকে দিকনির্দেশনা দিন এবং সঠিক পথে পরিচালনা করুক।